করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
১৮৬২ ১৫,৩৮,২০৩ ১৪,৯৪,০৯০ ২৭,১০৯

চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু টানেলের প্রায় আড়াই কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের দ্বিতীয় টিউবের খনন কাজ সম্পন্ন

চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের প্রায় আড়াই কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের দ্বিতীয় টিউবের খনন কাজ সম্পন্ন। আর এ পর্যন্ত প্রকল্পের ৭৩ শতাংশ কাজ শেষ।
চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলটির কাজ শেষ হওয়ার কথা আগামী বছরের ডিসেম্বরে। ১০ হাজার ৩৭৪ কোটি টাকায় নির্মিত টানেলটি চালুর পর অর্থনৈতিক প্রবাহে আসবে আমূল পরিবর্তন। আর এটি হবে দক্ষিণ এশিয়ায় নদীর তলদেশে প্রথম টানেল।

বঙ্গবন্ধু টানেলকে কেন্দ্র করে এরইমধ্যে কর্ণফুলী নদীর ওপারে প্রস্তুত কোরিয়ান ইপিজেড ও অর্থনৈতিক অঞ্চল। চট্টগ্রামে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগে গড়ে ওঠা ক্ষুদ্র, মাঝারি ও ভারী শিল্প গতিশীল রেখেছে দেশের অর্থনীতিকে। কিন্তু যোগাযোগ ব্যবস্থার সীমাবদ্ধতায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বন্দরনগরী। তাই কর্ণফুলী নদীতে এই টানেলের কাজ শুরু হয় ২০১৯ সালে।

নেভাল একাডেমি থেকে আনোয়ারা পর্যন্ত ৩ হাজার ৫ মিটার দৈর্ঘ্যের টানেল নির্মাণে চলছে বিশাল কর্মযজ্ঞ। টানেলে নদীর অংশে তৈরি করা হয়েছে দু’টি টিউব। প্রথম টিউবের কাজ শেষ অনেক আগেই, সেখানে এখন বসানো হচ্ছে স্ল্যাব। আর বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় শেষ হয় দ্বিতীয় টিউবের কাজ।বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ বলেন, টানেল নির্মাণে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ কাজ হলো মাটি খনন এবং ক্রস প্যাসেজ (টানেলের ভেতরে পথ পরিবর্তন)। এর মধ্যে প্রথমটি সফলতার সঙ্গে শেষ হয়েছে। বোরিং মেশিন খুলে নেয়ায় পর ক্রস প্যাসেজের কাজ শুরু হবে। সেটি শুরু করতে অন্তত তিন মাস সময় লাগবে। দুটি টিউবের সড়ক নির্মাণ শেষ হলেই যাতায়াত করা যাবে। সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ ব্যবস্থাপনার জন্য ১৫ মেগাওয়াট করে মোট ৩০ মেগাওয়াট বিদ্যুতের সাবস্টেশন নির্মাণ করা হয়েছে। দুই পাশে সংযোগ সড়ক নির্মাণের কাজ চলছে। আমরা আগে না পারলেও ২০২২ সালে কাজ সম্পন্ন করতে চেষ্টা করছি। আগে শেষ করতে পারলে ভালো।

টানেলটি নির্মাণ হলে ওই অঞ্চলের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বেড়ে যাবে অনেকগুণ। পাশাপাশি এশিয়ান হাইওয়ে ও নতুন সিল্ক রুটে প্রবেশ করে চট্টগ্রাম হয়ে উঠবে অর্থনৈতিক করিডোর।
চট্টগ্রাম,শুক্রবার,০৮ অক্টোবর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

সর্বশেষ আপডেট



» ৯ উইকেটে ১২৭ রানে থামে ওমান। ফলে ২৬ রানের জয় নিয়ে মাঠ ছাড়ে টাইগাররা

» ওমানকে ১৫৪ রানের টার্গেট দিল টাইগাররা

» কবি সুফিয়া কামাল হলে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে

» নতুন করে আরও ৪৬৯ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত,মৃত্যু ৭ জন

» প্রতি লিটার সয়াবিন তেলের দাম ৭ টাকা করে বাড়ানো হয়েছে

» কুমিল্লার ঘটনার মূল হোতা চিহ্নিত,শিগগিরই তাকে আইনের আওতায় আনা হবে

» জনগণের দৃষ্টি ভিন্নখাতে নিতেই সারাদেশে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি নষ্ট করছে

» সাম্প্রতিক ধর্মীয় সহিংসতার বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়কে নির্দেশ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

» মেয়র আতিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে করা মামলার আবেদন খারিজ

» সাম্প্রদায়িক অপশক্তিকে রুখতে শেষ পর্যন্ত মাঠে থাকবে আওয়ামী লীগ

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ২০ অক্টোবর ২০২১ খ্রিষ্টাব্দ, ৪ঠা কার্তিক, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু টানেলের প্রায় আড়াই কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের দ্বিতীয় টিউবের খনন কাজ সম্পন্ন




চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের প্রায় আড়াই কিলোমিটার দৈর্ঘ্যের দ্বিতীয় টিউবের খনন কাজ সম্পন্ন। আর এ পর্যন্ত প্রকল্পের ৭৩ শতাংশ কাজ শেষ।
চট্টগ্রামে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলটির কাজ শেষ হওয়ার কথা আগামী বছরের ডিসেম্বরে। ১০ হাজার ৩৭৪ কোটি টাকায় নির্মিত টানেলটি চালুর পর অর্থনৈতিক প্রবাহে আসবে আমূল পরিবর্তন। আর এটি হবে দক্ষিণ এশিয়ায় নদীর তলদেশে প্রথম টানেল।

বঙ্গবন্ধু টানেলকে কেন্দ্র করে এরইমধ্যে কর্ণফুলী নদীর ওপারে প্রস্তুত কোরিয়ান ইপিজেড ও অর্থনৈতিক অঞ্চল। চট্টগ্রামে দেশি-বিদেশি বিনিয়োগে গড়ে ওঠা ক্ষুদ্র, মাঝারি ও ভারী শিল্প গতিশীল রেখেছে দেশের অর্থনীতিকে। কিন্তু যোগাযোগ ব্যবস্থার সীমাবদ্ধতায় ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে বন্দরনগরী। তাই কর্ণফুলী নদীতে এই টানেলের কাজ শুরু হয় ২০১৯ সালে।

নেভাল একাডেমি থেকে আনোয়ারা পর্যন্ত ৩ হাজার ৫ মিটার দৈর্ঘ্যের টানেল নির্মাণে চলছে বিশাল কর্মযজ্ঞ। টানেলে নদীর অংশে তৈরি করা হয়েছে দু’টি টিউব। প্রথম টিউবের কাজ শেষ অনেক আগেই, সেখানে এখন বসানো হচ্ছে স্ল্যাব। আর বৃহস্পতিবার দুপুর ১২টায় শেষ হয় দ্বিতীয় টিউবের কাজ।বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান টানেলের প্রকল্প পরিচালক মোহাম্মদ হারুনুর রশিদ বলেন, টানেল নির্মাণে সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিপূর্ণ কাজ হলো মাটি খনন এবং ক্রস প্যাসেজ (টানেলের ভেতরে পথ পরিবর্তন)। এর মধ্যে প্রথমটি সফলতার সঙ্গে শেষ হয়েছে। বোরিং মেশিন খুলে নেয়ায় পর ক্রস প্যাসেজের কাজ শুরু হবে। সেটি শুরু করতে অন্তত তিন মাস সময় লাগবে। দুটি টিউবের সড়ক নির্মাণ শেষ হলেই যাতায়াত করা যাবে। সার্বক্ষণিক বিদ্যুৎ ব্যবস্থাপনার জন্য ১৫ মেগাওয়াট করে মোট ৩০ মেগাওয়াট বিদ্যুতের সাবস্টেশন নির্মাণ করা হয়েছে। দুই পাশে সংযোগ সড়ক নির্মাণের কাজ চলছে। আমরা আগে না পারলেও ২০২২ সালে কাজ সম্পন্ন করতে চেষ্টা করছি। আগে শেষ করতে পারলে ভালো।

টানেলটি নির্মাণ হলে ওই অঞ্চলের অর্থনৈতিক কর্মকাণ্ড বেড়ে যাবে অনেকগুণ। পাশাপাশি এশিয়ান হাইওয়ে ও নতুন সিল্ক রুটে প্রবেশ করে চট্টগ্রাম হয়ে উঠবে অর্থনৈতিক করিডোর।
চট্টগ্রাম,শুক্রবার,০৮ অক্টোবর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Hbnews24 || Phone: +8801714043198, email: hbnews24@gmail.com