বাঙালি জাতি কখনই স্বৈরতন্ত্রকে মেনে নেয়নি, নেবেও না-ড. কামাল হোসেন

Spread the love

জনগণকে বঞ্চিত করে এখানে কেউ স্বৈরতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে পারেনি। আজকে যারা ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে, তাদের সেই ইতিহাসের দিকে তাকিয়ে দেখা উচিত। বাঙালি জাতি কখনই স্বৈরতন্ত্রকে মেনে নেয়নি, নেবেও না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন।শনিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১টার দিকে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাবাসের দুই বছর এবং মুক্তির দাবিতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এ প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতা কুক্ষিগত করে রেখেছে এ অভিযোগ করে ড. কামাল হোসেন বলেন, মানুষকে বঞ্চিত করে স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন করবে, এটা একটা প্রহসন। অর্থাৎ যারা প্রহসন করে এসেছে তাদের এখন সময় এসেছে সহজ ভাষায় বলা-সরে দাঁড়াও, সরে দাঁড়াও, সরে দাঁড়াও।ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘দেশের ১৬ কোটি মানুষের অধিকার হচ্ছে, দেশে গণতন্ত্র থাকবে। প্রকৃত অর্থে নির্বাচিত সদস্যরা দেশ পরিচালনা করবেন। সেখানে আজকে আমাদের গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করতে হচ্ছে। ঐক্যবদ্ধ হয়ে আমাদের নিজের অধিকার আদায় করে নিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘দেশের ইতিহাস থেকে আমরা দেখেছি, জনগণকে বঞ্চিত করে এখানে কেউ স্বৈরতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে পারেনি। আজকে যারা ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে, তাদের সেই ইতিহাসের দিকে তাকিয়ে দেখা উচিত। বাঙালি জাতি কখনই স্বৈরতন্ত্রকে মেনে নেয়নি, নেবেও না।’

ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘সংবিধান অনুযায়ী দেশের প্রকৃত মালিক জনগণ। মালিক হিসেবে দেশের জনগণকে যেন সম্মান জানানো হয়। মালিক হিসেবে দেশের জনগণ যেন ভূমিকা রাখতে পারে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। লাখ লাখ মানুষ জীবন দিয়ে জনগণের এ অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছেন। দেশের জনগণকে বঞ্চিত করে সরকার দেশ চালাচ্ছে, এটা আমরা মেনে নিতে পারি না।’

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতার ৫০ বছর হতে যাচ্ছে। এটা আমাদের জন্য লজ্জার ব্যাপার। সরকার জোর করে ক্ষমতা দখল করে দেশের মানুষকে বঞ্চিত করছে। সরকার স্বাধীনতার ৫০ বছর পালন করতে যাচ্ছে। মানুষকে বঞ্চিত করে স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন এটা একটা প্রহসন। যারা এ প্রহসন করছে জনগণের সঙ্গে এখন সময় এসেছে তাদের সহজ ভাষায় বলার, সরে দাঁড়াও, সরে দাঁড়াও, সরে দাঁড়াও।’ ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘ক্ষমতা আত্মসাৎ করে, স্বৈরতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়ার যে অপচেষ্টা চলছে, যেভাবে দুর্নীতি, কুশাসন, যেভাবে মানুষের বিরুদ্ধে অত্যাচার চলছে, লাখ লাখ মিথ্যা মামলা দেওয়া এটা আর মেনে নেওয়া যায় না। এমন স্বৈরতন্ত্রের মাধ্যমে দেশের মানুষ ও শহীদদের প্রতিও অসম্মান জানানো হচ্ছে।’

দেশের জনগণের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘যে দেশ লাখ লাখ প্রাণের বিনিময়ে স্বাধীন হয়েছে, সেই দেশে আমাদের দাবি আদায়ের জন্য সভা করতে হয়, এটা দুঃখের বিষয়। এখন আমাদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনকে সামনে রেখে মাঠে নামতে হবে এবং আমরা আমাদের দাবি-ধাওয়া অর্জন করে ছাড়বো। যারা দেশের ক্ষমতাকে আত্মসাৎ করেছে তাদের চিহ্নিত করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে বিতাড়িত করতে হবে।’

খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘স্বাধীনতার এতোদিন পরেও দেশে বিরোধীদলের নেতা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সভা করতে হবে, দাবি করতে হবে, এটা অকল্পনীয়-কষ্টের বিষয়।’
কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে ও জাহাঙ্গীর আলম প্রধানের সঞ্চালনায় এই প্রতিবাদ সভায় বিএনপির আবদুল মঈন খান, গণফোরামের সুব্রত চৌধুরী, মহসিন রশিদ, জগলুল হায়দার আফ্রিক, মোশতাক হোসেন, নাগরিক ঐক্যের শহীদুল্লাহ কায়সার, মমিনুল ইসলাম, জেএসডির শাহ আকম আনিসুর রহমান খান, বিকল্পধারার নুরুল আমিন ব্যাপারী, শাহ আহমেদ বাদল, গণ দলের গোলাম মাওলা চৌধুরীও বক্তব্য রাখেন।
ঢাকা,শনিবার,০৮ জানুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» প্রায় তিন ঘন্টার চেষ্টায় গাজীপুরের টঙ্গীতে তুলার গুদামের আগুন নিয়ন্ত্রণে

» বৈশ্বিক সন্ত্রাসবাদ সূচকে ৬ ধাপ অগ্রগতি হয়ে বাংলাদেশ এখন ৩১ নম্বরে

» টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কাভার্ডভ্যান- হিউম্যানহলার সংঘর্ষে ৪ নারী শ্রমিক নিহত

» গাজীপুরের টঙ্গীর মিল গেট এলাকায় তুলার গুদামে আগুন,নিয়ন্ত্রণে ৬ ইউনিট

» মাতৃভাষার অপমান কোনোভাবে সহ্য করা যায় না-প্রধানমন্ত্রী

» বিটিআরসিকে এক হাজার কোটি টাকা দিতে রাজি হয়েছে গ্রামীণফোন

» এসই ফাউন্ডেশন ইউকের এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত

» প্রয়োজনিয়তার তাগিদে গ্রামগঞ্জের প্রত্যেকটি ঘরে ঘরে ক্যারাতে তৈরী হোক …চিত্র নায়ক রুবেল

» নিখোঁজ জেলের লাশ উদ্ধার

» দুই লাখ মিটার অবৈধ কারেন্ট জাল পুড়িয়ে ধ্বংস

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শনিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, ৯ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাঙালি জাতি কখনই স্বৈরতন্ত্রকে মেনে নেয়নি, নেবেও না-ড. কামাল হোসেন

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

জনগণকে বঞ্চিত করে এখানে কেউ স্বৈরতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে পারেনি। আজকে যারা ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে, তাদের সেই ইতিহাসের দিকে তাকিয়ে দেখা উচিত। বাঙালি জাতি কখনই স্বৈরতন্ত্রকে মেনে নেয়নি, নেবেও না বলে মন্তব্য করেছেন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের আহ্বায়ক ড. কামাল হোসেন।শনিবার (০৮ ফেব্রুয়ারি) দুপুর ১টার দিকে ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি মিলনায়তনে এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার কারাবাসের দুই বছর এবং মুক্তির দাবিতে জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট এ প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করে। আওয়ামী লীগ ক্ষমতা কুক্ষিগত করে রেখেছে এ অভিযোগ করে ড. কামাল হোসেন বলেন, মানুষকে বঞ্চিত করে স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন করবে, এটা একটা প্রহসন। অর্থাৎ যারা প্রহসন করে এসেছে তাদের এখন সময় এসেছে সহজ ভাষায় বলা-সরে দাঁড়াও, সরে দাঁড়াও, সরে দাঁড়াও।ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘দেশের ১৬ কোটি মানুষের অধিকার হচ্ছে, দেশে গণতন্ত্র থাকবে। প্রকৃত অর্থে নির্বাচিত সদস্যরা দেশ পরিচালনা করবেন। সেখানে আজকে আমাদের গণতন্ত্রের জন্য লড়াই করতে হচ্ছে। ঐক্যবদ্ধ হয়ে আমাদের নিজের অধিকার আদায় করে নিতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘দেশের ইতিহাস থেকে আমরা দেখেছি, জনগণকে বঞ্চিত করে এখানে কেউ স্বৈরতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দিতে পারেনি। আজকে যারা ষড়যন্ত্র চালিয়ে যাচ্ছে, তাদের সেই ইতিহাসের দিকে তাকিয়ে দেখা উচিত। বাঙালি জাতি কখনই স্বৈরতন্ত্রকে মেনে নেয়নি, নেবেও না।’

ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘সংবিধান অনুযায়ী দেশের প্রকৃত মালিক জনগণ। মালিক হিসেবে দেশের জনগণকে যেন সম্মান জানানো হয়। মালিক হিসেবে দেশের জনগণ যেন ভূমিকা রাখতে পারে সেই ব্যবস্থা করতে হবে। লাখ লাখ মানুষ জীবন দিয়ে জনগণের এ অধিকার প্রতিষ্ঠা করেছেন। দেশের জনগণকে বঞ্চিত করে সরকার দেশ চালাচ্ছে, এটা আমরা মেনে নিতে পারি না।’

সরকারের সমালোচনা করে তিনি বলেন, ‘স্বাধীনতার ৫০ বছর হতে যাচ্ছে। এটা আমাদের জন্য লজ্জার ব্যাপার। সরকার জোর করে ক্ষমতা দখল করে দেশের মানুষকে বঞ্চিত করছে। সরকার স্বাধীনতার ৫০ বছর পালন করতে যাচ্ছে। মানুষকে বঞ্চিত করে স্বাধীনতার ৫০ বছর উদযাপন এটা একটা প্রহসন। যারা এ প্রহসন করছে জনগণের সঙ্গে এখন সময় এসেছে তাদের সহজ ভাষায় বলার, সরে দাঁড়াও, সরে দাঁড়াও, সরে দাঁড়াও।’ ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘ক্ষমতা আত্মসাৎ করে, স্বৈরতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রূপ দেওয়ার যে অপচেষ্টা চলছে, যেভাবে দুর্নীতি, কুশাসন, যেভাবে মানুষের বিরুদ্ধে অত্যাচার চলছে, লাখ লাখ মিথ্যা মামলা দেওয়া এটা আর মেনে নেওয়া যায় না। এমন স্বৈরতন্ত্রের মাধ্যমে দেশের মানুষ ও শহীদদের প্রতিও অসম্মান জানানো হচ্ছে।’

দেশের জনগণের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘যে দেশ লাখ লাখ প্রাণের বিনিময়ে স্বাধীন হয়েছে, সেই দেশে আমাদের দাবি আদায়ের জন্য সভা করতে হয়, এটা দুঃখের বিষয়। এখন আমাদের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনকে সামনে রেখে মাঠে নামতে হবে এবং আমরা আমাদের দাবি-ধাওয়া অর্জন করে ছাড়বো। যারা দেশের ক্ষমতাকে আত্মসাৎ করেছে তাদের চিহ্নিত করে ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে বিতাড়িত করতে হবে।’

খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়ে ড. কামাল হোসেন বলেন, ‘স্বাধীনতার এতোদিন পরেও দেশে বিরোধীদলের নেতা বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে সভা করতে হবে, দাবি করতে হবে, এটা অকল্পনীয়-কষ্টের বিষয়।’
কামাল হোসেনের সভাপতিত্বে ও জাহাঙ্গীর আলম প্রধানের সঞ্চালনায় এই প্রতিবাদ সভায় বিএনপির আবদুল মঈন খান, গণফোরামের সুব্রত চৌধুরী, মহসিন রশিদ, জগলুল হায়দার আফ্রিক, মোশতাক হোসেন, নাগরিক ঐক্যের শহীদুল্লাহ কায়সার, মমিনুল ইসলাম, জেএসডির শাহ আকম আনিসুর রহমান খান, বিকল্পধারার নুরুল আমিন ব্যাপারী, শাহ আহমেদ বাদল, গণ দলের গোলাম মাওলা চৌধুরীও বক্তব্য রাখেন।
ঢাকা,শনিবার,০৮ জানুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com