আসন্ন রমজানকে সামনে রেখে চাঁদাবাজি কঠোরভাবে দমন করা হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, আসন্ন রমজানকে সামনে রেখে চাঁদাবাজি রোধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাশাপাশি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহনকারী ট্রাক ও ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করতে দেওয়া হবে না।
আজ রোববার (এপ্রিল ১৫, ২০১৮) দুপুরে রাজধানীর ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) মিলনায়তননে রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে এক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন মন্ত্রী। সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আসন্ন রমজান মাসকে সামনে রেখে আমরা কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে। ব্যবসায়ীরা রমজান মাসে যেন নির্বিঘ্নে পণ্য আনা-নেওয়া ও সরবরাহ করতে পারে সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পরিবহন সেবায় চাঁদাবাজি ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কাউকেই সন্ত্রাসী করতে দেওয়া হবে না। কিন্তু কেউ চাঁদাবাজি করতে আসলে আমাদের জানানোর জন্য অনুরোধ করছি।
এসময় ব্যবসায়ী নেতারা অভিযোগ করে বলেন, রমজানের সময় রাস্তাঘাট থেকে শুরু করে বিভিন্ন জায়গায় পণ্য আনা-নেওয়া কাজে ব্যবহৃত ট্রাক ও ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করে একটি প্রভাবশালী মহল। এতে রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দামের ওপর প্রভাব পড়ে। ব্যবসায়ীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অনেক সময় দেখা যায় পণ্যের আনা-নেওয়া কাজে ব্যবহৃত গাড়ির চালকের কাছে লাইন্সেন, রোড পারমিট থাকে না এবং তারা অতিরিক্ত পণ্য নিয়ে গাড়ি চালান।
সে ক্ষেত্রে রাস্তা ট্রাফিক পুলিশ গাড়ি থামিয়ে চেক করেন। চালকদের যদি এসব ঠিক থাকতো তাহলে তো গাড়ি থামানোর কোনো প্রয়োজন হত না এবং চাঁদাবাজিরও হতো না।
সভায় মন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন সময় পরিবহনে মাদকপাচারের তথ্য থাকে। তাই গাড়ি থামিয়ে চেক করা হয়। কয়েকজন চাঁদাবাজ পুলিশ যে নেই তেমন নয়। তবে পুলিশ রক্ত দিয়েও কিন্তু আপনাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে। এ সময় সভায় ভেজাল খাবারের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, খাবারে ভেজাল কিন্তু পুলিশ বা সরকারি কর্মচারীরা দেন না। খাবারে ভেজাল আপনারা (ব্যবসায়ীরা) দেন। কিন্তু ভেজাল খাবার বিক্রি করা ব্যবসায়ীদের আটকের পর
এমন এমন জায়গা থেকে তদবির আসে তা বলা মুশকিল। তাই আমি আপনাদের বলবো নিজেরা ঠিক হন। এর আগে মতবিনিময় সভায় মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড.মো. জিয়া রহমান।
ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি আয়োজিত রমজান মাসে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য সহনীয় রাখার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে এলাকা ভিত্তিক ও বিশেষায়িত ব্যবসায়ী সমিতিগুলোর সঙ্গে মত বিনিময় শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, তারা (কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন করা শিক্ষার্থীরা) দাবি করতেই পারেন, কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষাকের বাড়িতে এভাবে ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ
ও লুটপাট এর আগে কখনও আমরা দেখিনি। এ কারণে যারা অন্যায় করেছে তাদের শাস্তি হবে। মন্ত্রী বলেন,এ ঘটনায় আইসিটি আইনসহ ৫টি মামলা হয়েছে। মামলাগুলোর এখন তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে এ বিষয়ে কথা বলা যাবে। অন্যায় করলে তার শাস্তি পেতে হবে।
প্রসঙ্গত, ৮ এপ্রিল রাত ১টার দিকে এক থেকে দুই হাজার বিক্ষোভকারী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের বাসভবনে প্রবেশ করে। তারা মূল গেট ভেঙে ফেলে এবং দেয়ালের তারকাঁটা ভেঙে বাসায় ঢুকে পড়ে। তাদের হাতে রড, হকিস্টিক, লাঠি ও বাঁশ ছিল। উপাচার্যের বাসভবনের তার ব্যাপক ভাঙচুর
করে। এছাড়া, বাসভবনে থাকা গাড়ি ও আশপাশে একাধিক মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,রোববার,১৫ এপ্রিল , এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» চট্টগ্রামে দুর্ঘটনার কবলে ইউএস বাংলার বিমান শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ

» খালেদার জামিন বহাল এবং আদালতের প্রতি অনাস্থার আদেশ আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর

» জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ায় পাঁচমিশালি নেতৃত্বে জনগণের আস্থা নাই

» বাউফলে চীফ হুইপের সাথে পেশাজীবীদের প্রাপ্তি ও প্রত্যাশা শীর্ষক মতবিনিময় সভা

» বুধবার ২৬ সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে ভাসাভি স্কুল কাবাডি প্রতিযোগিতা-২০১৮

» মৌসুমের সেরা খেলোয়াড় এবং কোচের পুরস্কার প্রদান করেছে ফিফা।

» ঢাবি ‘খ’ ইউনিটের প্রথম বর্ষ স্নাতক সম্মান শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষার ফল প্রকাশ উত্তীর্ণ ১৪ শতাংশ

» আগামী ২৯ সেপ্টেম্বর সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে বিএনপির জনসভা

» চট্টগ্রামে ট্রাক চাপায় দু’টি সিএনজি অটোরিকশার চালকসহ ৫ জন নিহত

» রোহিঙ্গা সঙ্কট নিরসনে তিনটি প্রস্তাব তুলে ধরেছেন প্রধানমন্ত্রী

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

আসন্ন রমজানকে সামনে রেখে চাঁদাবাজি কঠোরভাবে দমন করা হবে-স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিবেদক: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, আসন্ন রমজানকে সামনে রেখে চাঁদাবাজি রোধে কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে। পাশাপাশি নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্য পরিবহনকারী ট্রাক ও ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করতে দেওয়া হবে না।
আজ রোববার (এপ্রিল ১৫, ২০১৮) দুপুরে রাজধানীর ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রির (ডিসিসিআই) মিলনায়তননে রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য সহনীয় পর্যায়ে রাখার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের বিষয়ে এক মতবিনিময় সভায় এ কথা বলেন মন্ত্রী। সভায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আসন্ন রমজান মাসকে সামনে রেখে আমরা কঠোর ব্যবস্থা নিচ্ছে। ব্যবসায়ীরা রমজান মাসে যেন নির্বিঘ্নে পণ্য আনা-নেওয়া ও সরবরাহ করতে পারে সেই লক্ষ্যে আমরা কাজ করে যাচ্ছি। রমজানে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের পরিবহন সেবায় চাঁদাবাজি ও ব্যবসায়ীদের সঙ্গে কাউকেই সন্ত্রাসী করতে দেওয়া হবে না। কিন্তু কেউ চাঁদাবাজি করতে আসলে আমাদের জানানোর জন্য অনুরোধ করছি।
এসময় ব্যবসায়ী নেতারা অভিযোগ করে বলেন, রমজানের সময় রাস্তাঘাট থেকে শুরু করে বিভিন্ন জায়গায় পণ্য আনা-নেওয়া কাজে ব্যবহৃত ট্রাক ও ব্যবসায়ীদের কাছ থেকে চাঁদাবাজি করে একটি প্রভাবশালী মহল। এতে রমজান মাসে নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের দামের ওপর প্রভাব পড়ে। ব্যবসায়ীদের অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, অনেক সময় দেখা যায় পণ্যের আনা-নেওয়া কাজে ব্যবহৃত গাড়ির চালকের কাছে লাইন্সেন, রোড পারমিট থাকে না এবং তারা অতিরিক্ত পণ্য নিয়ে গাড়ি চালান।
সে ক্ষেত্রে রাস্তা ট্রাফিক পুলিশ গাড়ি থামিয়ে চেক করেন। চালকদের যদি এসব ঠিক থাকতো তাহলে তো গাড়ি থামানোর কোনো প্রয়োজন হত না এবং চাঁদাবাজিরও হতো না।
সভায় মন্ত্রী বলেন, বিভিন্ন সময় পরিবহনে মাদকপাচারের তথ্য থাকে। তাই গাড়ি থামিয়ে চেক করা হয়। কয়েকজন চাঁদাবাজ পুলিশ যে নেই তেমন নয়। তবে পুলিশ রক্ত দিয়েও কিন্তু আপনাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করে। এ সময় সভায় ভেজাল খাবারের বিষয়ে মন্ত্রী বলেন, খাবারে ভেজাল কিন্তু পুলিশ বা সরকারি কর্মচারীরা দেন না। খাবারে ভেজাল আপনারা (ব্যবসায়ীরা) দেন। কিন্তু ভেজাল খাবার বিক্রি করা ব্যবসায়ীদের আটকের পর
এমন এমন জায়গা থেকে তদবির আসে তা বলা মুশকিল। তাই আমি আপনাদের বলবো নিজেরা ঠিক হন। এর আগে মতবিনিময় সভায় মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অপরাধতত্ত্ব বিভাগের অধ্যাপক ড.মো. জিয়া রহমান।
ঢাকা চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রি আয়োজিত রমজান মাসে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্য সহনীয় রাখার পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ নিয়ে এলাকা ভিত্তিক ও বিশেষায়িত ব্যবসায়ী সমিতিগুলোর সঙ্গে মত বিনিময় শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, তারা (কোটা সংস্কারের দাবিতে আন্দোলন করা শিক্ষার্থীরা) দাবি করতেই পারেন, কিন্তু বিশ্ববিদ্যালয়ের একজন শিক্ষাকের বাড়িতে এভাবে ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ
ও লুটপাট এর আগে কখনও আমরা দেখিনি। এ কারণে যারা অন্যায় করেছে তাদের শাস্তি হবে। মন্ত্রী বলেন,এ ঘটনায় আইসিটি আইনসহ ৫টি মামলা হয়েছে। মামলাগুলোর এখন তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে এ বিষয়ে কথা বলা যাবে। অন্যায় করলে তার শাস্তি পেতে হবে।
প্রসঙ্গত, ৮ এপ্রিল রাত ১টার দিকে এক থেকে দুই হাজার বিক্ষোভকারী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. মো. আখতারুজ্জামানের বাসভবনে প্রবেশ করে। তারা মূল গেট ভেঙে ফেলে এবং দেয়ালের তারকাঁটা ভেঙে বাসায় ঢুকে পড়ে। তাদের হাতে রড, হকিস্টিক, লাঠি ও বাঁশ ছিল। উপাচার্যের বাসভবনের তার ব্যাপক ভাঙচুর
করে। এছাড়া, বাসভবনে থাকা গাড়ি ও আশপাশে একাধিক মোটরসাইকেলে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,রোববার,১৫ এপ্রিল , এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY Abir bbm