রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে যাত্রীবেশে অবস্থান করতো একটি ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা-মুফতি মাহমুদ খান

নিজস্ব প্রতিবেদক: ছিনতাইয়ের কৌশল হিসেবে একটি ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে যাত্রীবেশে অবস্থান করতো। তারা কখনো বিমানবন্দরে বিদেশ ফেরত যাত্রীদের টার্গেট করে ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ডের পিন নম্বর নিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিতো। আবার কখনো আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে মাসোয়ারা আদায় করতো।
আজ বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল ২০১৮) বেলা সোয়া ১ টার সময়ে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান।
বুধবার (১১ এপ্রিল) ও বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর রূপনগর ও সাভার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ছিনতাইকারী চক্রের ছয় সদস্যকে আটকের বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। আটককৃতরা হলেন- মো. আনিসুর রহমান, মো. আরিফুল ইসলাম, খালেদুল ইসলাম বাপ্পি, আব্দুর রহমান, জানু মিয়া ও মো. শাহজাহান মিয়া। এসময় তাদের কাছ থেকে ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত দু’টি নকল ওয়াকিটকি সেট, দু’টি বুট, পুলিশের দু’টি নকল আইডি কার্ড, একটি ধারালো ছুরি, আটটি মোবাইল, বিদেশি পিস্তল, প্রাইভেটকার এবং এক হাজার ৫শ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে মুফতি মাহমুদ খান বলেন, আনিসুর ওই চক্রের মূল হোতা। তারা ২০০৯ সাল থে‌কে এ চক্রের সঙ্গে জ‌ড়িত। আ‌নিসুর তার নিজের প্রাইভেটকার ছিনতাই কাজে ব্যবহার করতো। আ‌রিফুল প্রথমে গার্মেন্টস শ্রমিক ছিলো, কিন্তু পরে প্রাইভেটকার চালানো শিখে এ চক্রে জ‌ড়িয়ে পড়ে।
সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি বলেন, খালেদুল একজন জুয়েলা‌রি ব্যবসায়ী। সে ছিনতাইয়ের স্বর্ণ তার নিজের দোকানে এনে বি‌ভিন্ন লেনদেনের সময় তারা টার্গেট করে ছিনতাই করে। ছিনতাইয়ের সময় তারা ভিক‌টিমদের ওপর কে‌মিক্যাল ব্যবহার করে। এতে অনেক সময় ভিক‌টিমদের অনেক বড় ধরনের শা‌রী‌রিক ক্ষ‌তিও হয়।এছাড়াও চক্রটি যাত্রীদের কাছ থেকে অর্থ ও মূল্যবান জিনিসপত্র নেওয়া ছাড়াও তাদের ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ডেরর পিন নাম্বার নিয়ে এটিএম বুথ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিতো। যারা পিন নম্বর দিতো না তাদের শারীরিক নির্যাতন করতো।
সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক মুফতি মাহমুদ বলেন, চক্রটি বিভিন্ন স্থানে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয় দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে মাসোয়ারা আদায় করতো। ঢাকার বিভিন্ন অর্থশালী ব্যক্তির গতিবিধি দীর্ঘদিন ধরে অনুসরণ করে সুযোগ বুঝে ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে মোটা অংকের টাকা আদায় করতো।
আটকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান মুফতি মাহমুদ খান।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- র‌্যাব-১ অধিনায়ক লে.কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম,র‌্যাব-১ এর অপারেশন অফিসার সামিরা সুলতানা, উপপরিচালক মো. মাহবুব আলম, র‌্যাবের পরিদর্শক জুলহাস সহ র‌্যাবের ঊর্দ্ধতন কর্মকতর্রা ।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,বৃহস্পতিবার,১২ এপ্রিল , এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» ডিএমপি শুধু বাংলাদেশের গর্ব নয়,পৃথিবীর ইতিহাসে লেখা থাকবে তাদের নাম-সাবের হোসেন চৌধুরী

» বাগেরহাটে শরণখোলায় দুর্বৃত্তের ধারালো রাম দায়ের কোপে এক নারীর বাম পা বিচ্ছিন্ন

» কলাপাড়ার মহিপুর এসআরওএসবি সমিতি নির্বাচন অনুষ্ঠিত

» মুক্তিযোদ্ধা কোটা বহাল রাখার দাবিতে গণসমাবেশ করেছেন মুক্তিযোদ্ধার সন্তানেরা।

» খালেদা জিয়া আগামী নির্বাচনে অংশ নিতে পারবে কি না, তা আদালত নির্ধারণ করবেন

» মাদকমুক্ত সমাজ গড়তে পুলিশ নিরলস কাজ করে যাচ্ছে-ডিএমপি কমিশনার

» বেগম খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্যের অবনতি ঘটলে তার দায়-দায়িত্ব পুরোটাই সরকারকে বহন করতে হবে

» রাজধানীতে এবার বিআরটিসির বাসের চাপায় পা হারালেন এক নারী।

» যুক্তরাজ্যের রানি দ্বিতীয় এলিজাবেথের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা

» কিশোরগঞ্জে বড় ভাই এর ছুরিকাঘাতে ছোট ভাই নিহত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে যাত্রীবেশে অবস্থান করতো একটি ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা-মুফতি মাহমুদ খান

নিজস্ব প্রতিবেদক: ছিনতাইয়ের কৌশল হিসেবে একটি ছিনতাইকারী চক্রের সদস্যরা রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে যাত্রীবেশে অবস্থান করতো। তারা কখনো বিমানবন্দরে বিদেশ ফেরত যাত্রীদের টার্গেট করে ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ডের পিন নম্বর নিয়ে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিতো। আবার কখনো আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্য পরিচয়ে বিভিন্ন জনের কাছ থেকে মাসোয়ারা আদায় করতো।
আজ বৃহস্পতিবার (১২ এপ্রিল ২০১৮) বেলা সোয়া ১ টার সময়ে রাজধানীর কারওয়ান বাজারের র‍্যাবের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি মাহমুদ খান।
বুধবার (১১ এপ্রিল) ও বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজধানীর রূপনগর ও সাভার এলাকায় অভিযান চালিয়ে ছিনতাইকারী চক্রের ছয় সদস্যকে আটকের বিষয়ে বিস্তারিত জানাতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়। আটককৃতরা হলেন- মো. আনিসুর রহমান, মো. আরিফুল ইসলাম, খালেদুল ইসলাম বাপ্পি, আব্দুর রহমান, জানু মিয়া ও মো. শাহজাহান মিয়া। এসময় তাদের কাছ থেকে ছিনতাই কাজে ব্যবহৃত দু’টি নকল ওয়াকিটকি সেট, দু’টি বুট, পুলিশের দু’টি নকল আইডি কার্ড, একটি ধারালো ছুরি, আটটি মোবাইল, বিদেশি পিস্তল, প্রাইভেটকার এবং এক হাজার ৫শ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট জব্দ করা হয়।
সংবাদ সম্মেলনে মুফতি মাহমুদ খান বলেন, আনিসুর ওই চক্রের মূল হোতা। তারা ২০০৯ সাল থে‌কে এ চক্রের সঙ্গে জ‌ড়িত। আ‌নিসুর তার নিজের প্রাইভেটকার ছিনতাই কাজে ব্যবহার করতো। আ‌রিফুল প্রথমে গার্মেন্টস শ্রমিক ছিলো, কিন্তু পরে প্রাইভেটকার চালানো শিখে এ চক্রে জ‌ড়িয়ে পড়ে।
সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক কমান্ডার মুফতি বলেন, খালেদুল একজন জুয়েলা‌রি ব্যবসায়ী। সে ছিনতাইয়ের স্বর্ণ তার নিজের দোকানে এনে বি‌ভিন্ন লেনদেনের সময় তারা টার্গেট করে ছিনতাই করে। ছিনতাইয়ের সময় তারা ভিক‌টিমদের ওপর কে‌মিক্যাল ব্যবহার করে। এতে অনেক সময় ভিক‌টিমদের অনেক বড় ধরনের শা‌রী‌রিক ক্ষ‌তিও হয়।এছাড়াও চক্রটি যাত্রীদের কাছ থেকে অর্থ ও মূল্যবান জিনিসপত্র নেওয়া ছাড়াও তাদের ডেবিট ও ক্রেডিট কার্ডেরর পিন নাম্বার নিয়ে এটিএম বুথ থেকে মোটা অংকের টাকা হাতিয়ে নিতো। যারা পিন নম্বর দিতো না তাদের শারীরিক নির্যাতন করতো।
সংবাদ সম্মেলনে র‍্যাবের লিগ্যাল অ্যান্ড মিডিয়া উইংয়ের পরিচালক মুফতি মাহমুদ বলেন, চক্রটি বিভিন্ন স্থানে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পরিচয় দিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে মাসোয়ারা আদায় করতো। ঢাকার বিভিন্ন অর্থশালী ব্যক্তির গতিবিধি দীর্ঘদিন ধরে অনুসরণ করে সুযোগ বুঝে ডিবি পরিচয়ে তুলে নিয়ে মোটা অংকের টাকা আদায় করতো।
আটকদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন বলেও জানান মুফতি মাহমুদ খান।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন- র‌্যাব-১ অধিনায়ক লে.কর্নেল সারওয়ার বিন কাশেম,র‌্যাব-১ এর অপারেশন অফিসার সামিরা সুলতানা, উপপরিচালক মো. মাহবুব আলম, র‌্যাবের পরিদর্শক জুলহাস সহ র‌্যাবের ঊর্দ্ধতন কর্মকতর্রা ।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,বৃহস্পতিবার,১২ এপ্রিল , এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY Abir bbm