অবরোধের সময়সীমা শেষ ইলিশ শিকারে গভীর সমুদ্রে জেলেদের ফের যাত্রা

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি।। সাগর ও নদীতে দীর্ঘ ২২ দিন অবরোধ পালনের পর পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মৎস্য বন্দর মহিপুর আলীপুর ও জেলে পল্লীগুলো ফের সরব হয়ে উঠেছে। সোমবার সকাল থেকে মাছ শিকারের উদ্দেশ্যে শত শত মাছ ধরা ট্রলার গভীর সমুদ্রে যাত্রা শুরুকরেছে। কেউ সাগরে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ইলিশ সংরক্ষণের লক্ষ্যে গত ৭ অক্টোবর থেকে ইলিশ শিকার, পরিবহণ, মজুদ, বাজারজাত ও কেনা-বেচা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন মৎস্য বিভাগ। অবরোধ সফল করার লক্ষ্যে উপকূলের জেলেরা এ সময় মাছ ধরা বন্ধ রাখেন। ওইসব জেলেরা গভীর সমুদ্রে মাছ শিকারে যাওয়ার জন্য নতুন ভাবে প্রস্তুতিও নিয়ে রেখেছেন। আবার মাছ শিকারে যাওয়ার আনন্দে বর্তমানে আড়ৎ ঘাটসহ উপকূলীয় জেলে পল্লীতে উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে।
স্থাণীয় জেলেদের সূত্রে জানা গেছে, ইলিশ প্রজনন মৌসুমের গত ২২ দিন ইলিশ মাছ ধরা নিষিদ্ধ করেছেন সরকার। এছাড়া ইলিশ সংরক্ষণের লক্ষ্যে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত প্রজনন ক্ষেত্রের ইলিশ শিকার, পরিবহণ, মজুদ, বাজারজাত ও কেনা-বেচা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন। তাই অবরোধ সফল করার লক্ষ্যে উপকূলের জেলেরা দীর্ঘ এই সময় মাছ ধরা বন্ধ রাখে।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, মৎস্য পল্লীর জেলেরা পুরাতন জাল মেরামত কিংবা নতুন জাল নিয়ে সাগরে মাছ শিকারে যাওয়ার জন্য ব্যস্ত রয়েছে। কেউ কেউ আবার নৌকা মেরামত করছে। অনেকে আগে ভাগেই তথা অবরোধকালীন সময়ে জাল ও নৌকা মেরামত করে নতুন ভাবে প্রস্তুতিও নিয়ে রেখেছেন।
জেলে মোশারেফ হোসেন জানান, অবরোধ শুরুর আগের দিন তারা মাছ ধরা বন্ধ করে গভীর সাগর থেকে ঘাটে ফিরে আসেন। পরের দিন বাড়িতে চলে যান। এই দীর্ঘ অবসর সময়টা কাটায় পরিবারের সাথে। তাদের ট্রলারের ১৭ জন জেলে সাগরে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়ে মহাজনের আড়তে ফের ফিরে এসেছেন।
মহিপুরের শাহানা ফিস আড়তের মালিক ইলিয়াস রেজা বলেন, অনেক দিন মাছ ধরা বন্ধ ছিল। আড়ৎ ঘাট প্রায় জনশূন্য ছিল। অবরোধের সময় শেষ হওয়ায় আবার আমরা মাছ শিকারের প্রস্তুতি নিচ্ছি। তবে অনেক জেলে ইলিশ মাছ ধরতে সাগরে রওনা হয়েছেন। ফের আড়ৎ ঘাটে উৎসব মূখর পরিবেশ বিরাজ করছে।
কুয়াকাটা আশার আলো মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি লিমিটেড’র সভাপতি মো.নিজাম শেখ বলেন, সমিতির আওতায় উপকুলীয় এলাকার প্রায় ১ হাজার ৭’শ জেলে রয়েছে। কোন জেলেই অবরোধ অমান্য করে মাছ শিকার করতে যায়নি। প্রজনন মৌসুমের সুফল আমরা জেলে এবং আড়তদাররাই ভোগ করবো। এখন সাগরপাড়ের জেলেরা মাছ শিকারের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে। তবে চেয়ে সমুদ্রে বেশি মাছ ধরা পরবে বলে তিনি জানান। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মনোজ কুমার সাহা বলেন, উপজেলা প্রশাসন,
নৌ-বাহিনী, কোষ্টগার্ড, পুলিশ ,নৌ-পুলিশ, জেলে ও আড়ৎদারসহ সর্বস্তরের মানুষের সহযোগিতায় এবারের অবরোধ সফল হয়েছে।
উত্তম কুমার হাওলাদার,কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,
পটুয়াখালী,সোমবার,২৯ অক্টোবর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» বিপিএলে সিলেট সিক্সার্সকে ২১ রানে হারিয়েছে খুলনা টাইটানস; আসরে এটি তাদের দ্বিতীয় জয়

» আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ না করলে সেটি আত্মহননের মতো সিদ্ধান্ত হবে-তথ্যমন্ত্রী

» ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) ও হল সংসদ নির্বাচন আগামী ১১ মার্চ

» বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের সামনে ১৫৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে রাজশাহী কিংস

» নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে-মির্জা ফখরুল

» বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের সামনে ১৫৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে রাজশাহী কিংস

» বিএফডিসিতে আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের দ্বিতীয় নামাযে জানাজা সম্পন্ন

» বিআরটিএ’র অনিয়ম, দুর্নীতি ও হয়রানি বরদাশত করা হবে না-ওবায়দুল কাদের

» জাতীয় নির্বাচনের নামে একটি প্রহসন হয়েছে, এ নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত আওয়ামী লীগ, তারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে : বগুড়ায় মির্জা ফখরুল

» তাবলিগের দুপক্ষকে নিয়ে ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ব ইজতেমা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী; একসঙ্গে বিশ্ব ইজতেমা করা হবে : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী; সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তাবলিগের দুই পক্ষের বৈঠক

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

অবরোধের সময়সীমা শেষ ইলিশ শিকারে গভীর সমুদ্রে জেলেদের ফের যাত্রা

কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি।। সাগর ও নদীতে দীর্ঘ ২২ দিন অবরোধ পালনের পর পটুয়াখালীর কলাপাড়া উপজেলার মৎস্য বন্দর মহিপুর আলীপুর ও জেলে পল্লীগুলো ফের সরব হয়ে উঠেছে। সোমবার সকাল থেকে মাছ শিকারের উদ্দেশ্যে শত শত মাছ ধরা ট্রলার গভীর সমুদ্রে যাত্রা শুরুকরেছে। কেউ সাগরে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন। ইলিশ সংরক্ষণের লক্ষ্যে গত ৭ অক্টোবর থেকে ইলিশ শিকার, পরিবহণ, মজুদ, বাজারজাত ও কেনা-বেচা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন মৎস্য বিভাগ। অবরোধ সফল করার লক্ষ্যে উপকূলের জেলেরা এ সময় মাছ ধরা বন্ধ রাখেন। ওইসব জেলেরা গভীর সমুদ্রে মাছ শিকারে যাওয়ার জন্য নতুন ভাবে প্রস্তুতিও নিয়ে রেখেছেন। আবার মাছ শিকারে যাওয়ার আনন্দে বর্তমানে আড়ৎ ঘাটসহ উপকূলীয় জেলে পল্লীতে উৎসব মুখর পরিবেশ বিরাজ করছে।
স্থাণীয় জেলেদের সূত্রে জানা গেছে, ইলিশ প্রজনন মৌসুমের গত ২২ দিন ইলিশ মাছ ধরা নিষিদ্ধ করেছেন সরকার। এছাড়া ইলিশ সংরক্ষণের লক্ষ্যে ২৮ অক্টোবর পর্যন্ত প্রজনন ক্ষেত্রের ইলিশ শিকার, পরিবহণ, মজুদ, বাজারজাত ও কেনা-বেচা নিষিদ্ধ ঘোষণা করেন। তাই অবরোধ সফল করার লক্ষ্যে উপকূলের জেলেরা দীর্ঘ এই সময় মাছ ধরা বন্ধ রাখে।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে, মৎস্য পল্লীর জেলেরা পুরাতন জাল মেরামত কিংবা নতুন জাল নিয়ে সাগরে মাছ শিকারে যাওয়ার জন্য ব্যস্ত রয়েছে। কেউ কেউ আবার নৌকা মেরামত করছে। অনেকে আগে ভাগেই তথা অবরোধকালীন সময়ে জাল ও নৌকা মেরামত করে নতুন ভাবে প্রস্তুতিও নিয়ে রেখেছেন।
জেলে মোশারেফ হোসেন জানান, অবরোধ শুরুর আগের দিন তারা মাছ ধরা বন্ধ করে গভীর সাগর থেকে ঘাটে ফিরে আসেন। পরের দিন বাড়িতে চলে যান। এই দীর্ঘ অবসর সময়টা কাটায় পরিবারের সাথে। তাদের ট্রলারের ১৭ জন জেলে সাগরে যাওয়ার প্রস্তুতি নিয়ে মহাজনের আড়তে ফের ফিরে এসেছেন।
মহিপুরের শাহানা ফিস আড়তের মালিক ইলিয়াস রেজা বলেন, অনেক দিন মাছ ধরা বন্ধ ছিল। আড়ৎ ঘাট প্রায় জনশূন্য ছিল। অবরোধের সময় শেষ হওয়ায় আবার আমরা মাছ শিকারের প্রস্তুতি নিচ্ছি। তবে অনেক জেলে ইলিশ মাছ ধরতে সাগরে রওনা হয়েছেন। ফের আড়ৎ ঘাটে উৎসব মূখর পরিবেশ বিরাজ করছে।
কুয়াকাটা আশার আলো মৎস্যজীবি সমবায় সমিতি লিমিটেড’র সভাপতি মো.নিজাম শেখ বলেন, সমিতির আওতায় উপকুলীয় এলাকার প্রায় ১ হাজার ৭’শ জেলে রয়েছে। কোন জেলেই অবরোধ অমান্য করে মাছ শিকার করতে যায়নি। প্রজনন মৌসুমের সুফল আমরা জেলে এবং আড়তদাররাই ভোগ করবো। এখন সাগরপাড়ের জেলেরা মাছ শিকারের জন্য প্রস্তুতি নিয়েছে। তবে চেয়ে সমুদ্রে বেশি মাছ ধরা পরবে বলে তিনি জানান। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মনোজ কুমার সাহা বলেন, উপজেলা প্রশাসন,
নৌ-বাহিনী, কোষ্টগার্ড, পুলিশ ,নৌ-পুলিশ, জেলে ও আড়ৎদারসহ সর্বস্তরের মানুষের সহযোগিতায় এবারের অবরোধ সফল হয়েছে।
উত্তম কুমার হাওলাদার,কলাপাড়া(পটুয়াখালী)প্রতিনিধি,
পটুয়াখালী,সোমবার,২৯ অক্টোবর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY PopularITLimited