পহেলা বৈশাখের প্রতিটি ভেন্যুতে থাকেব নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা : ডিএমপি কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, অগ্রিম শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। বাঙালীর প্রাণের মিলন মেলায় পরিনিত হয়। লাখ লাখ নারী পুলিশ বৈশাখী পোশাক পরিধান করে আনন্দে মেলায় মেতে ওঠে।
আজ বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল ২০১৮) বেলা সোয়া ১১ টার সময়ে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি পহেলা বৈশাখে পুলিশের করনীয় সম্পর্কে ব্রিফ করেন। সংবাদ সম্মেলনে আছদুজ্জামান মিয়া বলেন, ডিএমপির পক্ষ থেকে পুরো নগরীজুরে যাবতীয় নিরাপত্তা নিয়েছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, রমনা পার্ক, সহরোওয়ার্দী উদ্যান সহ বিভিন্ন বিনোদন পার্কে নিরাপত্তা নিয়েছি। পোশাকে এবং সাদা পোশাকে নিরাপত্তকর্মীরা উপস্থিত থাকবেন। নিরাপত্তার অংশ হিসেবে ডগস্কয়াড এবং বোমা
ডিসপজল টিম থাকবে। পুরো ভেনু সিসি টিভি দ্বারা নিয়ন্ত্রণ থাকবে। নিয়ন্ত্রণ কক্ষে থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হবে।মানুষ হেটে হেটে নেচে গেয়ে উৎসাহ উদ্দীপনা করে উসৎবস্থলে ঢুকবে পারবে। তল্লাশির মধ্য দিয়ে প্রবেশ করে আনন্দে মেতে ওঠতে পারবে।
সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার বলেন, নিরপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হবে। প্রতিটি ভেনুতে থাকবে আর্চওয়ায়ে। প্রশিক্ষিত পুরুষ এবং নারী পুলিশ সদস্য থাকবে। বিশেষায়িত সোয়াত টিম বোমা ডিসপজল টিম এবং ডগস্কয়াড, জলযান নৌটহল, ডুবুরি দল এবং ফায়ার সার্ভিসের দল। উৎসবে আসা সাধারণ মানুষের প্রয়োজনী মেডিকেল ব্যবস্থা থাকবে। আমাদের পুনাঙ্গ পরিকল্পনা করা হয়েছে। ইভটিজিং প্রতিরোধ করা হকার
উচ্ছেদ এবং পকেটমার নিয়ন্ত্রণে থাকেব ঢাকা মহারগর পুলিশের বিশেষায়িত টিম সোয়াত। আর্চওয়ে থাকেব ছায়ানটে। নিশ্চিদ্র নিরাপত্তায় নিয়োজিত করা হবে। মঙল শোভা যাত্রায় পুলিশ প্রহরা থাকবে। পথে কেউ মঙল শোভাযাত্রায় প্রবেশ করতে পারেব না। যারা মাস্ক ব্যবহার করবেন না। হাতে ধরে রাখা যাবে। যারা মাস্ক ব্যবহার করবেন তাদের একটি তালিকা দেবেন চারুকলা ইনিস্টিটিউট থেকে। কেউ কোন বাণিজ্যিক ব্যানার
দিয়ে মঙলশোভাযাত্রায় প্রবেশ করতে পারবেন না। রমনা পার্ক সহরোওয়ার্দী উদ্যানে মাইকের মধ্যে নিয়ে আসব।
সংবাদ সম্মেলনে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, ইতোমধ্যে বলা হয়েছে রমনা পার্কে তিনটি প্রবেশ এবং তিনটি বাইরের গেট থাকবে। সকালে মানুষের চাপ থাকলে প্রবেশ গেটেও বাহির গেট হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। বিকাল পাঁচটার মধ্যে উন্মক্তস্থানে কর্মসূচি শেষ করতে হবে। সম্মিলিত সাস্কৃতিক জোট সন্ধ্যা সাতটার মধ্যে তাদের অনুষ্ঠান শেষ কবেন। আগামী ১৪ এপ্রিল রাতে পবিত্র শবে মিরাজ। শবে মিরাজের রাতে মুসলমান
ধর্মপ্রাণ মানুষ যাতে ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করতে পারেন সে ব্যবস্থা করা হবে।
সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার বলেন, পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানে দা,কাচি,ছুরি দাহ্য পদার্থ বহন করা যাবে না। কেউ যদি ব্যগ নিয়ে আসে ধাতববস্তু বহন করা যাবেনা। প্রতিটি অনুষ্ঠান থাকবে ধুমপান মুক্ত। ইভটিজিং প্রতিরোধে থাকবে ভ্রাম্যমান আদালত। প্রতিটি অনুষ্ঠানে ভুভুজেলা নিষিদ্ধ থাকবে।
সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা নগরীর পুলিশ প্রধান বলেন, আমরা শুধু নিরাপত্তাই দেবেনা। পহেলা বৈশাখে আসা আমরা আটটি স্থানে সুপ্রিয় পানি বিতরণ করা হবে। প্রবেশ ফটকে বৈশাখে আসা সাধারণ মানুষকে ফুলেল শুভেচ্ছ জানানো হবে তাদের বাতাশা সাজ বাতাশার মাধ্যমে ভালবাসা জানানো হবে। পবিত্র শবে মিরাজে যাবে তাদের ধর্মী উৎসব পালন করতে পারে সেই ব্যবস্থা করা হবে।
সাংবাদিককের এক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, বিশ্বায়নের যুগে সব ধরনের ব্যবস্থাকে মাথায় রেখেই ব্যবস্থা নিতে হয়। কোন নিরাপত্তার হুমকি নেই।
কোটা বিরোধী আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাড়িতে হামলা পুলিশের উপরে হামলার ঘটনায় পুলিশের তিনটি মামলা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে একটি মোট চারটি মামলা করা হয়েছে। এই মামলার তদন্ত দ্রুত শেষ না হলে সাদারণ নাগরিকেরা নিরাপত্তা হীনতা বোধ করবেন সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে
আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, দেখেন কেউই আইনের ঊর্দ্ধে নয়। গতকাল সংসদে এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর আগে সড়ক মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কথা বলেছেন। ডিএমপি কমিশনার হিসেবে আমিও বলতে চাই কোটা বিরোধী আন্দোলনকে কেন্দ করে যা কিছু হয়েছে তা ছিল অনাকাঙ্খিত,আমি দু:খিত। ভিসি বাসায় যে হামলা হয়েছে সেখান থেকে সিসি ক্যামেরায় ধারন করা ভিডিও ফুটেজ চুরি করে নিয়ে গেছে এটা পেশাদার
লোকের কাজ। আমাদের প্রশিক্ষিত মেধা কর্মকর্তারা তদন্ত করছেন। অপরাধীদের খুজে বের করে আইনের আওতায় আনা হবে।
এরআগে ডিএমপির রমনা বিভাগের উপ কমিশনার মো. মারুফ হোসেন সরদার এবং ঢাকা মহানগর ট্রাফিক পুলিশের দক্ষিণ বিভাগের উপকমিশনার তাদের করনীয় সম্পর্কে বক্তব্য উপস্থপন করেন।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো.মনিরুল ইসলাম কৃষ্ণপদ রায়, মীর রেজাউল আলম,যুগ্ম কমিশনার শেখ নাজমুল আলম, আবদুল বাতেন, রমনা বিভাগের উপ কমিশনার মো. মারুফ হোসেন সরদার, সিরিয়াস ক্রাইমের উপপকমিশনার মোদাচ্ছের হোসেন, জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার উপকমিশনার মো. মাসুদুর রহমান, ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগের উপকমিশনার এসএম মুরাদ
আলিম সহ ঊর্দ্ধতন পুলিশ কর্মকর্তারা।

মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,বৃহস্পতিবার,১২ এপ্রিল , এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» চট্টগ্রামে দুর্ঘটনার কবলে ইউএস বাংলার বিমান শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ

» খালেদার জামিন বহাল এবং আদালতের প্রতি অনাস্থার আদেশ আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর

» জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় পাঁচমিশালি নেতৃত্বে জনগণের আস্থা নাই

» বাউফলে চীফ হুইপের সাথে পেশাজীবীদের প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা শীর্ষক মতবিনিময় সভা

» বুধবার ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে ভাসাভি স্কুল কাবাডি প্রতিযোগিতা-২০১৮

» মৌসুমের সেরা খেলোয়াড় এবং কোচের পুরস্কার প্রদান করেছে ফিফা।

» ঢাবি ‘খ’ ইউনিটের প্রথম বর্ষ স্নাতক সম্মান শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ উত্তীর্ণ ১৪ শতাংশ

» আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির জনসভা

» চট্টগ্রামে ট্রাক চাপায় দু’টি সিএনজি অটোরিকশার চালকসহ ৫ জন নিহত

» রোহিঙ্গা সঙ্কট নিরসনে তিনটি প্রস্তাব তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রী

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

পহেলা বৈশাখের প্রতিটি ভেন্যুতে থাকেব নিশ্চিদ্র নিরাপত্তা : ডিএমপি কমিশনার

নিজস্ব প্রতিবেদক:ঢাকা মহানগর পুলিশের কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, অগ্রিম শুভেচ্ছা জানাচ্ছি। বাঙালীর প্রাণের মিলন মেলায় পরিনিত হয়। লাখ লাখ নারী পুলিশ বৈশাখী পোশাক পরিধান করে আনন্দে মেলায় মেতে ওঠে।
আজ বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল ২০১৮) বেলা সোয়া ১১ টার সময়ে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি পহেলা বৈশাখে পুলিশের করনীয় সম্পর্কে ব্রিফ করেন। সংবাদ সম্মেলনে আছদুজ্জামান মিয়া বলেন, ডিএমপির পক্ষ থেকে পুরো নগরীজুরে যাবতীয় নিরাপত্তা নিয়েছি। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে, রমনা পার্ক, সহরোওয়ার্দী উদ্যান সহ বিভিন্ন বিনোদন পার্কে নিরাপত্তা নিয়েছি। পোশাকে এবং সাদা পোশাকে নিরাপত্তকর্মীরা উপস্থিত থাকবেন। নিরাপত্তার অংশ হিসেবে ডগস্কয়াড এবং বোমা
ডিসপজল টিম থাকবে। পুরো ভেনু সিসি টিভি দ্বারা নিয়ন্ত্রণ থাকবে। নিয়ন্ত্রণ কক্ষে থেকে নিয়ন্ত্রণ করা হবে।মানুষ হেটে হেটে নেচে গেয়ে উৎসাহ উদ্দীপনা করে উসৎবস্থলে ঢুকবে পারবে। তল্লাশির মধ্য দিয়ে প্রবেশ করে আনন্দে মেতে ওঠতে পারবে।
সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার বলেন, নিরপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হবে। প্রতিটি ভেনুতে থাকবে আর্চওয়ায়ে। প্রশিক্ষিত পুরুষ এবং নারী পুলিশ সদস্য থাকবে। বিশেষায়িত সোয়াত টিম বোমা ডিসপজল টিম এবং ডগস্কয়াড, জলযান নৌটহল, ডুবুরি দল এবং ফায়ার সার্ভিসের দল। উৎসবে আসা সাধারণ মানুষের প্রয়োজনী মেডিকেল ব্যবস্থা থাকবে। আমাদের পুনাঙ্গ পরিকল্পনা করা হয়েছে। ইভটিজিং প্রতিরোধ করা হকার
উচ্ছেদ এবং পকেটমার নিয়ন্ত্রণে থাকেব ঢাকা মহারগর পুলিশের বিশেষায়িত টিম সোয়াত। আর্চওয়ে থাকেব ছায়ানটে। নিশ্চিদ্র নিরাপত্তায় নিয়োজিত করা হবে। মঙল শোভা যাত্রায় পুলিশ প্রহরা থাকবে। পথে কেউ মঙল শোভাযাত্রায় প্রবেশ করতে পারেব না। যারা মাস্ক ব্যবহার করবেন না। হাতে ধরে রাখা যাবে। যারা মাস্ক ব্যবহার করবেন তাদের একটি তালিকা দেবেন চারুকলা ইনিস্টিটিউট থেকে। কেউ কোন বাণিজ্যিক ব্যানার
দিয়ে মঙলশোভাযাত্রায় প্রবেশ করতে পারবেন না। রমনা পার্ক সহরোওয়ার্দী উদ্যানে মাইকের মধ্যে নিয়ে আসব।
সংবাদ সম্মেলনে আছাদুজ্জামান মিয়া বলেছেন, ইতোমধ্যে বলা হয়েছে রমনা পার্কে তিনটি প্রবেশ এবং তিনটি বাইরের গেট থাকবে। সকালে মানুষের চাপ থাকলে প্রবেশ গেটেও বাহির গেট হিসেবে ব্যবহার করা যাবে। বিকাল পাঁচটার মধ্যে উন্মক্তস্থানে কর্মসূচি শেষ করতে হবে। সম্মিলিত সাস্কৃতিক জোট সন্ধ্যা সাতটার মধ্যে তাদের অনুষ্ঠান শেষ কবেন। আগামী ১৪ এপ্রিল রাতে পবিত্র শবে মিরাজ। শবে মিরাজের রাতে মুসলমান
ধর্মপ্রাণ মানুষ যাতে ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করতে পারেন সে ব্যবস্থা করা হবে।
সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপি কমিশনার বলেন, পহেলা বৈশাখের অনুষ্ঠানে দা,কাচি,ছুরি দাহ্য পদার্থ বহন করা যাবে না। কেউ যদি ব্যগ নিয়ে আসে ধাতববস্তু বহন করা যাবেনা। প্রতিটি অনুষ্ঠান থাকবে ধুমপান মুক্ত। ইভটিজিং প্রতিরোধে থাকবে ভ্রাম্যমান আদালত। প্রতিটি অনুষ্ঠানে ভুভুজেলা নিষিদ্ধ থাকবে।
সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা নগরীর পুলিশ প্রধান বলেন, আমরা শুধু নিরাপত্তাই দেবেনা। পহেলা বৈশাখে আসা আমরা আটটি স্থানে সুপ্রিয় পানি বিতরণ করা হবে। প্রবেশ ফটকে বৈশাখে আসা সাধারণ মানুষকে ফুলেল শুভেচ্ছ জানানো হবে তাদের বাতাশা সাজ বাতাশার মাধ্যমে ভালবাসা জানানো হবে। পবিত্র শবে মিরাজে যাবে তাদের ধর্মী উৎসব পালন করতে পারে সেই ব্যবস্থা করা হবে।
সাংবাদিককের এক প্রশ্নের জবাবে ডিএমপি কমিশনার বলেন, বিশ্বায়নের যুগে সব ধরনের ব্যবস্থাকে মাথায় রেখেই ব্যবস্থা নিতে হয়। কোন নিরাপত্তার হুমকি নেই।
কোটা বিরোধী আন্দোলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বাড়িতে হামলা পুলিশের উপরে হামলার ঘটনায় পুলিশের তিনটি মামলা বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে একটি মোট চারটি মামলা করা হয়েছে। এই মামলার তদন্ত দ্রুত শেষ না হলে সাদারণ নাগরিকেরা নিরাপত্তা হীনতা বোধ করবেন সাংবাদিকের এমন প্রশ্নের জবাবে
আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, দেখেন কেউই আইনের ঊর্দ্ধে নয়। গতকাল সংসদে এ ব্যাপারে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এর আগে সড়ক মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের কথা বলেছেন। ডিএমপি কমিশনার হিসেবে আমিও বলতে চাই কোটা বিরোধী আন্দোলনকে কেন্দ করে যা কিছু হয়েছে তা ছিল অনাকাঙ্খিত,আমি দু:খিত। ভিসি বাসায় যে হামলা হয়েছে সেখান থেকে সিসি ক্যামেরায় ধারন করা ভিডিও ফুটেজ চুরি করে নিয়ে গেছে এটা পেশাদার
লোকের কাজ। আমাদের প্রশিক্ষিত মেধা কর্মকর্তারা তদন্ত করছেন। অপরাধীদের খুজে বের করে আইনের আওতায় আনা হবে।
এরআগে ডিএমপির রমনা বিভাগের উপ কমিশনার মো. মারুফ হোসেন সরদার এবং ঢাকা মহানগর ট্রাফিক পুলিশের দক্ষিণ বিভাগের উপকমিশনার তাদের করনীয় সম্পর্কে বক্তব্য উপস্থপন করেন।
সংবাদ সম্মেলনে আরো উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মো.মনিরুল ইসলাম কৃষ্ণপদ রায়, মীর রেজাউল আলম,যুগ্ম কমিশনার শেখ নাজমুল আলম, আবদুল বাতেন, রমনা বিভাগের উপ কমিশনার মো. মারুফ হোসেন সরদার, সিরিয়াস ক্রাইমের উপপকমিশনার মোদাচ্ছের হোসেন, জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার উপকমিশনার মো. মাসুদুর রহমান, ট্রাফিক দক্ষিণ বিভাগের উপকমিশনার এসএম মুরাদ
আলিম সহ ঊর্দ্ধতন পুলিশ কর্মকর্তারা।

মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,বৃহস্পতিবার,১২ এপ্রিল , এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY Abir bbm