X

১২ ডিসেম্বর ২০১৭ ২১:৫৪:০২ | ২৮ অগ্রায়ণ ১৪২৪ মঙ্গলবার | ২৩ রবিউল আউয়াল ১৪৩৯
জেএসসি ও জেডিসি পরীক্ষার ফল আগামী ৩০ ডিসেম্বর প্রকাশিত হবে brak পবিত্র জেরুজালেমকে রক্ষায় বাংলাদেশের জনগণকে জেগে ওঠারও আহ্বান.এরশাদ brak আমরাও উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তাল মিলিয়ে ৯৯৯ সেবাটি চালু করেছি-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী brak রাজনৈতিক অস্তিত্বের স্বার্থেই বিএনপিকে নির্বাচনে আসা অত্যন্ত জরুরি-ওবায়দুল কাদের brak জরুরী পুলিশ, দমকল ও অ্যাম্বুলেন্স সেবা পেতে ৯৯৯ উদ্বোধন করলেন সজীব ওয়াজেদ জয় brak ওআইসির বিশেষ অধিবেশনে যোগ দিতে তুরস্কের ইস্তাম্বুলে পৌঁছেছেন রাষ্ট্রপতি brak

প্রচ্ছদ  »   এক্সক্লুসিভ

কুড়ানো মাছের বৈকালিন হাট কুয়াকাটায়

কুড়ানো মাছের বৈকালিন হাট কুয়াকাটায়

মহাসড়কের মহিপুর শেখ রাসেল সেতুর নিচে কুড়ানো মাছের বৈকালিন হাট বসেছে। সাগর থেকে মৎস্য আড়ৎ ঘাটে মাছ বোঝাই করে ট্রলার আসলেই ছোট ছোট শিশু সন্তানদেন অর্ধশত অভাবী মায়েদের মাছ কুড়ানো জন্য হুরাহুরি পরে যায়।


উপজেলার মৎস্যবন্দর আলীপুর ও মহিপুরের আড়ৎ ঘাটে এ অবস্থা চলে প্রতিদিন সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত। কুড়ানো ওই মাছ প্রতিদিন শেখ রাসেল সেতুর নিচে বৈকালিন বাজারে বিক্রি করছে। ক্রেতারাও অপেক্ষায় থাকেন কখন ওই বাজারে মাছ আসবে। অনেকটা সস্তায় পায় বলে স্বল্প আয়ের মানুষরা এ মাছ ক্রয় করতে বৈকালিন এ মাছের ভীড় জমায়।স্বামীহারা আয়শা বেগম ছোট একটি সন্তান কোলে নিয়ে অসহায়ের মত সাগর থেকে মাছ বোঝায় করে ট্রলার আসার পরপরই আড়ৎ ঘাটে গিয়ে জেলেদের কাছে মাছ ভিক্ষা চায়। এসময় জেলেদের কাছে কাকুতি করে
বলেন,“বাবারে ভাইরে একটা মাছ দ্যান। স্বামী গ্যাঙ্গে মাছ ধরতে গিয়া মারা গেছে। পোলাপাইন লইয়্যা কি খামু”। কথা হয় কুড়ানো মাছে জীবন জীবিকায় যুক্ত মনোয়ারা, খাদিজা ও মমতাজের সাথে। তারা প্রত্যেকে বলেন, সাগরে মাছ ধরতে গিয়া স্বামী মারা গেছে। সংসার চলে ভিক্ষায় পাওয়া মাছ বিক্রি করে।
মধ্যম বয়সী সাজেদা জানায়, স্বামী সাগরে মাছ ধরতে গিয়া তিন বছর আগে মারা গেছে। ছেলে মামুন ও প্রত্যেক দিন মাছ কুড়ায়। ওই মাছ বিক্রি করে দেড়-দ্ধুসঢ়;ই’শ টাকায় চাল ডাল কিনে বাড়ি ফিরে। এ আয় দিয়ে দুই সন্তানের লেখপাড়া ছাড়াও সাত জনের সংসার চালায়।


উপজেলা ট্রলার মাঝি সমবায় সমিতির সভাপতি জেলে নুরু মাঝি বলেন, ওরা আমাদেরই সন্তান। ওইসব মা ও শিশুদের কেউ না কেউ সমুদ্রে মাছ ধরতে গিয়ে নিখোঁজ বা মারা গেছে। সহায়তা করার জন্য সকল জেলেদের অনুরোধ তিনি জানান। উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা মো.কামরুল ইসলাম জানান, সাগরে নিখোঁজ ও নিহত জেলেদের পরিবারকে সরকার সহায়তা করে থাকে। ইতোমধ্যে এ উপজেলার পাঁচ জেলে পরিবারকে ৫০ হাজার টাকা করে চেক প্রদান করা হয়েছে বলে তিনি জানিয়েছেন।


উত্তম কুমার হাওলাদার,কলাপাড়া (পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,
পটুয়াখালী,শুক্রবার, ২০ জানুয়ারি, এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

User Comments

  • এক্সক্লুসিভ