ট্রাফিক ও পুলিশের সঙ্গে গাড়ির কাগজপত্র চেক করেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

ট্রাফিক সপ্তাহ উপলক্ষে পঞ্চম দিনের মতো রাজধানী জুড়ে যানবাহনের কাগজপত্র পরীক্ষা করছে পুলিশ। এদিকে, ট্রাফিক ও পুলিশের সঙ্গে গাড়ির কাগজপত্র চেক করতে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নিজেই নেমেছেন রাস্তায়।আজ বৃহস্পতিবার কেরানীগঞ্জের ইকুরিয়া বিআরটিএ কার্যালয় পরিদর্শন করেন। এ সময় নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে আসায় ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরি হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
বিএনপি জনগণের মনের ভাষা পড়তে পারেনি বলেই তারা ১০ বছর ধরে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার বাইরে বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।
সারা দেশে চলমান ট্রাফিক সপ্তাহের কার্যক্রম দেখতে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলিস্তান এলাকা পরিদর্শন করেন। বিভিন্ন গাড়ির চালকদের কাছে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আছে কি না, তা দেখেন।
এ সময় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট করপোরেশনের (বিআরটিসি) একটি বাসের বিরুদ্ধে মামলা করার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন কাদের। এ সময় সাংবাদিকদের কাছে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ফলে সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে জনসচেতনতা বেড়েছে এবং তাদেরও কাজ করতে সুবিধা হচ্ছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মাঝেমধ্যে এ ধরনের চাপ না এলে আমাদের সচেতনতা বাড়ে না। এই চাপটার বড় প্রয়োজন ছিল।’একের পর এক গাড়ির লাইসেন্স ও কাগজপত্র যাচাই করছেন। তাকে ঘিরে উৎসুক মানুষের ভিড়। খবর পেয়ে ছুটে যান সংবাদমাধ্যমকর্মীরাও। ওবায়দুল কাদের প্রথমে একটি বাস থামান।
এরপর সময় টেলিভিশনের একটি গাড়ি থামান তিনি। অবশ্য গাড়ির কাগজপত্র ঠিক থাকায় এটিও ছেড়ে দেন মন্ত্রী। এরই ধারাবাহিকতায় মন্ত্রী আরও কয়েকটি ইলেকট্রনিক মিডিয়ার গাড়ির কাগজ যাচাই করেন।
এ সময় মন্ত্রী তার সঙ্গে থাকা ট্রাফিক বিভাগের লোকদের নির্দেশ দেন যাতে গতিসম্পন্ন সড়কে ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা না চলে। ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা চলাচল করে কিনা, স্থানীয়দের কাছে জানতেও চান তিনি।ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, তাদের গন্তব্যের যে লক্ষ্যস্থল, সেটাই তারা খুঁজে পাচ্ছে না। তারা এখন দিশেহারা। কাজেই কখন কী যে বলে, কখন কী উদ্বেগ, কখন কী কথা তারা বলে এটা তারাও জানে না, তারাও বোঝে না। আরো পাঁচ বছর ক্ষমতায় থাকতে পারলে বিআরটিএর দুর্নীতি শতভাগ দূর করতে পারবেন বলে আশা করেন মন্ত্রী।
ঢাকা,বৃহস্পতিবার,০৯ আগস্ট,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» রাজনৈতিক কারণে ব্যারিস্টার মইনুলকে ধরা হয়নি।সুনির্দিষ্ট মামলার প্রেক্ষিতে তাঁকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে

» ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরীর মালিকানাধীন ফার্মাসিউটিক্যালস ও গণস্বাস্থ্য হাসপাতালকে ১৫ লাখ টাকা জরিমানা

» ওষুধের এক্সপায়ার ডেট ২০১৩, বিক্রি হচ্ছে ২০১৮ সালেও দুই ফার্মেসিকে এক লাখ টাকা জরিমানা

» দুর্নীতিবাজ ও যুদ্ধাপরাধীদের রাজনীতির মাঠে পুনর্বাসনের জন্যই ড. কামাল হোসেন বিএনপির সঙ্গে ঐক্য গড়েছেন

» ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের ফোনালাপের ফাঁস করা অডিও ক্লিপ আমরা বিশ্বাস করি না

» মোবাইলের আইএমইআই পরিবর্তন করে হত্যা, মুক্তিপণ,অপহরণ অপরাধের সাথে জড়িত চক্রের সদস্য ১৫ আটক

» ব্যারিস্টার মইনুল হোসেনের জামিন আবেদন নামঞ্জুর করে কারাগারে পাঠানোর আদেশ

» আওয়ামী লীগের যৌথসভার পর নির্বাচনকালীন মন্ত্রিসভার বিষয়ে সিদ্ধান্ত

» খালেদা জিয়ার সাজা বৃদ্ধি চেয়ে করা আবেদনের ওপর দুদক এবং রাষ্ট্রপক্ষের শুনানি শেষ আদেশ বুধবার

» যশোরের নওয়াপাড়ায় ট্রাকের সঙ্গে ট্রেনের সংঘর্ষ

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

ট্রাফিক ও পুলিশের সঙ্গে গাড়ির কাগজপত্র চেক করেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

ট্রাফিক সপ্তাহ উপলক্ষে পঞ্চম দিনের মতো রাজধানী জুড়ে যানবাহনের কাগজপত্র পরীক্ষা করছে পুলিশ। এদিকে, ট্রাফিক ও পুলিশের সঙ্গে গাড়ির কাগজপত্র চেক করতে সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের নিজেই নেমেছেন রাস্তায়।আজ বৃহস্পতিবার কেরানীগঞ্জের ইকুরিয়া বিআরটিএ কার্যালয় পরিদর্শন করেন। এ সময় নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে আসায় ব্যাপক জনসচেতনতা তৈরি হয়েছে বলে তিনি মন্তব্য করেন।
বিএনপি জনগণের মনের ভাষা পড়তে পারেনি বলেই তারা ১০ বছর ধরে রাষ্ট্রীয় ক্ষমতার বাইরে বলেও মন্তব্য করেন ওবায়দুল কাদের।
সারা দেশে চলমান ট্রাফিক সপ্তাহের কার্যক্রম দেখতে সড়ক পরিবহনমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলিস্তান এলাকা পরিদর্শন করেন। বিভিন্ন গাড়ির চালকদের কাছে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র আছে কি না, তা দেখেন।
এ সময় বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট করপোরেশনের (বিআরটিসি) একটি বাসের বিরুদ্ধে মামলা করার জন্য পুলিশকে নির্দেশ দেন কাদের। এ সময় সাংবাদিকদের কাছে তিনি বলেন, শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ফলে সড়ক নিরাপত্তা বিষয়ে জনসচেতনতা বেড়েছে এবং তাদেরও কাজ করতে সুবিধা হচ্ছে।
ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘মাঝেমধ্যে এ ধরনের চাপ না এলে আমাদের সচেতনতা বাড়ে না। এই চাপটার বড় প্রয়োজন ছিল।’একের পর এক গাড়ির লাইসেন্স ও কাগজপত্র যাচাই করছেন। তাকে ঘিরে উৎসুক মানুষের ভিড়। খবর পেয়ে ছুটে যান সংবাদমাধ্যমকর্মীরাও। ওবায়দুল কাদের প্রথমে একটি বাস থামান।
এরপর সময় টেলিভিশনের একটি গাড়ি থামান তিনি। অবশ্য গাড়ির কাগজপত্র ঠিক থাকায় এটিও ছেড়ে দেন মন্ত্রী। এরই ধারাবাহিকতায় মন্ত্রী আরও কয়েকটি ইলেকট্রনিক মিডিয়ার গাড়ির কাগজ যাচাই করেন।
এ সময় মন্ত্রী তার সঙ্গে থাকা ট্রাফিক বিভাগের লোকদের নির্দেশ দেন যাতে গতিসম্পন্ন সড়কে ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা না চলে। ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা চলাচল করে কিনা, স্থানীয়দের কাছে জানতেও চান তিনি।ওবায়দুল কাদের আরো বলেন, তাদের গন্তব্যের যে লক্ষ্যস্থল, সেটাই তারা খুঁজে পাচ্ছে না। তারা এখন দিশেহারা। কাজেই কখন কী যে বলে, কখন কী উদ্বেগ, কখন কী কথা তারা বলে এটা তারাও জানে না, তারাও বোঝে না। আরো পাঁচ বছর ক্ষমতায় থাকতে পারলে বিআরটিএর দুর্নীতি শতভাগ দূর করতে পারবেন বলে আশা করেন মন্ত্রী।
ঢাকা,বৃহস্পতিবার,০৯ আগস্ট,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY PopularITLimited