সরকার দেশের গ্রামীণ অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে কাজ করছে-প্রধানমন্ত্রী

Spread the love

তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে আধুনিক সমবায় গড়ে তোলা হবে।‘সরকার দেশের গ্রামীণ অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে কাজ করছে।’সমবায়ের মাধ্যমে বিপণন ব্যবস্থা গড়ে তুললে মানুষ লাভবান হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।শনিবার (২ নভেম্বর) বিকেলে আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ৪৮তম জাতীয় সমবায় পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় তিনি সমবায় ব্যাংক ও সমবায় আইনকে যুগপোযোগী করার ও তাগিদ দেন।অনুষ্ঠানে জাতীয় সমবায় পুরস্কার অর্জনকারীদের হাতে পদক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। শুরুতে মেলা পরিদর্শন করেন তিনি।
এ বছরের সমবায় দিবসের প্রতিপাদ্য ‘বঙ্গবন্ধুর দর্শন, সমবায়ে উন্নয়ন’।সমবায়ের ভিত্তিতে উৎপাদন ও পণ্য বাজারজাতকরণের ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সমবায়ের ভিত্তিতে বিশেষ করে বাজারজাত করা, অর্থাৎ উৎপাদিত পণ্যটা আমি যথাযথভাবে যদি বাজারজাত করতে না পারি, পণ্য উৎপাদনে মানুষ আগ্রহ হারাবে।

সমবায়ের মাধ্যমে বিপণন ব্যবস্থা শক্তিশালী করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়ে তিনি বলেন, একটা পরিবার কিছু উৎপাদন করলে সেটা বাজারে নিয়ে যাওয়া যথেষ্ট কষ্টকর। সমবায়ের মাধ্যমে যদি বিপণন ব্যবস্থাটা আমরা করে দিতে পারি তাহলে প্রতিটি পরিবারই লাভবান হবে।

সমবায়ের মাধ্যমে অনলাইনে কেনাবেচা কার্যক্রম চালুর কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সমবায় অধিদপ্তরের সদর কার্যালয় থেকে উপজেলা পর্যন্ত সব কার্যালয়কে আইসিটি নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হয়েছে। সমবায়ের মাধ্যমে অনলাইনে কেনা বেচার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সমবায়কে গুরুত্ব দিয়ে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে টানা তিনবারের সরকারপ্রধান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনা মেনে আমরা সমবায়কে গুরুত্ব দিচ্ছি, যেন অধিক মানুষ লাভবান হতে পারে।সমবায় আইনকে যুগোপযোগী করা এবং সমবায় ব্যাংককে লাভজনক করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের বিদ্যমান সমবায় আইনকে যুগোপোযোগী করতে হবে। সমবায় ব্যাংক যেটা আছে, সেটা অনেকটা মুখ থুবড়ে পড়েছিল। এই ব্যাংক আইনটাকে যুগোপযোগী করে এটাকে লাভবানজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে চালু করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

অধিক সুফল পেতে প্রশিক্ষণের ওপর গুরুত্বারোপ করে শেখ হাসিনা বলেন, এক্ষেত্রে সমবায়ের কাজে যারা দক্ষ তাদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে। সৎভাবে যেন কাজ করেন আমাদের সেভাবে গুরুত্ব দিতে হবে।

প্রতিটি জমিকে উৎপাদনে কাজে লাগানোর আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেখা যায় যে কোনো জমি চাষ হয় না, অথবা অনেক সময় দেখা যায় পুকুর হেজে-মজে গেছে, চাষ হয় না, খানাখন্দ পড়ে থাকে। সবটুকুকে কাজে লাগালে- সেদিকে লক্ষ্য রেখে প্রতিটি বাড়ি যেন নিজেরা কিছু উপার্জন করতে পারে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশের মাটি উর্বর, জমি উর্বর, আমাদের মানুষ যথেষ্ট কাজের, তাদের একটু কাজে লাগাতে পারলেই সুফল নিয়ে আসা সম্ভব।বাংলাদেশে একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না, সে লক্ষ্যে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সারা বাংলাদেশে আমরা তথ্য নিচ্ছি, একটি মানুষও যেন গৃহহারা না থাকে। তাদের জন্য ঘর করে দেওয়া। সে লক্ষ্য সামনে রেখে আমরা প্রথমে নাম দিয়েছিলাম একটি বাড়ি একটি খামার, পরে আমি নাম দিয়েছিলাম আমার বাড়ি আমার খামার।
তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না। সে লক্ষ্য নিয়ে জাতির পিতা গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প হাতে নিয়েছিলেন। আমরা সেখানে আশ্রায়ন প্রকল্প হাতে নিয়েছি।সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপে গ্রামীণ মানুষের জীবনমান উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বিদ্যুৎ এবং রাস্তাঘাট, নৌ, রেল, সড়কপথ চালু করা, উন্নত করা এবং বিদ্যুৎ সুবিধা দেওয়া, এর ফলে গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বাড়ছে, মানুষের জীবন মান উন্নত হচ্ছে। অনুষ্ঠান মঞ্চে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য, এ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি খন্দকার মোশাররফ হোসেন, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব কামাল উদ্দিন তালুকদার, সমবায় অধিদপ্তরের নিবন্ধক ও মহাপরিচালক মো. আমিনুল ইসলাম, বাংলাদেশ জাতীয় সমবায় ইউনিয়নের সভাপতি শেখ নাদির হোসেন লিপু।
ঢাকা,শনিবার, ০২ নভেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় জামিন চেয়ে খালেদা জিয়ার আপিল

» রাজধানীতে পেঁয়াজের কেজি ২০০ টাকা

» টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে বন্দুকযুদ্ধে এক রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নিহত

» রাজধানীসহ সারাদেশে আজ থেকে শুরু হচ্ছে জাতীয় আয়কর মেলা

» রাজধানীর যাত্রাবাড়ীতে বাসের ধাক্কায় ৬ বছর বয়সী এক শিশুর মৃত্যু

» সরবরাহ ব্যবস্থা উন্নয়নের মাধ্যমে রফতানি বৃদ্ধি করা সম্ভব: বিশ্বব্যাংক

» বাউফলে যুবলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

» বিএনপি নয় বরং আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের বিএনপিতে আসার অবস্থা তৈরি হয়েছে

» যারা অন্তঃকলহ করবে, অপকর্ম করবে, দুর্নীতি করবে- তাদের এ দলে স্থান হবে না’-ওবায়দুল কাদের

» নিজেকে বলিভিয়ার ‘অন্তর্বর্তী প্রেসিডেন্ট’ ঘোষণা হিনাইন আনেসের

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯ খ্রিষ্টাব্দ, ২৯শে কার্তিক, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

সরকার দেশের গ্রামীণ অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে কাজ করছে-প্রধানমন্ত্রী

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার করে আধুনিক সমবায় গড়ে তোলা হবে।‘সরকার দেশের গ্রামীণ অর্থনীতিকে শক্তিশালী করতে কাজ করছে।’সমবায়ের মাধ্যমে বিপণন ব্যবস্থা গড়ে তুললে মানুষ লাভবান হবে বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।শনিবার (২ নভেম্বর) বিকেলে আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ৪৮তম জাতীয় সমবায় পুরষ্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে একথা বলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। এসময় তিনি সমবায় ব্যাংক ও সমবায় আইনকে যুগপোযোগী করার ও তাগিদ দেন।অনুষ্ঠানে জাতীয় সমবায় পুরস্কার অর্জনকারীদের হাতে পদক তুলে দেন প্রধানমন্ত্রী। শুরুতে মেলা পরিদর্শন করেন তিনি।
এ বছরের সমবায় দিবসের প্রতিপাদ্য ‘বঙ্গবন্ধুর দর্শন, সমবায়ে উন্নয়ন’।সমবায়ের ভিত্তিতে উৎপাদন ও পণ্য বাজারজাতকরণের ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সমবায়ের ভিত্তিতে বিশেষ করে বাজারজাত করা, অর্থাৎ উৎপাদিত পণ্যটা আমি যথাযথভাবে যদি বাজারজাত করতে না পারি, পণ্য উৎপাদনে মানুষ আগ্রহ হারাবে।

সমবায়ের মাধ্যমে বিপণন ব্যবস্থা শক্তিশালী করতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দিয়ে তিনি বলেন, একটা পরিবার কিছু উৎপাদন করলে সেটা বাজারে নিয়ে যাওয়া যথেষ্ট কষ্টকর। সমবায়ের মাধ্যমে যদি বিপণন ব্যবস্থাটা আমরা করে দিতে পারি তাহলে প্রতিটি পরিবারই লাভবান হবে।

সমবায়ের মাধ্যমে অনলাইনে কেনাবেচা কার্যক্রম চালুর কথা উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, সমবায় অধিদপ্তরের সদর কার্যালয় থেকে উপজেলা পর্যন্ত সব কার্যালয়কে আইসিটি নেটওয়ার্কের আওতায় আনা হয়েছে। সমবায়ের মাধ্যমে অনলাইনে কেনা বেচার ব্যবস্থা করা হয়েছে।

সমবায়কে গুরুত্ব দিয়ে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরে টানা তিনবারের সরকারপ্রধান বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধুর নির্দেশনা মেনে আমরা সমবায়কে গুরুত্ব দিচ্ছি, যেন অধিক মানুষ লাভবান হতে পারে।সমবায় আইনকে যুগোপযোগী করা এবং সমবায় ব্যাংককে লাভজনক করতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আমাদের বিদ্যমান সমবায় আইনকে যুগোপোযোগী করতে হবে। সমবায় ব্যাংক যেটা আছে, সেটা অনেকটা মুখ থুবড়ে পড়েছিল। এই ব্যাংক আইনটাকে যুগোপযোগী করে এটাকে লাভবানজনক প্রতিষ্ঠান হিসেবে চালু করার জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে হবে।

অধিক সুফল পেতে প্রশিক্ষণের ওপর গুরুত্বারোপ করে শেখ হাসিনা বলেন, এক্ষেত্রে সমবায়ের কাজে যারা দক্ষ তাদের প্রশিক্ষণ দিতে হবে। সৎভাবে যেন কাজ করেন আমাদের সেভাবে গুরুত্ব দিতে হবে।

প্রতিটি জমিকে উৎপাদনে কাজে লাগানোর আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, দেখা যায় যে কোনো জমি চাষ হয় না, অথবা অনেক সময় দেখা যায় পুকুর হেজে-মজে গেছে, চাষ হয় না, খানাখন্দ পড়ে থাকে। সবটুকুকে কাজে লাগালে- সেদিকে লক্ষ্য রেখে প্রতিটি বাড়ি যেন নিজেরা কিছু উপার্জন করতে পারে।

তিনি বলেন, আমাদের দেশের মাটি উর্বর, জমি উর্বর, আমাদের মানুষ যথেষ্ট কাজের, তাদের একটু কাজে লাগাতে পারলেই সুফল নিয়ে আসা সম্ভব।বাংলাদেশে একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না, সে লক্ষ্যে সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, সারা বাংলাদেশে আমরা তথ্য নিচ্ছি, একটি মানুষও যেন গৃহহারা না থাকে। তাদের জন্য ঘর করে দেওয়া। সে লক্ষ্য সামনে রেখে আমরা প্রথমে নাম দিয়েছিলাম একটি বাড়ি একটি খামার, পরে আমি নাম দিয়েছিলাম আমার বাড়ি আমার খামার।
তিনি বলেন, আমাদের লক্ষ্য একটি মানুষও গৃহহারা থাকবে না। সে লক্ষ্য নিয়ে জাতির পিতা গুচ্ছগ্রাম প্রকল্প হাতে নিয়েছিলেন। আমরা সেখানে আশ্রায়ন প্রকল্প হাতে নিয়েছি।সরকারের নেওয়া বিভিন্ন পদক্ষেপে গ্রামীণ মানুষের জীবনমান উন্নয়নের কথা উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, বিদ্যুৎ এবং রাস্তাঘাট, নৌ, রেল, সড়কপথ চালু করা, উন্নত করা এবং বিদ্যুৎ সুবিধা দেওয়া, এর ফলে গ্রাম পর্যায় পর্যন্ত অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বাড়ছে, মানুষের জীবন মান উন্নত হচ্ছে। অনুষ্ঠান মঞ্চে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় প্রতিমন্ত্রী স্বপন ভট্টাচার্য্য, এ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি খন্দকার মোশাররফ হোসেন, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব কামাল উদ্দিন তালুকদার, সমবায় অধিদপ্তরের নিবন্ধক ও মহাপরিচালক মো. আমিনুল ইসলাম, বাংলাদেশ জাতীয় সমবায় ইউনিয়নের সভাপতি শেখ নাদির হোসেন লিপু।
ঢাকা,শনিবার, ০২ নভেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com