X

১৯ ফেব্রুয়ারী ২০১৮ ২৩:২৪:১৪ | ৭ ফাল্গুন ১৪২৪ সোমবার | ২০ জমা: সানি ১৪৩৯
জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট মামলার রায়ের সত্যায়িত কপি পেলেন খালেদা জিয়ার আইনজীবীরা brak আশি দশকের জনপ্রিয় পপ গায়িকা সাবাতানি আর নেই brak জঙ্গিবাদের সঙ্গে জড়িতদের বাংলার মাটিতে কোন স্থান হবে না-প্রধানমন্ত্রী brak নির্বাচনে বেগম খালেদা জিয়া অংশ নিতে পারবেন কি-না, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত আদালতের brak গণতান্ত্রিক ও শান্তিপূর্ণ আন্দোলনের মাধ্যমে বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্ত করে আনব brak বাংলা‌দেশ শিশু একা‌ডে‌মি অগ্রনী ব্যাংক সা‌হিত্য পুরস্কারে ভূষিত হলেন ডিসি মোশতাক brak অমর ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা ও শহীদ দিবসে কোনো ধরনের নিরাপত্তা হুমকি নেই-ডিএমপি কমিশনার brak

প্রচ্ছদ  »   শিক্ষা

কলাপাড়ায় শিক্ষার্থী লাঞ্চিত হওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

কলাপাড়ায় শিক্ষার্থী লাঞ্চিত হওয়ার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা

পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় দশম শ্রেণির শিক্ষার্থী ফাতিমা আক্তার (১৪) কে বখাটে চক্রের মারধর করার প্রতিবাদে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। রবিবার বেলা ১১
টায় উপজেলার ধানখালী এসএইচ এন্ড আশ্রাব একাডেমির সামনে লোন্দা- ধানখালী বাজার সড়কের এ কর্মসূচি পালিত হয়। প্রায় ঘন্টাব্যাপী মানববন্ধনে শিক্ষক-শিক্ষিকাসহ ছাত্র-ছাত্রীসহ এলাকার বাসিন্দারা অংশগ্রহন করেন।
এ ঘটনায় ফাতিমা আক্তারের বাবা মো. আলমগীর তালুকদার বাদি হয়ে শনিবার বিকেলে কলাপাড়া থানায় একটি মামলা দায়ের করেন। এতে রাহাত খান ও হাদী দেওয়ানকে আসামী করা হয়েছে। মানববন্ধন শেষে প্রতিবাদ সভায় বক্তব্য রাখেন, ধানখালী এসএইচ এন্ড
আশ্রাব একাডেমির সহকারী শিক্ষক মো.এরশাদুল আলম, মো.ফেরদাউস মিয়া, রিপন সরদার, এলাকার বাসিন্দা গাজী রাইসুল ইসলাম, দশম শ্রেনির শিক্ষার্থী ছবি আক্তার প্রমুখ। বক্তারা সকলেই দোষীদের দ্রুত গ্রেপ্তার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবী জানান।
উল্লেখ্য, শনিবার সকাল ৯ টার সময় নিজ বাড়ি থেকে বিদ্যালয়ে যাওয়ার পথে পূর্বলোন্দা সড়কে ফাতিমা আক্তারের সাথে এলাকার চিহ্নিত সন্ত্রাসী ও বখাটে রাহাত খান ফাতিমার পথরোধ করে প্রথমে অশোভন আচরণ করে। ফাতিমা এর প্রতিবাদ করলে রাহাত লাঠি দিয়ে মারধর করে। বখাটে চক্রের মারধরে ফাতিমা সড়কের ওপর পড়ে অজ্ঞান হয়ে যায়। এ সময় শিক্ষার্থী সুমনা আক্তার ও জহিরুল ইসলাম ফাতিমাকে বাঁচাতে এগিয়ে গেলে রাহাতের সহযোগী হাদী দেওয়ান, তাইজুল ইসলাম, আবদুল মালেক ও সাইফুল ইসলাম এ
দু’জনকে মেরে তাড়িয়ে দেয়। কলাপাড়া থানার উপ-পরিদর্শক ও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা মো.নুরুজ্জামান সাংবাদিকদের জানান, ‘আসামীদের ধরার জন্য আমরা বাড়িতে হানা দিয়েছিলাম। ঘরে তালা দিয়ে আসামীরাসহ ওদের বাবা-মা পর্যন্ত পালিয়েছে। তবে যেভাবেই হোক আমরা দ্রুত এ মামলার আসামীকে গ্রেপ্তার করতে পারবো।’

উত্তম কুমার হাওলাদার কলাপাড়া (পটুয়াখালী)প্রতিনিধি
পটুয়াখালী,রোববার,২৪ সেপ্টম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

User Comments

  • শিক্ষা