করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
১৫৬৭ ৩,৪৪,৩৭২ ২,৫৪,৩৮৬ ৪৯১৩

নির্বাচন কমিশন সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়নেই তৎপর রয়েছে

রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন আইনসহ অনেকগুলো মৌলিক সংশোধনী আনতে কমিশনের উদ্যোগ অপ্রয়োজনীয় এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। প্রস্তাবিত আরপিওর মাধ্যমে আগামীতে নির্বাচন কমিশনবিহীন প্রহসনের নির্বাচন করতে চায় সরকার বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে ‘রাজনৈতিক দলসমূহের নিবন্ধন আইন-২০২০ প্রণয়ন, নির্বাচনী আইন (পিআরও) সংশোধনী প্রস্তাব এবং স্থানীয় সরকার নির্বাচনী আইন-২০২০ প্রণয়নে নির্বাচন কমিশনের উদ্যোগ: বিএনপির প্রতিবাদ ও প্রত্যাখ্যান’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কথা বলেন।তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনের ক্ষমতা কমিয়ে নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংসের ষড়যন্ত্র করেছে বর্তমান ইসি। এর মাধ্যমে সরকার একতরফা ক্ষমতায় থাকার পথ পরিষ্কার করতে চায়।মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বর্তমানে নির্বাচন ব্যবস্থার প্রতি এদেশের মানুষ ও গণতন্ত্রে বিশ্বাসী কোনো রাজনৈতিক দলের ন্যূনতম শ্রদ্ধা কিংবা আস্থা নেই। আর এজন্য নিঃসন্দেহে গত ১০ বছরে বাংলাদেশে গণতন্ত্রকে যারা গলাটিপে হত্যা করেছে কেবল তারা এবং তাদের সহযোগী হিসেবে নির্লজ্জ ভূমিকা রাখা বর্তমান শাসকগোষ্ঠীর বশবর্তী নির্বাচন কমিশনই দায়ী। এ নির্বাচন কমিশন বাতিল করতে হবে। একটি নিরপেক্ষ সরকারের তত্ত্বাবধানে এবং একটি স্বাধীন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় দেশে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। ’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান নির্বাচন কমিশন বিস্ময়কর কর্মকাণ্ডের জন্য ইতোমধ্যেই কুখ্যাতি অর্জন করেছে। তারা গত সাড়ে তিন বছরে তাদের মেয়াদকালে অনেক অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। এর মাধ্যমে তাদের জনস্বার্থবিরোধী মানসিকতাই শুধু প্রকাশ পায়নি, অসততা ও অযোগ্যতারও বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। ’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘ভবিষ্যতে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু করার ইচ্ছা বর্তমান কমিশনের নেই। ২০১৪ সালে নির্বাচন করেছে রাজনৈতিক দলবিহীন। ২০১৮ সালে করেছে ভোটারবিহীন নৈশ নির্বাচন। আর প্রস্তাবিত আরপিওর মাধ্যমে আগামীতে করতে চায় নির্বাচন কমিশনবিহীন প্রহসনের নির্বাচন। ’

তিনি বলেন, ‘সাম্প্রতিক মাসগুলোতে করোনা ভাইরাস মহামারি এ গ্রহের সব মানুষের স্বাভাবিক জীবনপ্রবাহ বিপর্যস্ত করেছে। বাংলাদেশও এ থেকে মুক্ত নয়। দেশে স্বাভাবিক জীবন ব্যবস্থা ফিরে আসেনি। বরং পরিস্থিতি আরও উদ্বেগজনক হয়ে পড়ছে। এমন পটভূমিকায় এ পর্যায়ে জাতীয় জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে নতুন যে কোনো ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্পূর্ণভাবে অপ্রত্যাশিত। আর তা যদি হয়, দীর্ঘমেয়াদে রাজনীতি সংশ্লিষ্ট কিংবা জনগণের ভোটাধিকার বা অধিকার সংক্রান্ত বিষয়ের সঙ্গে জড়িত, তাহলে সে বিষয়ে ন্যূনতম সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য বর্তমান মহামারির সময় নিঃসন্দেহে অনুপযুক্ত। ’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন এ সময়টি বেছে নিয়েছে রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন আইন, স্থানীয় সরকার নির্বাচনের আইন এবং জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আরপিওর অনেকগুলো মৌলিক সংশোধনী আনার জন্য। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল নির্বাচন কমিশনের এ উদ্যোগ অপ্রয়োজনীয়, হঠকারী ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত আখ্যা দিয়ে তা প্রত্যাখ্যান করেছে। ’মহাসচিব বলেন, ‘দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা প্রায় ভেঙে পড়েছে, এর দায় নির্বাচন কমিশনের।’ এ কমিশনের কোনো বিশ্বাসযোগ্যতা নাই। তারা কী কারসাজিতে যুক্ত তা নিয়ে সন্দেহ আছে। তাদের অতীত কর্মকাণ্ডে বরং এটি স্পষ্ট যে, নির্বাচন কমিশন সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়নেই তৎপর রয়েছে। ’
ঢাকা,বৃহস্পতিবার,১০ সেপ্টেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» ময়মনসিংহে মাইক্রোবাস ও পিকআপ ভ্যানের সংঘর্ষে বাবা ও ছেলের মৃত্যু

» যাচাই-বাছাই করে পরীক্ষিত নেতাকর্মীদের নাম তালিকায় আছে কি না তা দেখা হবে

» চট্টগ্রামের হাটহাজারী মাদ্রাসায় শাহ আহমদ শফীর জানাজা ও দাফন সম্পন্ন

» মসজিদে বিস্ফোরণে হতাহতের মামলায় তিতাসের বরখাস্ত ৮ কর্মকর্তা গ্রেফতার

» সোনামসজিদ স্থলবন্দর দিয়ে আসছে ভারতের পেঁয়াজ

» নতুন করে আরও ১৫৬৭ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত,মৃত্যু ৩২ জন

» মসজিদে বিস্ফোরণের ঘটনায় আরও এক জনের মৃত্যু বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৩৩

» আল্লামা শাহ আহমদ শফীর জানাজা শনিবার বাদ জোহর হাটহাজারী মাদ্রাসায়

» আল্লামা শাহ আহমদ শফীর মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেছেন রাষ্ট্রপতি ও প্রধানমন্ত্রী

» হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের আমির আল্লামা আহমেদ শফী আর নেই

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com




আজ শনিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, ৪ঠা আশ্বিন, ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

নির্বাচন কমিশন সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়নেই তৎপর রয়েছে

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন আইনসহ অনেকগুলো মৌলিক সংশোধনী আনতে কমিশনের উদ্যোগ অপ্রয়োজনীয় এবং উদ্দেশ্যপ্রণোদিত। প্রস্তাবিত আরপিওর মাধ্যমে আগামীতে নির্বাচন কমিশনবিহীন প্রহসনের নির্বাচন করতে চায় সরকার বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।বৃহস্পতিবার (১০ সেপ্টেম্বর) সকালে গুলশানে দলের চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে ‘রাজনৈতিক দলসমূহের নিবন্ধন আইন-২০২০ প্রণয়ন, নির্বাচনী আইন (পিআরও) সংশোধনী প্রস্তাব এবং স্থানীয় সরকার নির্বাচনী আইন-২০২০ প্রণয়নে নির্বাচন কমিশনের উদ্যোগ: বিএনপির প্রতিবাদ ও প্রত্যাখ্যান’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর এ কথা বলেন।তিনি আরও বলেন, নির্বাচন কমিশনের ক্ষমতা কমিয়ে নির্বাচন ব্যবস্থাকে ধ্বংসের ষড়যন্ত্র করেছে বর্তমান ইসি। এর মাধ্যমে সরকার একতরফা ক্ষমতায় থাকার পথ পরিষ্কার করতে চায়।মির্জা ফখরুল বলেন, ‘বর্তমানে নির্বাচন ব্যবস্থার প্রতি এদেশের মানুষ ও গণতন্ত্রে বিশ্বাসী কোনো রাজনৈতিক দলের ন্যূনতম শ্রদ্ধা কিংবা আস্থা নেই। আর এজন্য নিঃসন্দেহে গত ১০ বছরে বাংলাদেশে গণতন্ত্রকে যারা গলাটিপে হত্যা করেছে কেবল তারা এবং তাদের সহযোগী হিসেবে নির্লজ্জ ভূমিকা রাখা বর্তমান শাসকগোষ্ঠীর বশবর্তী নির্বাচন কমিশনই দায়ী। এ নির্বাচন কমিশন বাতিল করতে হবে। একটি নিরপেক্ষ সরকারের তত্ত্বাবধানে এবং একটি স্বাধীন ও নিরপেক্ষ নির্বাচন কমিশনের পরিচালনায় দেশে একটি অবাধ ও সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে জনগণের ভোটাধিকার নিশ্চিত করে জনগণের সরকার প্রতিষ্ঠা করতে হবে। ’

তিনি বলেন, ‘বর্তমান নির্বাচন কমিশন বিস্ময়কর কর্মকাণ্ডের জন্য ইতোমধ্যেই কুখ্যাতি অর্জন করেছে। তারা গত সাড়ে তিন বছরে তাদের মেয়াদকালে অনেক অপচেষ্টায় লিপ্ত হয়েছে। এর মাধ্যমে তাদের জনস্বার্থবিরোধী মানসিকতাই শুধু প্রকাশ পায়নি, অসততা ও অযোগ্যতারও বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। ’

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘ভবিষ্যতে কোনো নির্বাচন সুষ্ঠু করার ইচ্ছা বর্তমান কমিশনের নেই। ২০১৪ সালে নির্বাচন করেছে রাজনৈতিক দলবিহীন। ২০১৮ সালে করেছে ভোটারবিহীন নৈশ নির্বাচন। আর প্রস্তাবিত আরপিওর মাধ্যমে আগামীতে করতে চায় নির্বাচন কমিশনবিহীন প্রহসনের নির্বাচন। ’

তিনি বলেন, ‘সাম্প্রতিক মাসগুলোতে করোনা ভাইরাস মহামারি এ গ্রহের সব মানুষের স্বাভাবিক জীবনপ্রবাহ বিপর্যস্ত করেছে। বাংলাদেশও এ থেকে মুক্ত নয়। দেশে স্বাভাবিক জীবন ব্যবস্থা ফিরে আসেনি। বরং পরিস্থিতি আরও উদ্বেগজনক হয়ে পড়ছে। এমন পটভূমিকায় এ পর্যায়ে জাতীয় জনগুরুত্বপূর্ণ বিষয়ে নতুন যে কোনো ধরনের সিদ্ধান্ত নেওয়া সম্পূর্ণভাবে অপ্রত্যাশিত। আর তা যদি হয়, দীর্ঘমেয়াদে রাজনীতি সংশ্লিষ্ট কিংবা জনগণের ভোটাধিকার বা অধিকার সংক্রান্ত বিষয়ের সঙ্গে জড়িত, তাহলে সে বিষয়ে ন্যূনতম সিদ্ধান্ত নেওয়ার জন্য বর্তমান মহামারির সময় নিঃসন্দেহে অনুপযুক্ত। ’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘নির্বাচন কমিশন এ সময়টি বেছে নিয়েছে রাজনৈতিক দলের নিবন্ধন আইন, স্থানীয় সরকার নির্বাচনের আইন এবং জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আরপিওর অনেকগুলো মৌলিক সংশোধনী আনার জন্য। বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দলসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল নির্বাচন কমিশনের এ উদ্যোগ অপ্রয়োজনীয়, হঠকারী ও উদ্দেশ্যপ্রণোদিত আখ্যা দিয়ে তা প্রত্যাখ্যান করেছে। ’মহাসচিব বলেন, ‘দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা প্রায় ভেঙে পড়েছে, এর দায় নির্বাচন কমিশনের।’ এ কমিশনের কোনো বিশ্বাসযোগ্যতা নাই। তারা কী কারসাজিতে যুক্ত তা নিয়ে সন্দেহ আছে। তাদের অতীত কর্মকাণ্ডে বরং এটি স্পষ্ট যে, নির্বাচন কমিশন সরকারের নীলনকশা বাস্তবায়নেই তৎপর রয়েছে। ’
ঢাকা,বৃহস্পতিবার,১০ সেপ্টেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com

Translate »