২৪শে ডিসেম্বর থেকে ২ জানুয়ারি পর্যন্ত ১০ দিন স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য আগামী ২৪শে ডিসেম্বর থেকে ২ জানুয়ারি পর্যন্ত ১০ দিন স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন সচিব মো. হেলালুদ্দীন আহমদ।শুক্রবার (১৪ ডিসেম্বর) বিকেলে কমিশন সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান তিনি।আগামী ৩০ ডিসেম্বর (রোববার) সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের জন্য ৪০ ধরনের উপকরণের প্রয়োজন পড়ে। এরইমধ্যে সিল, মার্কিং সিল, ব্রাশ সিল, ব্যালট বক্স, রশিসহ অন্যান্য উপকরণ জেলায় পাঠানো হয়েছে।ইসি সচিব বলেন, আমাদের যে ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া প্রয়োজন, তা এরইমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনী এলাকায় গিয়ে প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসারদের প্রশিক্ষণ দেওয়া ছাড়াও বিগত একমাসে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে। তারা ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেবেন।হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আরেকটি প্রস্তুতি বাকি রয়েছে। সেটি হলো ব্যালাট পেপার তৈরি। আশা করছি নির্বাচনের সাত দিন আগেই (২৩ ডিসেম্বর) সব এলাকায় ব্যালট পেপার পৌঁছে যাবে। এখনো কিছু এলাকায়, এছাড়া এখনো উচ্চ আদালত থেকে বেশ কিছু নির্দেশনা আসছে। তাই ক্ষেত্র বিশেষ ব্যালট ছাপানো কিছুটা বিলম্ব হতে পারে। তবে অবশ্যই ভোটের ৭ দিন আগেই সব এলাকায় ব্যালট পৌঁছে দেওয়া হবে।সশস্ত্র বাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দেওয়ার প্রয়োজন নেই এমন মন্তব্য করে ইসি সচিব বলেন, আগামী ২৪ ডিসেম্বর থেকে ২ জানুয়ারি পর্যন্ত ১০ দিন সশস্ত্রবাহিনী মাঠে থাকবে। তারা আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় করে দায়িত্ব পালন করবে। আমাদের ৩ ধরনের বিচারকরা মাঠে রয়েছেন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন ৬৫২ জন, ২৪৪ জন সিনিয়র ডিস্ট্রিক জাজ, জয়েন্ট ডিস্ট্রিক জাজ, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন ৬৪০ জন। তারা নির্বাচনের দু’দিন আগে থেকে নির্বাচনের পরদিন পর্যন্ত মোট চারদিন দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া বিভিন্ন বাহিনীর সঙ্গে হাজারখানেক নির্বাহী ম্যাটিস্ট্রেট থাকবেন। তারা বিজিবি, র‌্যাব, সেনাবাহিনী, কোস্টগার্ড, পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে সমন্বয় করে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।
ঢাকা,শুক্রবার,১৪ ডিসেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের সামনে ১৫৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে রাজশাহী কিংস

» নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে-মির্জা ফখরুল

» বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের সামনে ১৫৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে রাজশাহী কিংস

» বিএফডিসিতে আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের দ্বিতীয় নামাযে জানাজা সম্পন্ন

» বিআরটিএ’র অনিয়ম, দুর্নীতি ও হয়রানি বরদাশত করা হবে না-ওবায়দুল কাদের

» জাতীয় নির্বাচনের নামে একটি প্রহসন হয়েছে, এ নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত আওয়ামী লীগ, তারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে : বগুড়ায় মির্জা ফখরুল

» তাবলিগের দুপক্ষকে নিয়ে ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ব ইজতেমা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী; একসঙ্গে বিশ্ব ইজতেমা করা হবে : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী; সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তাবলিগের দুই পক্ষের বৈঠক

» কুমিল্লার মামলায় খালেদা জিয়ার আবেদন ৪ ফেব্রুয়ারি নিষ্পত্তির নির্দেশ

» দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর ৯০০ মিটার বা প্রায় এক কিলোমিটার

» লক্ষ্মীপুরে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ট্রাকের মধ্যে সংঘর্ষে একই পরিবারের ছয়জনসহ সাতজন নিহত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

২৪শে ডিসেম্বর থেকে ২ জানুয়ারি পর্যন্ত ১০ দিন স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের জন্য আগামী ২৪শে ডিসেম্বর থেকে ২ জানুয়ারি পর্যন্ত ১০ দিন স্ট্রাইকিং ফোর্স হিসেবে সেনাবাহিনী মাঠে থাকবে বলে জানিয়েছেন নির্বাচন কমিশন সচিব মো. হেলালুদ্দীন আহমদ।শুক্রবার (১৪ ডিসেম্বর) বিকেলে কমিশন সচিবালয়ে ব্রিফিংয়ে এ কথা জানান তিনি।আগামী ৩০ ডিসেম্বর (রোববার) সংসদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনের জন্য ৪০ ধরনের উপকরণের প্রয়োজন পড়ে। এরইমধ্যে সিল, মার্কিং সিল, ব্রাশ সিল, ব্যালট বক্স, রশিসহ অন্যান্য উপকরণ জেলায় পাঠানো হয়েছে।ইসি সচিব বলেন, আমাদের যে ধরনের প্রস্তুতি নেওয়া প্রয়োজন, তা এরইমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। নির্বাচনী এলাকায় গিয়ে প্রিজাইডিং ও পোলিং অফিসারদের প্রশিক্ষণ দেওয়া ছাড়াও বিগত একমাসে সব ধরনের প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। প্রশিক্ষকদের প্রশিক্ষণ শেষ হয়েছে। তারা ভোটগ্রহণ কর্মকর্তাদের প্রশিক্ষণ দেবেন।হেলালুদ্দীন আহমদ বলেন, আরেকটি প্রস্তুতি বাকি রয়েছে। সেটি হলো ব্যালাট পেপার তৈরি। আশা করছি নির্বাচনের সাত দিন আগেই (২৩ ডিসেম্বর) সব এলাকায় ব্যালট পেপার পৌঁছে যাবে। এখনো কিছু এলাকায়, এছাড়া এখনো উচ্চ আদালত থেকে বেশ কিছু নির্দেশনা আসছে। তাই ক্ষেত্র বিশেষ ব্যালট ছাপানো কিছুটা বিলম্ব হতে পারে। তবে অবশ্যই ভোটের ৭ দিন আগেই সব এলাকায় ব্যালট পৌঁছে দেওয়া হবে।সশস্ত্র বাহিনীকে বিচারিক ক্ষমতা দেওয়ার প্রয়োজন নেই এমন মন্তব্য করে ইসি সচিব বলেন, আগামী ২৪ ডিসেম্বর থেকে ২ জানুয়ারি পর্যন্ত ১০ দিন সশস্ত্রবাহিনী মাঠে থাকবে। তারা আমাদের আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে সমন্বয় করে দায়িত্ব পালন করবে। আমাদের ৩ ধরনের বিচারকরা মাঠে রয়েছেন। নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন ৬৫২ জন, ২৪৪ জন সিনিয়র ডিস্ট্রিক জাজ, জয়েন্ট ডিস্ট্রিক জাজ, জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট থাকবেন ৬৪০ জন। তারা নির্বাচনের দু’দিন আগে থেকে নির্বাচনের পরদিন পর্যন্ত মোট চারদিন দায়িত্ব পালন করবেন। এছাড়া বিভিন্ন বাহিনীর সঙ্গে হাজারখানেক নির্বাহী ম্যাটিস্ট্রেট থাকবেন। তারা বিজিবি, র‌্যাব, সেনাবাহিনী, কোস্টগার্ড, পুলিশ সদস্যদের সঙ্গে সমন্বয় করে বিচারিক কার্যক্রম পরিচালনা করবেন।
ঢাকা,শুক্রবার,১৪ ডিসেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY PopularITLimited