বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির শুধু একটি নাম নয় সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি

সিনিয়ার নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিছক একজন ব্যক্তি নন, মৃত্যুন্জয়ী হে পিতা তুমিই বাংলাদেশের নাম,,বঙ্গবন্ধু একটি প্রতিষ্ঠানের নাম, একটি চেতনার নাম। শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির শুধু একটি নাম নয়। শেখ মুজিবুর রহমান একটি বাঙালি জাতির পতাকার নাম, শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের একটি স্থপতির নাম, শেখ মুজিবুর রহমান একজন মুক্তিযোদ্ধার নাম,একটি বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানের নাম, একটি দেশের স্বাধীনতার নাম, একটি বিশ্ববাসীর নিকট বাঙালার উজ্জ্বল মুখের নাম, বাঙালার সমৃদ্ধ ইতিহাসের নাম,সার্বভৌমত্বের নাম, গণভ্যূত্থানের নাম, নিপীড়িত মানুষের আন্দোলনের অগ্রসেনানীর নাম,উন্নয়নের নাম, দারিদ্র বিমোচনের নাম সর্বপরি একটি দেশের সর্বস্তরের মানুষের হৃদয়ের গ্রোথিত চিরঅম্লান একটি নাম,একটি উজ্জীবিতের নাম। মুজিবের তুলনা শুধু মুজিবইখন্ড মুজিবের বাংলা তথা বাংলাদেশ। সেই মহান ব্যক্তি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২ তম শাহাদাৎ বার্ষিকীতে জাতি স্মরণ করছে বিনম্র শ্রদ্ধায়। তাঁর নেতৃত্বেই ১৯৭১ সালে ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাঙালি এদেশের স্বাধীনতার স্বাধ লাভ করে।

পৃথিবীর মানিচিত্রে জায়গা পায় নতুন এক ভূ-মুজিব। যারা বঙ্গবন্ধুকে লালসার কাছে বিবেক বিসর্জন দিয়ে পচাত্তরের পনেরই আগষ্ট হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সন্তান বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করেছে তারা ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে।ইতিহাসের নৃশংসতম হত্যাকান্ডের ফলে অপূরনীয় ক্ষতি হয় দেশের যা আজও পূরণ হয়নি, হয়ত আগামীতেও হবে না। তবে দেশের আপামর জনগণের মনে গভীরে বঙ্গবন্ধুর নীতি আদর্শ ব্যক্তি রয়ে গেছে। অনেক বাঁধা পেরিয়ে দেরিত হলেও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর স্বপরিবারে হত্যাকান্ডের বিচার হয়েছে।অপরাধীদের মধ্যে পাঁচজন সর্বোচ্চ সাজা ভোগ করেছে, ফাঁসি কার্যকর ও অনেকের ফাঁসির রায় হয়েছে। তবে দন্ডিত বাকি ছয়জন এখানো রয়ে গেছে ধরাছোয়াঁর বাইরে। এদের মধ্যে তিনজনের ফিরিয়ে এনে দন্ড কার্যকর না করতে না পারা নি:সন্দেহে হতাশার। আমাদের প্রত্যাশা, সরকার খুনিরা যেদেশেই থাকুক না কেন তাদের দেশে ফিরিয়ে এনে দন্ডিতদের সাজা কার্যকর করার ব্যবস্থা গ্রহন করবে।এই মহান ব্যক্তি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশে ঢাকা বিভাগের মধ্যে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় ১৭ই মার্চ ১৯২০ সালে জন্ম গ্রহন করেন। টুঙ্গিপাড়ার অজপাড়াগাঁ থেকে উঠে আসা অতি সাধারণ একজন মানুষ হয়ে উঠলেন একটি জাতির আশা-আকাক্সক্ষার প্রতীক। তার ডাকে মৃত্যুকে উপেক্ষা করে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ল সবাই। একাত্তরে বঙ্গবন্ধু ছিলেন সবার। কিন্তু এখনকার বাংলাদেশ দেখলে মনে হতে পারে, বঙ্গবন্ধু শুধু আওয়ামী লীগের। কিন্তু তা তো হওয়ার কথা নয়। বঙ্গবন্ধু সবার, বঙ্গবন্ধু জাতির পিতা। বঙ্গবন্ধুকে দলীয় গন্ডিতে কুক্ষিগত করে রাখলে আওয়ামী লীগের ক্ষতি। বঙ্গবন্ধু যত বিস্তৃত হবেন, আওয়ামী লীগের তত লাভ। এখন বাংলাদেশে লাখ লাখ, কোটি কোটি বঙ্গবন্ধু প্রেমিক। কিন্তু পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের পর বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধুর নাম
উচ্চারণ করার মতো সাহসী মানুষ ছিল খুব কম। ২১ বছর বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ছিলেন বঙ্গবন্ধু।

মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম
এক্সিকিউটিভ মেম্বার- ঢাকা উত্তর সাংবাদিক ফোরাম

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের সামনে ১৫৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে রাজশাহী কিংস

» নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে-মির্জা ফখরুল

» বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের সামনে ১৫৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে রাজশাহী কিংস

» বিএফডিসিতে আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের দ্বিতীয় নামাযে জানাজা সম্পন্ন

» বিআরটিএ’র অনিয়ম, দুর্নীতি ও হয়রানি বরদাশত করা হবে না-ওবায়দুল কাদের

» জাতীয় নির্বাচনের নামে একটি প্রহসন হয়েছে, এ নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত আওয়ামী লীগ, তারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে : বগুড়ায় মির্জা ফখরুল

» তাবলিগের দুপক্ষকে নিয়ে ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ব ইজতেমা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী; একসঙ্গে বিশ্ব ইজতেমা করা হবে : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী; সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তাবলিগের দুই পক্ষের বৈঠক

» কুমিল্লার মামলায় খালেদা জিয়ার আবেদন ৪ ফেব্রুয়ারি নিষ্পত্তির নির্দেশ

» দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর ৯০০ মিটার বা প্রায় এক কিলোমিটার

» লক্ষ্মীপুরে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ট্রাকের মধ্যে সংঘর্ষে একই পরিবারের ছয়জনসহ সাতজন নিহত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির শুধু একটি নাম নয় সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি

সিনিয়ার নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিছক একজন ব্যক্তি নন, মৃত্যুন্জয়ী হে পিতা তুমিই বাংলাদেশের নাম,,বঙ্গবন্ধু একটি প্রতিষ্ঠানের নাম, একটি চেতনার নাম। শেখ মুজিবুর রহমান বাঙালি জাতির শুধু একটি নাম নয়। শেখ মুজিবুর রহমান একটি বাঙালি জাতির পতাকার নাম, শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশের একটি স্থপতির নাম, শেখ মুজিবুর রহমান একজন মুক্তিযোদ্ধার নাম,একটি বাঙালি জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তানের নাম, একটি দেশের স্বাধীনতার নাম, একটি বিশ্ববাসীর নিকট বাঙালার উজ্জ্বল মুখের নাম, বাঙালার সমৃদ্ধ ইতিহাসের নাম,সার্বভৌমত্বের নাম, গণভ্যূত্থানের নাম, নিপীড়িত মানুষের আন্দোলনের অগ্রসেনানীর নাম,উন্নয়নের নাম, দারিদ্র বিমোচনের নাম সর্বপরি একটি দেশের সর্বস্তরের মানুষের হৃদয়ের গ্রোথিত চিরঅম্লান একটি নাম,একটি উজ্জীবিতের নাম। মুজিবের তুলনা শুধু মুজিবইখন্ড মুজিবের বাংলা তথা বাংলাদেশ। সেই মহান ব্যক্তি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪২ তম শাহাদাৎ বার্ষিকীতে জাতি স্মরণ করছে বিনম্র শ্রদ্ধায়। তাঁর নেতৃত্বেই ১৯৭১ সালে ৯ মাস রক্তক্ষয়ী যুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাঙালি এদেশের স্বাধীনতার স্বাধ লাভ করে।

পৃথিবীর মানিচিত্রে জায়গা পায় নতুন এক ভূ-মুজিব। যারা বঙ্গবন্ধুকে লালসার কাছে বিবেক বিসর্জন দিয়ে পচাত্তরের পনেরই আগষ্ট হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ সন্তান বঙ্গবন্ধুকে স্বপরিবারে হত্যা করেছে তারা ইতিহাসের আস্তাকুড়ে নিক্ষিপ্ত হয়েছে।ইতিহাসের নৃশংসতম হত্যাকান্ডের ফলে অপূরনীয় ক্ষতি হয় দেশের যা আজও পূরণ হয়নি, হয়ত আগামীতেও হবে না। তবে দেশের আপামর জনগণের মনে গভীরে বঙ্গবন্ধুর নীতি আদর্শ ব্যক্তি রয়ে গেছে। অনেক বাঁধা পেরিয়ে দেরিত হলেও জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর স্বপরিবারে হত্যাকান্ডের বিচার হয়েছে।অপরাধীদের মধ্যে পাঁচজন সর্বোচ্চ সাজা ভোগ করেছে, ফাঁসি কার্যকর ও অনেকের ফাঁসির রায় হয়েছে। তবে দন্ডিত বাকি ছয়জন এখানো রয়ে গেছে ধরাছোয়াঁর বাইরে। এদের মধ্যে তিনজনের ফিরিয়ে এনে দন্ড কার্যকর না করতে না পারা নি:সন্দেহে হতাশার। আমাদের প্রত্যাশা, সরকার খুনিরা যেদেশেই থাকুক না কেন তাদের দেশে ফিরিয়ে এনে দন্ডিতদের সাজা কার্যকর করার ব্যবস্থা গ্রহন করবে।এই মহান ব্যক্তি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বাংলাদেশে ঢাকা বিভাগের মধ্যে গোপালগঞ্জের টুঙ্গিপাড়ায় ১৭ই মার্চ ১৯২০ সালে জন্ম গ্রহন করেন। টুঙ্গিপাড়ার অজপাড়াগাঁ থেকে উঠে আসা অতি সাধারণ একজন মানুষ হয়ে উঠলেন একটি জাতির আশা-আকাক্সক্ষার প্রতীক। তার ডাকে মৃত্যুকে উপেক্ষা করে মুক্তিযুদ্ধে ঝাঁপিয়ে পড়ল সবাই। একাত্তরে বঙ্গবন্ধু ছিলেন সবার। কিন্তু এখনকার বাংলাদেশ দেখলে মনে হতে পারে, বঙ্গবন্ধু শুধু আওয়ামী লীগের। কিন্তু তা তো হওয়ার কথা নয়। বঙ্গবন্ধু সবার, বঙ্গবন্ধু জাতির পিতা। বঙ্গবন্ধুকে দলীয় গন্ডিতে কুক্ষিগত করে রাখলে আওয়ামী লীগের ক্ষতি। বঙ্গবন্ধু যত বিস্তৃত হবেন, আওয়ামী লীগের তত লাভ। এখন বাংলাদেশে লাখ লাখ, কোটি কোটি বঙ্গবন্ধু প্রেমিক। কিন্তু পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের পর বাংলাদেশে বঙ্গবন্ধুর নাম
উচ্চারণ করার মতো সাহসী মানুষ ছিল খুব কম। ২১ বছর বাংলাদেশে নিষিদ্ধ ছিলেন বঙ্গবন্ধু।

মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম
এক্সিকিউটিভ মেম্বার- ঢাকা উত্তর সাংবাদিক ফোরাম

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY PopularITLimited