২০২০ সালে চলমান উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আরও সহায়তা প্রদানের আহ্বান স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

Spread the love

ঢাকা : স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের ঋণ পরিশোধের অভিজ্ঞতা প্রশংসনীয়। আমাদের চলমান উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আরও সহায়তা প্রদান এবং উন্নয়ন সহযোগীদের আগামী দিনগুলোতেও আমাদের সঙ্গে থাকার অনুরোধ করছি।

বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরাম (বিডিএফ)- ২০২০ এর একটি কর্ম-অধিবেশনে বক্তৃতাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তাজুল ইসলাম বলেন, দেশের উন্নয়ন বেগবান করার পাশাপাশি সাধারণ মানুষের স্বপ্ন পূরণের জন্য সরকার ও উন্নয়ন সহযোগীসহ সকল পর্যায়ের স্টেক হোল্ডারদের সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে।

রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, মানবিক কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বিতাড়িত হওয়া রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দিয়েছিলেন, কিন্তু এখন আমরা এটা নিয়ে বড় ধরনের চাপে রয়েছি।

মন্ত্রী বলেন, বিশ্ববাসীকে মিয়ানমার সরকারের ওপর আরও বেশি চাপ তৈরি করতে হবে, যাতে তারা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাধ্য হয়।

শিগগিরই ৮ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা প্রণয়নের কাজ শেষ হবে উল্লেখ করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, আমাদেরকে এমনভাবে পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে হবে, যাতে কৃষিখাতের উন্নয়নের পাশাপাশি দেশের সর্বত্র বিশেষ করে গ্রামীণ এলাকায় টেকসই যোগাযোগ ব্যবস্থা তৈরি হয়।

পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ড. শামসুল আলম তার মূল প্রবন্ধে উল্লেখ করেন, সরকার ৮ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে ২০২৫ সালের মধ্যে দেশের জাতীয় সঞ্চয় জিডিপির ৩৬ দশমিক ২ শতাংশে নিয়ে যেতে চায়। পাশাপাশি এই সময়ের মধ্যে সরকারি বিনিয়োগ জিডিপির ৯ শতাংশ এবং বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ ২৮ দশমিক ২ শতাংশে উন্নীত করা হবে।

তিনি আরও বলেন, ৮ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার দুটি বিষয় হলো- সমৃদ্ধির প্রসার এবং অন্তর্ভুক্তি বাড়ানো। পরিকল্পনার আওতায় ২০২৫ সালের মধ্যে দারিদ্র্য সীমার হার ১১ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং অতি দারিদ্রের হার ৪ দশমিক ৭৮ শতাংশে নিয়ে আসা হবে।

শামসুল আলম জানান, রূপকল্প-২০৪১ প্রণয়নের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে দ্বিতীয় ‘বাংলাদেশ প্রেক্ষিত পরিকল্পনা,২০২১-২০৪১’ শীর্ষক পরিকল্পনা দলিলের খসড়া তৈরি করা হয়েছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনজি তেরিং বলেন, এখনও বাংলাদেশের কর-জিডিপির হার সর্বনিম্ন পর্যায়ে রয়ে গেছে। তিনি অধিক সংখ্যক ইউরোপীয় কোম্পানিকে বাংলাদেশে বিনিয়োগে আকৃষ্ট করার জন্য সরকারকে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়ার পরামর্শ দেন।

আজ বুধবার (২৯ জানুয়ারি) থেকে দুই দিনব্যাপী বিডিএফ-২০২০ শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ এর উদ্বোধন করেন।

‘অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য কার্যকর অংশীজন : অভীষ্ট টেকসই উন্নয়ন অর্জন’ বিষয়ক কর্ম-অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

এই অনুষ্ঠানে অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনজি তেরিং, যুক্তরাজ্যের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ডিএফআইডির ঢাকায় আবাসিক প্রধান জুডিথ হারবার্টসন ও ব্র্যাক গ্লোবাল বোর্ডের চেয়ার আমেরা হক বক্তব্য রাখেন। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,বুধবার, ২৯ জানুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» প্রায় তিন ঘন্টার চেষ্টায় গাজীপুরের টঙ্গীতে তুলার গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে

» বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে ৬ ধাপ অগ্রগতি হয়ে বাংলাদেশ এখন ৩১ নম্বরে

» টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কাভার্ডভ্যান- হিউম্যানহলার সংঘর্ষে ৪ নারী শ্রমিক নিহত

» গাজীপুরের টঙ্গীর মিল গেট এলাকায় তুলার গুদামে আগুন,নিয়ন্ত্রণে ৬ ইউনিট

» মাতৃভাষার অপমান কোনোভাবে সহ্য করা যায় না-প্রধানমন্ত্রী

» বিটিআরসিকে এক হাজার কোটি টাকা দিতে রাজি হয়েছে গ্রামীণফোন

» এসই ফাউন্ডেশন ইউকের এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

» প্রয়োজনিয়তার তাগিদে গ্রামগঞ্জের প্রত্যেকটি ঘরে ঘরে ক্যারাতে তৈরী হোক …চিত্র নায়ক রুবেল

» নিখোঁজ জেলের লাশ উদ্ধার

» দুই লাখ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ধ্বংস

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

২০২০ সালে চলমান উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আরও সহায়তা প্রদানের আহ্বান স্থানীয় সরকারমন্ত্রীর

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

ঢাকা : স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের ঋণ পরিশোধের অভিজ্ঞতা প্রশংসনীয়। আমাদের চলমান উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আরও সহায়তা প্রদান এবং উন্নয়ন সহযোগীদের আগামী দিনগুলোতেও আমাদের সঙ্গে থাকার অনুরোধ করছি।

বুধবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে বাংলাদেশ উন্নয়ন ফোরাম (বিডিএফ)- ২০২০ এর একটি কর্ম-অধিবেশনে বক্তৃতাকালে তিনি এসব কথা বলেন।

তাজুল ইসলাম বলেন, দেশের উন্নয়ন বেগবান করার পাশাপাশি সাধারণ মানুষের স্বপ্ন পূরণের জন্য সরকার ও উন্নয়ন সহযোগীসহ সকল পর্যায়ের স্টেক হোল্ডারদের সমন্বিতভাবে কাজ করতে হবে।

রোহিঙ্গা প্রসঙ্গ উল্লেখ করে তিনি বলেন, মানবিক কারণে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মিয়ানমার থেকে জোরপূর্বক বিতাড়িত হওয়া রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশে আশ্রয় দিয়েছিলেন, কিন্তু এখন আমরা এটা নিয়ে বড় ধরনের চাপে রয়েছি।

মন্ত্রী বলেন, বিশ্ববাসীকে মিয়ানমার সরকারের ওপর আরও বেশি চাপ তৈরি করতে হবে, যাতে তারা রোহিঙ্গাদের ফিরিয়ে নিতে বাধ্য হয়।

শিগগিরই ৮ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা প্রণয়নের কাজ শেষ হবে উল্লেখ করে স্থানীয় সরকার মন্ত্রী বলেন, আমাদেরকে এমনভাবে পরিকল্পনা প্রণয়ন করতে হবে, যাতে কৃষিখাতের উন্নয়নের পাশাপাশি দেশের সর্বত্র বিশেষ করে গ্রামীণ এলাকায় টেকসই যোগাযোগ ব্যবস্থা তৈরি হয়।

পরিকল্পনা কমিশনের সদস্য ড. শামসুল আলম তার মূল প্রবন্ধে উল্লেখ করেন, সরকার ৮ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা বাস্তবায়নের মাধ্যমে ২০২৫ সালের মধ্যে দেশের জাতীয় সঞ্চয় জিডিপির ৩৬ দশমিক ২ শতাংশে নিয়ে যেতে চায়। পাশাপাশি এই সময়ের মধ্যে সরকারি বিনিয়োগ জিডিপির ৯ শতাংশ এবং বেসরকারি খাতের বিনিয়োগ ২৮ দশমিক ২ শতাংশে উন্নীত করা হবে।

তিনি আরও বলেন, ৮ম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনার দুটি বিষয় হলো- সমৃদ্ধির প্রসার এবং অন্তর্ভুক্তি বাড়ানো। পরিকল্পনার আওতায় ২০২৫ সালের মধ্যে দারিদ্র্য সীমার হার ১১ দশমিক ২৫ শতাংশ এবং অতি দারিদ্রের হার ৪ দশমিক ৭৮ শতাংশে নিয়ে আসা হবে।

শামসুল আলম জানান, রূপকল্প-২০৪১ প্রণয়নের লক্ষ্যে ইতোমধ্যে দ্বিতীয় ‘বাংলাদেশ প্রেক্ষিত পরিকল্পনা,২০২১-২০৪১’ শীর্ষক পরিকল্পনা দলিলের খসড়া তৈরি করা হয়েছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনজি তেরিং বলেন, এখনও বাংলাদেশের কর-জিডিপির হার সর্বনিম্ন পর্যায়ে রয়ে গেছে। তিনি অধিক সংখ্যক ইউরোপীয় কোম্পানিকে বাংলাদেশে বিনিয়োগে আকৃষ্ট করার জন্য সরকারকে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেয়ার পরামর্শ দেন।

আজ বুধবার (২৯ জানুয়ারি) থেকে দুই দিনব্যাপী বিডিএফ-২০২০ শুরু হয়েছে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আজ এর উদ্বোধন করেন।

‘অষ্টম পঞ্চবার্ষিক পরিকল্পনা বাস্তবায়নের জন্য কার্যকর অংশীজন : অভীষ্ট টেকসই উন্নয়ন অর্জন’ বিষয়ক কর্ম-অধিবেশনে সভাপতিত্ব করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব খন্দকার আনোয়ারুল ইসলাম।

এই অনুষ্ঠানে অর্থ সচিব আব্দুর রউফ তালুকদার, পররাষ্ট্র সচিব মাসুদ বিন মোমেন, বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত রেনজি তেরিং, যুক্তরাজ্যের আন্তর্জাতিক উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ডিএফআইডির ঢাকায় আবাসিক প্রধান জুডিথ হারবার্টসন ও ব্র্যাক গ্লোবাল বোর্ডের চেয়ার আমেরা হক বক্তব্য রাখেন। এতে মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন পরিকল্পনা কমিশনের সাধারণ অর্থনীতি বিভাগের সদস্য ড. শামসুল আলম।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,বুধবার, ২৯ জানুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com