করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
১২৮৫ ৭,৭২,১২৭২ ৭,০৬,৮৩৩ ১১,৮৩৩

বিদেশি কারো সহায়তা নয়, নিজস্ব চেষ্টায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে

বিদেশি কারো সহায়তা নয়, নিজস্ব চেষ্টায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, আজ ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বলেই, করোনা মহামারির মধ্যেও দেশের অর্থনীতি মুখ থুবড়ে পড়েনি বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) রাতে অনলাইনে চতুর্থ ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন।

বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, শুধু নালিশ করলে বা সমস্যা ধরলে হবে না। নালিশ বা সমস্যা না খুঁজে সমাধান খুঁজতে হবে। সমস্যা তো থাকবেই। ১৬ কোটি মানুষের দেশ, সমস্যার শেষ নেই। কিন্তু এ তরুণদের মতো সমাধান খুঁজতে হবে। তাদের হাতে তো কেউ ক্ষমতা তুলে দেয়নি। তবুও তারা দেশের মানুষের, তাদের পাশের মানুষের সেবা করে যাচ্ছে। আমি দেখতে চাই কারা সমস্যার সমাধান করতে চায়, নালিশ শুনতে চাই না।

জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড এর চতুর্থবারের এ আয়োজনে বিজয়ী হয়েছে ৩০টি সংগঠন-ব্যক্তি। সামাজিক অন্তর্ভুক্তি এবং সমন্বিত সামাজিক উন্নয়ন এ দুই প্রধান ক্যাটাগরির আওতায় বিজয়ীদের বাছাই করা হয়। এবারের আয়োজনে সাত শতাধিক আবেদনের মধ্যে থেকে মোট ৪৭টি সংগঠন-ব্যক্তিকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিল।

ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড জয়ী তরুণরাই আওয়ামী লীগ সরকারের অনুপ্রেরণা উল্লেখ করে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের যোগ্য নেতৃত্বের কারণে আমাদের দেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। যুক্তরাষ্ট্র বা ইউরোপের চেয়ে আমাদের অবস্থা ভালো। আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থাও ভালো। আমরা শুরু থেকেই আমাদের মেধা দিয়ে, পরিশ্রম দিয়ে প্রস্তুত ছিলাম। তারা প্রস্তুত ছিল না। আর আওয়ামী লীগের অনুপ্রেরণা হচ্ছে আজ যারা বিজয়ী হলেন তাদের মতো তরুণরা। বিশ্বের অনেক ধনী দেশের তুলনায় আমরা ভালো আছি। এ ডিজিটাল বাংলাদেশ আমরাই বাস্তবায়ন করেছি। বিদেশি কেউ বা কোনো কনসালটেন্ট এসে করেনি। আওয়ামী লীগ সরকার যতদিন ক্ষমতায় থাকবে ততদিন দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে। সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) তরুণদের সংগঠন ইয়াং বাংলা ২০১৪ সালে আত্মপ্রকাশের পর মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক স্লোগান ‘জয় বাংলা’র নামে চালু করে ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’। দেশ গঠনে ও নিজ সমাজের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাওয়া তরুণদের কাজের স্বীকৃতি দিতে চালু করা হয় এই অ্যাওয়ার্ডের।

২০১৫ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ইয়াং বাংলা তরুণদের ১৩০ সংগঠনকে নিজ সমাজের প্রতি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনের জন্য প্রদান করেছে জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড। তাদের মধ্যে অনেকেই পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংগঠন থেকে তাদের কাজের জন্য অর্জন করেছে পুরস্কার।

এবারো জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ডে আবেদন করে ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়সী তরুণদের ৬০০ সংগঠন। নারী ক্ষমতায়ন, শিশু অধিকার, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের ক্ষমতায়ন, যুব উন্নয়ন, দরিদ্রদের উন্নয়ন, মাদকমুক্ত সমাজ বিনির্মাণ, করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখা, পরিবেশ সুরক্ষা, শিক্ষা, সংস্কৃতি, নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎপাদনসহ আরও বেশ কিছু ক্ষেত্রে অবদানের জন্য এই সংগঠনগুলো থেকে বাছাই করে ৫০ সংগঠনকে রাখা হয়েছে প্রাথমিক ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড-২০২০’ বিজয়ীর তালিকায়।

প্রথম পর্যায়ে এবার মোট ছয়টি সাব ক্যাটাগরিতে ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করা হবে। ক্যাটাগরিগুলোর মধ্যে ছিল- নারীর ক্ষমতায়ন, শিশু অধিকার, প্রতিবন্ধীদের ক্ষমতায়ন, ক্ষতিগ্রস্ত ও পিছিয়ে পড়া মানুষের ক্ষমতায়ন, চরম দরিদ্রদের ক্ষমতায়ন ও যুব উন্নয়ন।

দ্বিতীয় পর্যায়ে সাতটি সাব ক্যাটাগরিতে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে। নির্ধারিত ক্যাটাগরিগুলো হলো- মাদকবিরোধী সচেতনতা কার্যক্রম, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জরুরি কার্যক্রম, পরিবেশ এবং জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত কার্যক্রম, স্বাস্থ্য শিক্ষা এবং সচেতনতা কার্যক্রম, সামাজিক-সাংস্কৃতিক উদ্যোগ এবং দুর্যোগ মোকাবিলা ও ঝুঁকি হ্রাস।

প্রায় তিন লাখ সদস্য, ৫০ হাজারের বেশি স্বেচ্ছাসেবী এবং ৩১৫টির বেশি সংগঠনকে সঙ্গে নিয়ে চলা ‘ইয়াং বাংলা’র লক্ষ্য- ‘ভিশন-২০২১’ এ দেশের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে তরুণ প্রজন্মকে সরাসরি অন্তর্ভুক্ত করা এবং তাদের নতুন ধারণা ও উদ্ভাবনকে বিশ্বে তুলে ধরা।
ঢাকা,মঙ্গলবার,১৭ নভেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments Box

সর্বশেষ আপডেট



» নতুন করে আরও ১২৮৫ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত,মৃত্যু ৪৫ জন

» দেশে করোনার ভারতীয় ভ্যারিয়েন্ট (ধরন) শনাক্ত

» বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণের জায়গা দর্শনীয় করে তুলতে প্রকল্প হাতে নেওয়া হয়েছে

» দূরপাল্লার গণপরিবহন খুলে দেওয়াসহ সরকারের কাছে পাঁচ দফা দাবি

» ফেরিঘাটে ঘরমুখী যাত্রীদের উপচেপড়া ঢল নিষেধাজ্ঞা সত্ত্বেও শিমুলিয়া থেকে ছাড়ল ফেরি

» পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া ও শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে দিনের বেলায় ফেরি চলাচল বন্ধ

» বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে পদ্মা সেতু নিয়ে প্রকাশিত প্রতিবেদন সত্য নয়: সেতুমন্ত্রী

» বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন হচ্ছে গণতন্ত্রের অগ্নিবীণার দেশে ফিরে আসা

» কলাপাড়ায় আনসার ব্যাটালিয়ান ও স্থানীয়দের সাথে হামলা পাল্টা হামলা ।। নারীসহ আহত ১৪

» নতুন করে আরও ১৬৮২ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত,মৃত্যু ৩৭ জন

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শনিবার, ৮ মে ২০২১ খ্রিষ্টাব্দ, ২৫শে বৈশাখ, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিদেশি কারো সহায়তা নয়, নিজস্ব চেষ্টায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:

বিদেশি কারো সহায়তা নয়, নিজস্ব চেষ্টায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বাস্তবায়ন করা হয়েছে। তিনি বলেন, আজ ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হয়েছে বলেই, করোনা মহামারির মধ্যেও দেশের অর্থনীতি মুখ থুবড়ে পড়েনি বলে জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়।মঙ্গলবার (১৭ নভেম্বর) রাতে অনলাইনে চতুর্থ ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ অনুষ্ঠানে তিনি এ মন্তব্য করেন। অনুষ্ঠানে প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয় প্রধান অতিথি হিসেবে বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন।

বিজয়ীদের অভিনন্দন জানিয়ে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, শুধু নালিশ করলে বা সমস্যা ধরলে হবে না। নালিশ বা সমস্যা না খুঁজে সমাধান খুঁজতে হবে। সমস্যা তো থাকবেই। ১৬ কোটি মানুষের দেশ, সমস্যার শেষ নেই। কিন্তু এ তরুণদের মতো সমাধান খুঁজতে হবে। তাদের হাতে তো কেউ ক্ষমতা তুলে দেয়নি। তবুও তারা দেশের মানুষের, তাদের পাশের মানুষের সেবা করে যাচ্ছে। আমি দেখতে চাই কারা সমস্যার সমাধান করতে চায়, নালিশ শুনতে চাই না।

জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড এর চতুর্থবারের এ আয়োজনে বিজয়ী হয়েছে ৩০টি সংগঠন-ব্যক্তি। সামাজিক অন্তর্ভুক্তি এবং সমন্বিত সামাজিক উন্নয়ন এ দুই প্রধান ক্যাটাগরির আওতায় বিজয়ীদের বাছাই করা হয়। এবারের আয়োজনে সাত শতাধিক আবেদনের মধ্যে থেকে মোট ৪৭টি সংগঠন-ব্যক্তিকে চূড়ান্ত মনোনয়ন দেওয়া হয়েছিল।

ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড জয়ী তরুণরাই আওয়ামী লীগ সরকারের অনুপ্রেরণা উল্লেখ করে সজীব ওয়াজেদ জয় বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের যোগ্য নেতৃত্বের কারণে আমাদের দেশে করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আছে। যুক্তরাষ্ট্র বা ইউরোপের চেয়ে আমাদের অবস্থা ভালো। আমাদের অর্থনৈতিক অবস্থাও ভালো। আমরা শুরু থেকেই আমাদের মেধা দিয়ে, পরিশ্রম দিয়ে প্রস্তুত ছিলাম। তারা প্রস্তুত ছিল না। আর আওয়ামী লীগের অনুপ্রেরণা হচ্ছে আজ যারা বিজয়ী হলেন তাদের মতো তরুণরা। বিশ্বের অনেক ধনী দেশের তুলনায় আমরা ভালো আছি। এ ডিজিটাল বাংলাদেশ আমরাই বাস্তবায়ন করেছি। বিদেশি কেউ বা কোনো কনসালটেন্ট এসে করেনি। আওয়ামী লীগ সরকার যতদিন ক্ষমতায় থাকবে ততদিন দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়া হবে। সেন্টার ফর রিসার্চ অ্যান্ড ইনফরমেশনের (সিআরআই) তরুণদের সংগঠন ইয়াং বাংলা ২০১৪ সালে আত্মপ্রকাশের পর মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক স্লোগান ‘জয় বাংলা’র নামে চালু করে ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’। দেশ গঠনে ও নিজ সমাজের উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাওয়া তরুণদের কাজের স্বীকৃতি দিতে চালু করা হয় এই অ্যাওয়ার্ডের।

২০১৫ সাল থেকে ২০১৮ সাল পর্যন্ত ইয়াং বাংলা তরুণদের ১৩০ সংগঠনকে নিজ সমাজের প্রতি গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালনের জন্য প্রদান করেছে জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড। তাদের মধ্যে অনেকেই পরবর্তীতে আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংগঠন থেকে তাদের কাজের জন্য অর্জন করেছে পুরস্কার।

এবারো জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ডে আবেদন করে ১৮ থেকে ৩৫ বছর বয়সী তরুণদের ৬০০ সংগঠন। নারী ক্ষমতায়ন, শিশু অধিকার, বিশেষ চাহিদা সম্পন্ন শিশুদের ক্ষমতায়ন, যুব উন্নয়ন, দরিদ্রদের উন্নয়ন, মাদকমুক্ত সমাজ বিনির্মাণ, করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখা, পরিবেশ সুরক্ষা, শিক্ষা, সংস্কৃতি, নবায়নযোগ্য জ্বালানি উৎপাদনসহ আরও বেশ কিছু ক্ষেত্রে অবদানের জন্য এই সংগঠনগুলো থেকে বাছাই করে ৫০ সংগঠনকে রাখা হয়েছে প্রাথমিক ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড-২০২০’ বিজয়ীর তালিকায়।

প্রথম পর্যায়ে এবার মোট ছয়টি সাব ক্যাটাগরিতে ‘জয় বাংলা ইয়ুথ অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করা হবে। ক্যাটাগরিগুলোর মধ্যে ছিল- নারীর ক্ষমতায়ন, শিশু অধিকার, প্রতিবন্ধীদের ক্ষমতায়ন, ক্ষতিগ্রস্ত ও পিছিয়ে পড়া মানুষের ক্ষমতায়ন, চরম দরিদ্রদের ক্ষমতায়ন ও যুব উন্নয়ন।

দ্বিতীয় পর্যায়ে সাতটি সাব ক্যাটাগরিতে অ্যাওয়ার্ড প্রদান করা হবে। নির্ধারিত ক্যাটাগরিগুলো হলো- মাদকবিরোধী সচেতনতা কার্যক্রম, করোনা ভাইরাস প্রতিরোধে জরুরি কার্যক্রম, পরিবেশ এবং জলবায়ু পরিবর্তন সম্পর্কিত কার্যক্রম, স্বাস্থ্য শিক্ষা এবং সচেতনতা কার্যক্রম, সামাজিক-সাংস্কৃতিক উদ্যোগ এবং দুর্যোগ মোকাবিলা ও ঝুঁকি হ্রাস।

প্রায় তিন লাখ সদস্য, ৫০ হাজারের বেশি স্বেচ্ছাসেবী এবং ৩১৫টির বেশি সংগঠনকে সঙ্গে নিয়ে চলা ‘ইয়াং বাংলা’র লক্ষ্য- ‘ভিশন-২০২১’ এ দেশের উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডে তরুণ প্রজন্মকে সরাসরি অন্তর্ভুক্ত করা এবং তাদের নতুন ধারণা ও উদ্ভাবনকে বিশ্বে তুলে ধরা।
ঢাকা,মঙ্গলবার,১৭ নভেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments Box

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Hbnews24 || Phone: +8801714043198, email: hbnews24@gmail.com

Translate »
error: Alert: Content is protected !!