করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
২৩১৬ ৪,৭১,৭৩৯ ৩,৮৮,৩৭৯ ৬৭৪৮

২০১৮ সালের মধ্যেই ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় দৃশ্যমান পরিবর্তন আসবে-ডিএমপি কমিশনার

২০১৮ সালের মধ্যেই রাজধানীর ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় দৃশ্যমান পরিবর্তন আসবে বলে প্রত্যাশা করছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।
রোববার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর কারওয়ানবাজারে ট্রাফিক সচেতনতা মাস কার্যক্রমের পরিদর্শন শেষে তিনি একথা জানান।মাসব্যাপী ট্রাফিক কার্যক্রমের মাধ্যমে সড়কে কাঙ্ক্ষিত শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা ফিরে না আসলেও, জনগণকে ট্রাফিক সচেতনতার কাজ অব্যাহত আছে বলে জানান তিনি।আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘নগরবাসী আইন না মানলে শুধু পুলিশ নয়, সরকারের কোনো বাহিনীর পক্ষেই ট্রাফিক ব্যবস্থার উন্নয়ন সম্ভব নয়।’
তিনি বলেন, ‘সড়কের যে শৃঙ্খলা এবং নিরাপত্তা আমরা কতটুকু ফিরিয়ে আনতে পেরেছি সেটা নিয়ে বিতর্ক থাকতে পারে। কিন্তু আমাদের আন্তরিকতা, প্রচেষ্টার যে ঘাটতি ছিল না নির্দ্বিধায় এটা বলতে পারি।’
তিনি আরো বলেন, ‘ঢাকা শহরে কোনো বাসস্ট্যান্ডের কোনো চিহ্ন ছিল না। কিন্তু ১৩০টার মতো বাসস্ট্যান্ড তৈরি করেছি। হেলমেট বিহীনভাবে যাতে মোটরসাইকেল চালাতে না পারে সে ব্যবস্থা নিয়েছি। যা অনেকটা সফল হয়েছে। জনগণ এটার প্রশংসা করেছে।’ডিএমপি কমিশনার বলেন, গত দুই মাসব্যাপী ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপে আমরা কাঙ্খিত পর্যায়ে যেতে পারিনি। তবে ধারাবাহিক এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। সকলকেই আইন মানতে হবে, না মানলে তাদের বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করা হবে।
শত বছরের অভ্যাস দুই-এক মাসেই পরিবর্তন হয়ে যাবে, আমরা সেটা প্রত্যাশাও করি না। তবে সব প্রক্রিয়ায় ২০১৮ সালের মধ্যেই ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় দৃশ্যমান পরিবর্তন আসবে।তিনি বলেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের একপর্যায়ে আমরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেই। ঈদের আগে ১০ দিনব্যাপী ট্রাফিক সপ্তাহ এবং ঈদের পর সেপ্টেম্বর মাসজুড়ে ট্রাফিক সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছি। আমাদের কার্যক্রমে স্কাউট, গার্লসগাইড, বিএনসিসি, রেড ক্রিসেন্টসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সহায়তা করছে। এছাড়া, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ), সিটি করপোরেশন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সবাই মিলে একসঙ্গে কাজ করছি।
গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপে কতটা অগ্রগতি হয়েছে সেটা নিয়ে বিতর্ক থাকতে পারে, কিন্তু আমাদের আন্তরিকতা বা প্রচেষ্টার ঘাটতি ছিলো না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
আমাদের মধ্যে আইন না মানার প্রবণতাই সবচেয়ে বড় সমস্যা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, পথচারীদের জোর করে ফুটওভারব্রিজে উঠতে বাধ্য করতে হয়। ইতোমধ্যে আমরা চালকদের সঙ্গেও বহু মিটিং করেছি। এ ক্ষেত্রে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও ব্যাপক নয়। আমরা প্রত্যাশা করবো, সমাজের সব দায়িত্বশীলরা আইন মানবেন। সবাই আইন মানার সংস্কৃতি চালু করুন, নিজে আইন মানুন ও অন্যকে আইন মানতে উদ্ভুদ্ধ করুন।
ঢাকা,রোববার,৩০ সেপ্টম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» দেশে ভাস্কর্য নিয়ে অহেতুক একটি বিতর্ক সৃষ্টির অপচেষ্টা চালানো হচ্ছে

» অস্ত্র ও মাদকদ্রব্যের তিন মামলায় গোল্ডেন মনিরের নয় দিনের রিমান্ড

» আন্দোলনে ব্যর্থ বিএনপি এখন অন্যের উপর নির্ভর করে ক্ষমতায় যেতে অন্ধকারের চোরাগলি খুঁজছে

» নতুন করে আরও ২৩১৬ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত,মৃত্যু ৩৫ জন

» বিএনপির অর্ধ শতাধিক নেতাকর্মীকে হাইকোর্টের দেয়া জামিন বহাল রেখেছে আপিল বিভাগ

» বুকের রক্ত দিয়ে হলেও জাতির পিতার ভাস্কর্য যথাসময়ে যথাস্থানে স্থাপন হবেই

» বরিশালের মেহেন্দিগঞ্জে মা ও শিশুর মরদেহ উদ্ধার

» সিলেটের এমসি কলেজে গণধর্ষণ: ৮ আসামির বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র

» রাজধানীতে অনুমতি ব্যতীত সভা, সমাবেশ, গণজমায়েত নিষিদ্ধ

» ফরচুন বরিশালকে ৭ উইকেটে হারিয়ে নিজেদের প্রথম জয় তুলে নিয়েছে বেক্সিমকো ঢাকা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com




আজ শুক্রবার, ৪ ডিসেম্বর ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, ১৯শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

২০১৮ সালের মধ্যেই ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় দৃশ্যমান পরিবর্তন আসবে-ডিএমপি কমিশনার

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

২০১৮ সালের মধ্যেই রাজধানীর ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় দৃশ্যমান পরিবর্তন আসবে বলে প্রত্যাশা করছেন ঢাকা মহানগর পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া।
রোববার (৩০ সেপ্টেম্বর) রাজধানীর কারওয়ানবাজারে ট্রাফিক সচেতনতা মাস কার্যক্রমের পরিদর্শন শেষে তিনি একথা জানান।মাসব্যাপী ট্রাফিক কার্যক্রমের মাধ্যমে সড়কে কাঙ্ক্ষিত শৃঙ্খলা ও নিরাপত্তা ফিরে না আসলেও, জনগণকে ট্রাফিক সচেতনতার কাজ অব্যাহত আছে বলে জানান তিনি।আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, ‘নগরবাসী আইন না মানলে শুধু পুলিশ নয়, সরকারের কোনো বাহিনীর পক্ষেই ট্রাফিক ব্যবস্থার উন্নয়ন সম্ভব নয়।’
তিনি বলেন, ‘সড়কের যে শৃঙ্খলা এবং নিরাপত্তা আমরা কতটুকু ফিরিয়ে আনতে পেরেছি সেটা নিয়ে বিতর্ক থাকতে পারে। কিন্তু আমাদের আন্তরিকতা, প্রচেষ্টার যে ঘাটতি ছিল না নির্দ্বিধায় এটা বলতে পারি।’
তিনি আরো বলেন, ‘ঢাকা শহরে কোনো বাসস্ট্যান্ডের কোনো চিহ্ন ছিল না। কিন্তু ১৩০টার মতো বাসস্ট্যান্ড তৈরি করেছি। হেলমেট বিহীনভাবে যাতে মোটরসাইকেল চালাতে না পারে সে ব্যবস্থা নিয়েছি। যা অনেকটা সফল হয়েছে। জনগণ এটার প্রশংসা করেছে।’ডিএমপি কমিশনার বলেন, গত দুই মাসব্যাপী ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপে আমরা কাঙ্খিত পর্যায়ে যেতে পারিনি। তবে ধারাবাহিক এ প্রক্রিয়া অব্যাহত থাকবে। সকলকেই আইন মানতে হবে, না মানলে তাদের বিরুদ্ধে আইন প্রয়োগ করা হবে।
শত বছরের অভ্যাস দুই-এক মাসেই পরিবর্তন হয়ে যাবে, আমরা সেটা প্রত্যাশাও করি না। তবে সব প্রক্রিয়ায় ২০১৮ সালের মধ্যেই ট্রাফিক ব্যবস্থাপনায় দৃশ্যমান পরিবর্তন আসবে।তিনি বলেন, নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের একপর্যায়ে আমরা প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে বিভিন্ন পদক্ষেপ নেই। ঈদের আগে ১০ দিনব্যাপী ট্রাফিক সপ্তাহ এবং ঈদের পর সেপ্টেম্বর মাসজুড়ে ট্রাফিক সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করছি। আমাদের কার্যক্রমে স্কাউট, গার্লসগাইড, বিএনসিসি, রেড ক্রিসেন্টসহ বিভিন্ন স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন সহায়তা করছে। এছাড়া, বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ), সিটি করপোরেশন, প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় সবাই মিলে একসঙ্গে কাজ করছি।
গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপে কতটা অগ্রগতি হয়েছে সেটা নিয়ে বিতর্ক থাকতে পারে, কিন্তু আমাদের আন্তরিকতা বা প্রচেষ্টার ঘাটতি ছিলো না বলেও মন্তব্য করেন তিনি।
আমাদের মধ্যে আইন না মানার প্রবণতাই সবচেয়ে বড় সমস্যা উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, পথচারীদের জোর করে ফুটওভারব্রিজে উঠতে বাধ্য করতে হয়। ইতোমধ্যে আমরা চালকদের সঙ্গেও বহু মিটিং করেছি। এ ক্ষেত্রে পরিস্থিতির কিছুটা উন্নতি হলেও ব্যাপক নয়। আমরা প্রত্যাশা করবো, সমাজের সব দায়িত্বশীলরা আইন মানবেন। সবাই আইন মানার সংস্কৃতি চালু করুন, নিজে আইন মানুন ও অন্যকে আইন মানতে উদ্ভুদ্ধ করুন।
ঢাকা,রোববার,৩০ সেপ্টম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com

Translate »