HbNews24.com_দৈনিক হৃদয়ে বাংলাদেশ

নিরাপদ সড়কের জন্য শিক্ষার্থীদের আন্দোলন আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে-প্রধানমন্ত্রী

নিরাপদ সড়কের জন্য শিক্ষার্থীদের আন্দোলন আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। শহীদ রমিজউদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় দায়ীদের বিচার নিশ্চিত করা হবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।রোববার (১২ আগস্ট) রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে পথচারী আন্ডারপাস প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তিনি। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অনুষ্ঠানে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করার ব্যবস্থা নেয়া হবে। শেখ হাসিনা বলেন, ‘ছোট শিশুরা আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। পথচারীরা নিয়ম মেনে রাস্তায় চলাচল করবেন। ড্রাইভাররা নিয়ম মেনে গাড়ি চালাবেন। আমি সেই আশা করি।’ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে তৃতীয়পক্ষ ঢুকে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চেয়েছিল বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘রাস্তায় দাঁড়িয়ে শার্ট পরিবর্তন করছে এবং স্কুল পোশাক পরিধান করে ছাত্র হয়ে যাচ্ছে। এরা কারা..। এদের ব্যাগের ভেতর পাথর, চাপাতি, নানা ধরণের জিনিসপত্র ওই ছদ্মবেশীদের ব্যাগ থেকে বের হচ্ছে। এরা তো আর স্কুলছাত্র হতে পারে না? এই ছাত্র নামধারী যারা ঢুকলো, অনুপ্রবেশকারী তাদের উদ্দেশ্যটা তো খুব খারাপ ছিল। তারা এমন একটা কিছু করতে চাচ্ছিল, কোনো কোনো মহল ফেইসবুক ও সোশ্যাল মিডিয়াতে গুজব ছড়াতে শুরু করলো। কাজেই আমি একটি কথা বলবো গুজবে কেউ কান দিবেন না।’শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘এরপর বললাম, আপনারা আপনাদের সন্তানদের ফিরিয়ে নেন। এরপর চলে গেল। সবাইকে ধন্যবাদ জানাই, তারা ঘরে ফিরে গেছে। আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি তাদের।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যতদিন আমাদের শিশুরা রাস্তায় ছিল। অনেকে আইন-কানুন মেনেছে। আমাদের মন্ত্রীদেরও গাড়ি থেকে নামতে বলেছে, তখন ফোন এসেছিল- কী করবো। বলেছি ওরা যা বলে শোনেন। কিন্তু এখন আবার দেখি পাশে ফুটওভার ব্রিজ থাকলেও রাস্তায় নেমে হাত দেখিয়ে দেখিয়ে পারাপার হয়। যততত্র গাড়ি থামিয়ে ওঠেন যাত্রীরা। এটা মোটেই ঠিক নয়। পথচারীদের আন্ডারপাস ও ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।
আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ অফিস আক্রমণ করছে। নেতাকর্মীরা বলল, তারা টিকতে পারছে না। তারা বোঝাতে গেল, তারা বুঝে না। কিন্তু দেখা গেল এরা কারা? এরা তো ছাত্র না। পরে দর্জির দোকানে খোঁজ নিয়ে জানা গেল, প্রচুর স্কুল ড্রেস তৈরি হচ্ছে, আইডি কার্ড বিক্রি হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘আমি সবাইকে ধৈর্য ধরতে বলেছি। কোনো কোনো মহল গুজব ছড়াচ্ছে, আওয়ামী লীগ অফিস লাশ আছে। ২৫ জনকে নিয়ে দেখানো হলো, তোমরা দেখো তো কোথায় আছে।’সরকারপ্রধান বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ আমিই করে দিয়েছি। সকলের হাতে মোবাইল ফোন। একসঙ্গে ফেসবুক করা যায়, ইন্টারনেট করা যায়, সবই করা যায়
রমিজ উদ্দিন কলেজের নিহত দুই শিক্ষার্থীর পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া প্রসঙ্গ শেখ হাসিনা বলেন, ‘যে বাবা-মায়েরা সন্তান হারিয়েছে তাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া যায় না। আমি জানি, আমার বাবা-মা হারিয়েছি।’ কিছুদিন আগে নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে ২০ লাখ করে অনুদান দেন তিনি।
এরপর কলেজের সামনে আন্ডারপাস নির্মাণকাজের উদ্বোধন ঘোষণা করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আমাদের সেনাবাহিনী, বিশেষ করে কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড তাদের যে কাজ দিয়েছি, তারা সুন্দর করে দেন। তারা এই প্রকল্পটা তাড়াতাড়ি করে দেবেন, আশা করি। প্রকল্প কাজের শুভ উদ্বোধন আমি ঘোষণা করছি।’
ঢাকা, রোববার,১২ আগস্ট,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» আজ সোমবার মধ্যরাত থেকে চালু হচ্ছে মোবাইল ফোনের নতুন কলরেট

» চার মন্ত্রীর স্বাক্ষর জাল করে অবৈধ সুযোগ আদায়ের অভিযোগে তিন ব্যক্তি গ্রেফতার

» আইন কীভাবে মানতে হয় সামনের দিনগুলোতে দেখিয়ে দেবে দুদক

» দৈনিক সমকাল পত্রিকার সম্পাদক গোলাম সারওয়ার ইন্তেকাল করেছেন

» রংপুরে বাসচাপায় স্কুলছাত্র জিয়ন মণ্ডলের নিহতের ঘটনায় ক্লাস বর্জন, বিক্ষোভ

» দাওরায়ে হাদিসের সনদ মাস্টার্স ডিগ্রি সমমান প্রদান আইন-২০১৮ এর খসড়া অনুমোদন

» তারেক মাসুদ ও সাংবাদিক মিশুক মুনীরের সপ্তম মৃত্যুবা‌র্ষিকী আজ

» মানবতাবিরোধী অপরাধে পটুয়াখালীর ইসহাক সিকদারসহ ৫ জনের মৃত্যুদণ্ডাদেশ

» সুনির্দিষ্ট তথ্য ছাড়া দেশের কোথাও পশুবাহী ট্রাক আটকানো যাবে না : আইজিপি

» নড়াইলে মানহানির মামলায় বেগম খালেদা জিয়াকে ৬ মাসের জামিন দিয়েছেন হাইকোর্ট

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

নিরাপদ সড়কের জন্য শিক্ষার্থীদের আন্দোলন আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে-প্রধানমন্ত্রী

নিরাপদ সড়কের জন্য শিক্ষার্থীদের আন্দোলন আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। শহীদ রমিজউদ্দিন স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী নিহতের ঘটনায় দায়ীদের বিচার নিশ্চিত করা হবে বলেও জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।রোববার (১২ আগস্ট) রাজধানীর বিমানবন্দর সড়কে পথচারী আন্ডারপাস প্রকল্পের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তিনি। এ সময় প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘অনুষ্ঠানে সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সামনে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করার ব্যবস্থা নেয়া হবে। শেখ হাসিনা বলেন, ‘ছোট শিশুরা আমাদের চোখ খুলে দিয়েছে। পথচারীরা নিয়ম মেনে রাস্তায় চলাচল করবেন। ড্রাইভাররা নিয়ম মেনে গাড়ি চালাবেন। আমি সেই আশা করি।’ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে তৃতীয়পক্ষ ঢুকে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে চেয়েছিল বলেও উল্লেখ করেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি বলেন, ‘রাস্তায় দাঁড়িয়ে শার্ট পরিবর্তন করছে এবং স্কুল পোশাক পরিধান করে ছাত্র হয়ে যাচ্ছে। এরা কারা..। এদের ব্যাগের ভেতর পাথর, চাপাতি, নানা ধরণের জিনিসপত্র ওই ছদ্মবেশীদের ব্যাগ থেকে বের হচ্ছে। এরা তো আর স্কুলছাত্র হতে পারে না? এই ছাত্র নামধারী যারা ঢুকলো, অনুপ্রবেশকারী তাদের উদ্দেশ্যটা তো খুব খারাপ ছিল। তারা এমন একটা কিছু করতে চাচ্ছিল, কোনো কোনো মহল ফেইসবুক ও সোশ্যাল মিডিয়াতে গুজব ছড়াতে শুরু করলো। কাজেই আমি একটি কথা বলবো গুজবে কেউ কান দিবেন না।’শেখ হাসিনা আরো বলেন, ‘এরপর বললাম, আপনারা আপনাদের সন্তানদের ফিরিয়ে নেন। এরপর চলে গেল। সবাইকে ধন্যবাদ জানাই, তারা ঘরে ফিরে গেছে। আন্তরিক ধন্যবাদ জানাচ্ছি তাদের।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘যতদিন আমাদের শিশুরা রাস্তায় ছিল। অনেকে আইন-কানুন মেনেছে। আমাদের মন্ত্রীদেরও গাড়ি থেকে নামতে বলেছে, তখন ফোন এসেছিল- কী করবো। বলেছি ওরা যা বলে শোনেন। কিন্তু এখন আবার দেখি পাশে ফুটওভার ব্রিজ থাকলেও রাস্তায় নেমে হাত দেখিয়ে দেখিয়ে পারাপার হয়। যততত্র গাড়ি থামিয়ে ওঠেন যাত্রীরা। এটা মোটেই ঠিক নয়। পথচারীদের আন্ডারপাস ও ফুটওভার ব্রিজ ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে।
আওয়ামী লীগ সভাপতি বলেন, ‘আওয়ামী লীগ অফিস আক্রমণ করছে। নেতাকর্মীরা বলল, তারা টিকতে পারছে না। তারা বোঝাতে গেল, তারা বুঝে না। কিন্তু দেখা গেল এরা কারা? এরা তো ছাত্র না। পরে দর্জির দোকানে খোঁজ নিয়ে জানা গেল, প্রচুর স্কুল ড্রেস তৈরি হচ্ছে, আইডি কার্ড বিক্রি হচ্ছে।’ তিনি বলেন, ‘আমি সবাইকে ধৈর্য ধরতে বলেছি। কোনো কোনো মহল গুজব ছড়াচ্ছে, আওয়ামী লীগ অফিস লাশ আছে। ২৫ জনকে নিয়ে দেখানো হলো, তোমরা দেখো তো কোথায় আছে।’সরকারপ্রধান বলেন, ‘ডিজিটাল বাংলাদেশ আমিই করে দিয়েছি। সকলের হাতে মোবাইল ফোন। একসঙ্গে ফেসবুক করা যায়, ইন্টারনেট করা যায়, সবই করা যায়
রমিজ উদ্দিন কলেজের নিহত দুই শিক্ষার্থীর পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দেওয়া প্রসঙ্গ শেখ হাসিনা বলেন, ‘যে বাবা-মায়েরা সন্তান হারিয়েছে তাদের ক্ষতিপূরণ দেওয়া যায় না। আমি জানি, আমার বাবা-মা হারিয়েছি।’ কিছুদিন আগে নিহতদের প্রত্যেক পরিবারকে ২০ লাখ করে অনুদান দেন তিনি।
এরপর কলেজের সামনে আন্ডারপাস নির্মাণকাজের উদ্বোধন ঘোষণা করেন শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, ‘আমাদের সেনাবাহিনী, বিশেষ করে কনস্ট্রাকশন ব্রিগেড তাদের যে কাজ দিয়েছি, তারা সুন্দর করে দেন। তারা এই প্রকল্পটা তাড়াতাড়ি করে দেবেন, আশা করি। প্রকল্প কাজের শুভ উদ্বোধন আমি ঘোষণা করছি।’
ঢাকা, রোববার,১২ আগস্ট,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY Abir bbm