না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রখ্যাত চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান

Spread the love

দশবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রখ্যাত চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান না ফেরার দেশে চলে গেলেন।বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) দিনগত রাত ১২টা ২৬মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন…)। মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেন মাহফুজুর রহমান খানের ভাতিজা শাহাদাত রহমান খান।শাহাদাত রহমান জানান, শুক্রবার জুমার নামাজের পর চকবাজারের শাহী মসজিদে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর বিকাল তিনটায় দীর্ঘদিনের কর্মস্থল বিএফডিসিতে নেয়া হবে, সেখানে তার দ্বিতীয় জানাজা হবে। এরপর মাহফুজুর রহমান খানকে আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হবে।
গত ২৫ নভেম্বর রাতের খাবার খাওয়ার সময় মাহফুজুর রহমান খান হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন তার নাক ও মুখ দিয়ে রক্ত পড়তে শুরু করে। পরে তাকে রাজধানীর গ্রিন লাইফ হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।

গত ৩০ নভেম্বর মাহফুজুর রহমান খানের অবস্থা বেগতিক দেখে চিকিৎসকদের পরামর্শে সেখান থেকে ইউনাইটেড হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। আর এখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মাহফুজুর রহমান খান অসংখ্য চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করেছেন। স্বীকৃতি স্বরূপ দশবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, আটবার বাচসাস এবং একবার বিশেষ বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার পেয়েছেন।

১৯৪৯ সালের ১৯ মে পুরান ঢাকার হেকিম হাবিবুর রহমান রোডের এক বনেদি পরিবারে মাহফুজুর রহমান খান জন্মগ্রহণ করেন। পেশাদার চিত্রগ্রাহক হিসেবে তিনি ১৯৭২ সালে প্রথম চলচ্চিত্রে কাজ করেন। তিনি আলমগীর কবির, আলমগীর কুমকুম, হুমায়ুন আহমেদ, শিবলি সাদিকদের মতো চলচ্চিত্র পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করেছেন।

তার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত সিনেমাগুলো হলো- অভিযান (১৯৮৪), সহযাত্রী (১৯৮৭), পোকামাকড়ের ঘরবসতি (১৯৯৬), শ্রাবণ মেঘের দিন (১৯৯৯), দুই দুয়ারী (২০০০), হাজার বছর ধরে (২০০৫), আমার আছে জল (২০০৮), বৃত্তের বাইরে (২০০৯), ঘেটুপুত্র কমলা (২০১২) ও পদ্ম পাতার জল (২০১৫)।

চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করার আগে তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয়ও করেছেন। ‘দাবি’ ও ‘চল ঘর বাঁধি’সহ বেশকিছু চলচ্চিত্রে নায়ক হিসেবে তাকে পাওয়া গেছে।

বিনোধন ডেস্ক:,শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» পাকিস্তানের বিপক্ষে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৪১ রানে করে রিয়াদ বাহিনী

» চট্টগ্রামের মির্জাপোল বস্তিতে ভয়াবহ আগুন পুড়ে গেছে আড়াইশ ঘর

» বিএনপি জিতবে না জেনেই ইভিএম নিয়ে নানা ধরনের কথা বলছে-বায়দুল কাদের

» ঢাকা থেকে দুঃশাসন ও দুর্নীতি দূর করতে ধানের শীষে ভোট দেয়ার আহ্বান মেয়র প্রার্থী তাবিথ আউয়াল

» গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় বঙ্গবন্ধুর সমাধিতে ফুল দিয়ে শ্রদ্ধা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী

» মিয়ানমারের রোহিঙ্গা গণহত্যা মামলা চলবে-আন্তর্জাতিক বিচার আদালত

» আধুনিক শক্তিশালী সশস্ত্র বাহিনী গড়তে সেনা নৌ ও বিমান বাহিনীকে একযোগে উন্নত করা হবে: প্রধানমন্ত্রী

» দুর্নীতিগ্রস্ত দেশের তালিকায় ১৪তম অবস্থানে উঠেছে বাংলাদেশ-টিআইবি

» বসানো হলো পদ্মা সেতুর ২২তম স্প্যান,দৃশ্যমান হলো ৩ হাজার ৩০০ মিটার

» প্রচার প্রচারণায় বেশ ব্যস্ততা বাড়ছে মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীদের

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শুক্রবার, ২৪ জানুয়ারি ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, ১১ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

না ফেরার দেশে চলে গেলেন প্রখ্যাত চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

দশবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত প্রখ্যাত চিত্রগ্রাহক মাহফুজুর রহমান খান না ফেরার দেশে চলে গেলেন।বৃহস্পতিবার (৫ ডিসেম্বর) দিনগত রাত ১২টা ২৬মিনিটে রাজধানীর ইউনাইটেড হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন…)। মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করেন মাহফুজুর রহমান খানের ভাতিজা শাহাদাত রহমান খান।শাহাদাত রহমান জানান, শুক্রবার জুমার নামাজের পর চকবাজারের শাহী মসজিদে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। এরপর বিকাল তিনটায় দীর্ঘদিনের কর্মস্থল বিএফডিসিতে নেয়া হবে, সেখানে তার দ্বিতীয় জানাজা হবে। এরপর মাহফুজুর রহমান খানকে আজিমপুর কবরস্থানে দাফন করা হবে।
গত ২৫ নভেম্বর রাতের খাবার খাওয়ার সময় মাহফুজুর রহমান খান হঠাৎ অসুস্থ হয়ে পড়েন। তখন তার নাক ও মুখ দিয়ে রক্ত পড়তে শুরু করে। পরে তাকে রাজধানীর গ্রিন লাইফ হাসপাতালে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়।

গত ৩০ নভেম্বর মাহফুজুর রহমান খানের অবস্থা বেগতিক দেখে চিকিৎসকদের পরামর্শে সেখান থেকে ইউনাইটেড হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। আর এখানেই চিকিৎসাধীন অবস্থায় শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। মাহফুজুর রহমান খান অসংখ্য চলচ্চিত্রের চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করেছেন। স্বীকৃতি স্বরূপ দশবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার, আটবার বাচসাস এবং একবার বিশেষ বিভাগে মেরিল-প্রথম আলো পুরস্কার পেয়েছেন।

১৯৪৯ সালের ১৯ মে পুরান ঢাকার হেকিম হাবিবুর রহমান রোডের এক বনেদি পরিবারে মাহফুজুর রহমান খান জন্মগ্রহণ করেন। পেশাদার চিত্রগ্রাহক হিসেবে তিনি ১৯৭২ সালে প্রথম চলচ্চিত্রে কাজ করেন। তিনি আলমগীর কবির, আলমগীর কুমকুম, হুমায়ুন আহমেদ, শিবলি সাদিকদের মতো চলচ্চিত্র পরিচালকদের সঙ্গে কাজ করেছেন।

তার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কারপ্রাপ্ত সিনেমাগুলো হলো- অভিযান (১৯৮৪), সহযাত্রী (১৯৮৭), পোকামাকড়ের ঘরবসতি (১৯৯৬), শ্রাবণ মেঘের দিন (১৯৯৯), দুই দুয়ারী (২০০০), হাজার বছর ধরে (২০০৫), আমার আছে জল (২০০৮), বৃত্তের বাইরে (২০০৯), ঘেটুপুত্র কমলা (২০১২) ও পদ্ম পাতার জল (২০১৫)।

চিত্রগ্রাহক হিসেবে কাজ করার আগে তিনি চলচ্চিত্রে অভিনয়ও করেছেন। ‘দাবি’ ও ‘চল ঘর বাঁধি’সহ বেশকিছু চলচ্চিত্রে নায়ক হিসেবে তাকে পাওয়া গেছে।

বিনোধন ডেস্ক:,শুক্রবার, ৬ ডিসেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com