সাগরের তলদেশ দিয়ে ১৬ কিলোমিটার দূরে বিদ্যুৎ-ইন্টারনেট পেলো সন্দ্বীপবাসী

বিদ্যুৎ উৎপাদনের মাধ্যমে দেশের প্রতিটি ঘরে আলো পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।বুধবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে গণভবনে, ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে ৬টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র, জাতীয় গ্রিডে সংযুক্ত নতুন ৯টি গ্রিড উপকেন্দ্র, সন্দীপ উপজেলায় বিশেষায়িত বিদ্যুতায়ন এবং ১২টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তিনি।স্থলভাগ থেকে ১৬ কিলোমিটার দূরের এই দ্বীপের বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আমরা উন্নীত হয়েছি। এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এবারের নির্বাচনে জনগণ আমাদের ভোট দিয়ে জয়ী করেছেন, তাই আমি জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। জনগণ আমাদের ওপর যে আস্থা রেখেছেন সেটা সামনে রেখেই আমরা এগিয়ে যাব।’
তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়নে সব থেকে বেশি প্রয়োজন হল বিদ্যুৎ। যেটা মানুষের চাহিদা। মানুষের খাদ্যের নিরাপত্তা আমরা নিশ্চিত করেছি। আর বিদ্যুতের উৎপাদনের মাধ্যমে প্রতিটা ঘরে আলো জ্বালবো এটাই আমাদের লক্ষ্য। ইতিমধ্যে ৯৩ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছেন। শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিদ্যুৎ পেতে এখন আর দৌড়াদৌড়ি করতে হয় না। বরং এখন আমরা আলোর পসরা নিয়ে মানুষের কাছে আমরাই যাচ্ছি। আলো সবার ঘরে আমরাই পৌঁছে দেব।’
তিনি বলেন, ‘মাথাপিছু আয় বেড়েছে, জীবনযাত্রার মান বেড়েছে। সেই সঙ্গে সঙ্গে চাহিদাও বেড়ে যাচ্ছে। আর এই চাহিদার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা বিদ্যুৎ উৎপাদনও বাড়াচ্ছি।’এ সময় সরকারপ্রধান বলেন, ‘সন্দ্বীপ আমি গিয়েছিলাম, সেখানে সোলার প্যানেল দিয়েছিলাম। সে সময় সন্দ্বীপবাসীর একটি দাবি ছিল, সেখানে যেন আমরা গ্রিড লাইন দিই। খুব স্বাভাবিকভাবেই এ ধরনের দ্বীপাঞ্চলে বিদ্যুৎ দেওয়া খুব কষ্টকর। কিন্তু এখন নতুন টেকনোলজি আছে। আমরা সাবমেরিন কেবলের মাধ্যমে লাইন নিয়ে গ্রিডের মাধ্যমে বিদ্যুৎ দিতে পারছি।’
‘ঘূর্ণিঝড়ের সময় আমি সন্দ্বীপে গিয়েছি। সেখানে থেকে ত্রাণ বিতরণ করেছি। তখন দেখেছি কী দুঃসহ জীবনযাপন করতে হয় মানুষকে। আজকে আমরা বলতে পারি, গ্রিডলাইনে বিদ্যুৎ যাওয়ার পরে সেখানে বিনিয়োগ হবে, শিল্পায়ন হবে, আমাদের কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে, কৃষি প্রক্রিয়াজাত শিল্প গড়ে উঠবে।’
‘সেখানে আমরা বহুমুখী কাজ করতে পারব, এমনকি ব্লু ইকোনমির কাজও করতে পারব। দ্বীপটি অত্যন্ত চমৎকার। এখানে পর্যটন শিল্প আরো ভালোভাবে গড়ে উঠতে পারবে,’ যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী। সন্দ্বীপে প্রায় ৪ লাখ মানুষের বসবাস। বারবার ভাঙনের কবলে পড়ে আয়তনে ছোট হয়ে এই দ্বীপ এতদিন একপ্রকার বিদ্যুৎ সুবিধার বাইরে ছিলো। বঙ্গোপসাগরের বুকে এ দ্বীপে বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট যাওয়ায় দ্বীপবাসীর জন্য নতুন আশার আলোর সঞ্চার হলো।
ঢাকা,বুধবার,০৬ ফেব্রুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» রংপুর-কুড়িগ্রাম মহাসড়কের লালমনিরহাটের বড়বাড়িতে বাসের সঙ্গে সিএনজির মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ৩

» ঐক্যফ্রন্টের গণশুনানি ২৪ ফেব্রুয়ারির পরিবর্তে ২২ ফেব্রুয়ারি

» মেয়র পদপ্রার্থী আতিকুর রহমানের আগামী প্রজন্মের স্বপ্নের ঢাকা শীর্ষক গোল টেবিল বৈঠক অনুষ্ঠিত

» ডাকসু’র নির্বাচনের মনোনয়নপত্র বিতরণ শুরু

» খাগড়াছড়িতে গ্যাস সিলিন্ডার বিস্ফোরণে সাতজন দগ্ধ

» জাজিরা প্রান্তে বসছে স্বপ্নের পদ্মা সেতুর সপ্তম স্প্যান

» শাজাহান খানের নেতৃত্বে সড়কে শৃঙ্খলার কমিটি হাস্যকর ও তামাশা : রিজভী

» একুশে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস উপলক্ষে মহানগরীর নিরাপত্তায় ১৬ হাজার পুলিশ

» বিশ্বশান্তি ও কল্যাণ কামনায় আখেরি মোনাজাতের মধ্য দিয়ে শেষ হলো এবারের ইজতেমা

» সিঙ্গাপুরে চিকিৎসা শেষে দেশে ফিরেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

সাগরের তলদেশ দিয়ে ১৬ কিলোমিটার দূরে বিদ্যুৎ-ইন্টারনেট পেলো সন্দ্বীপবাসী

বিদ্যুৎ উৎপাদনের মাধ্যমে দেশের প্রতিটি ঘরে আলো পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে সরকার কাজ করছে বলে জানান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।বুধবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) সকালে গণভবনে, ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে ৬টি বিদ্যুৎ কেন্দ্র, জাতীয় গ্রিডে সংযুক্ত নতুন ৯টি গ্রিড উপকেন্দ্র, সন্দীপ উপজেলায় বিশেষায়িত বিদ্যুতায়ন এবং ১২টি উপজেলায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন কার্যক্রমের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন তিনি।স্থলভাগ থেকে ১৬ কিলোমিটার দূরের এই দ্বীপের বিদ্যুতায়নের উদ্বোধন করেন।প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘উন্নয়নশীল দেশ হিসেবে আমরা উন্নীত হয়েছি। এই ধারাবাহিকতা বজায় রাখার জন্য আমরা কাজ করে যাচ্ছি। এবারের নির্বাচনে জনগণ আমাদের ভোট দিয়ে জয়ী করেছেন, তাই আমি জনগণের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। জনগণ আমাদের ওপর যে আস্থা রেখেছেন সেটা সামনে রেখেই আমরা এগিয়ে যাব।’
তিনি আরো বলেন, ‘বাংলাদেশের সার্বিক উন্নয়নে সব থেকে বেশি প্রয়োজন হল বিদ্যুৎ। যেটা মানুষের চাহিদা। মানুষের খাদ্যের নিরাপত্তা আমরা নিশ্চিত করেছি। আর বিদ্যুতের উৎপাদনের মাধ্যমে প্রতিটা ঘরে আলো জ্বালবো এটাই আমাদের লক্ষ্য। ইতিমধ্যে ৯৩ ভাগ মানুষ বিদ্যুৎ পাচ্ছেন। শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিদ্যুৎ পেতে এখন আর দৌড়াদৌড়ি করতে হয় না। বরং এখন আমরা আলোর পসরা নিয়ে মানুষের কাছে আমরাই যাচ্ছি। আলো সবার ঘরে আমরাই পৌঁছে দেব।’
তিনি বলেন, ‘মাথাপিছু আয় বেড়েছে, জীবনযাত্রার মান বেড়েছে। সেই সঙ্গে সঙ্গে চাহিদাও বেড়ে যাচ্ছে। আর এই চাহিদার সঙ্গে সঙ্গেই আমরা বিদ্যুৎ উৎপাদনও বাড়াচ্ছি।’এ সময় সরকারপ্রধান বলেন, ‘সন্দ্বীপ আমি গিয়েছিলাম, সেখানে সোলার প্যানেল দিয়েছিলাম। সে সময় সন্দ্বীপবাসীর একটি দাবি ছিল, সেখানে যেন আমরা গ্রিড লাইন দিই। খুব স্বাভাবিকভাবেই এ ধরনের দ্বীপাঞ্চলে বিদ্যুৎ দেওয়া খুব কষ্টকর। কিন্তু এখন নতুন টেকনোলজি আছে। আমরা সাবমেরিন কেবলের মাধ্যমে লাইন নিয়ে গ্রিডের মাধ্যমে বিদ্যুৎ দিতে পারছি।’
‘ঘূর্ণিঝড়ের সময় আমি সন্দ্বীপে গিয়েছি। সেখানে থেকে ত্রাণ বিতরণ করেছি। তখন দেখেছি কী দুঃসহ জীবনযাপন করতে হয় মানুষকে। আজকে আমরা বলতে পারি, গ্রিডলাইনে বিদ্যুৎ যাওয়ার পরে সেখানে বিনিয়োগ হবে, শিল্পায়ন হবে, আমাদের কৃষি উৎপাদন বৃদ্ধি পাবে, কৃষি প্রক্রিয়াজাত শিল্প গড়ে উঠবে।’
‘সেখানে আমরা বহুমুখী কাজ করতে পারব, এমনকি ব্লু ইকোনমির কাজও করতে পারব। দ্বীপটি অত্যন্ত চমৎকার। এখানে পর্যটন শিল্প আরো ভালোভাবে গড়ে উঠতে পারবে,’ যোগ করেন প্রধানমন্ত্রী। সন্দ্বীপে প্রায় ৪ লাখ মানুষের বসবাস। বারবার ভাঙনের কবলে পড়ে আয়তনে ছোট হয়ে এই দ্বীপ এতদিন একপ্রকার বিদ্যুৎ সুবিধার বাইরে ছিলো। বঙ্গোপসাগরের বুকে এ দ্বীপে বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট যাওয়ায় দ্বীপবাসীর জন্য নতুন আশার আলোর সঞ্চার হলো।
ঢাকা,বুধবার,০৬ ফেব্রুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY PopularITLimited