গণতন্ত্রের স্বার্থে বিএনপির নির্বাচিত প্রতিনিধিদের উচিত সংসদে যোগ দেয়া-প্রধানমন্ত্রী

নির্বাচনে বিএনপির হেরে যাওয়ার দায় তাদের নিজেদের। দলের মূল নেতারা সাজাপ্রাপ্ত হলে নির্বাচনে যা ফল হওয়ার তাই হয়েছে।’ এরপরও যে কয়েকজন বিএনপি থেকে নির্বাচিত হয়েছেন গণতন্ত্রের স্বার্থে তাদের সংসদে আসা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।আজ শনিবার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের কার্যনির্বাহী সংসদ এবং উপদেষ্টা পরিষদের যৌথ সভার সূচনা বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গঠনের পর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদ এবং উপদেষ্টা পরিষদের প্রথম যৌথ সভার সূচনা বক্তব্যে প্রধনমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারে থাকলে উন্নয়ন হয়, দেশবাসী ও ভোটারদের সেই আস্থারই প্রতিফলন ঘটেছে এবারের নির্বাচনে।’ আর বিএনপি নিজেদের দোষেই ভোটে হেরেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে হেরেছে এ দোষটা তারা কাকে দেবে? এ দোষ তাদের নিজেদেরকেই দিতে হয়। কারণ একটি রাজনৈতিক দলের যদি নেতৃত্ব না থাকে, মাথাই না থাকে তাহলে সে রাজনৈতিক দল কীভাবে নির্বাচনে জেতার কথা চিন্তা করতে পারে? যিনি মূল নেতা ছিলেন, তিনি সাজা পেয়েছেন এতিমের অর্থ আত্মসাতের মামলায়। যাকে ভারপ্রাপ্ত নেতা করা হলেও তিনিও হত্যা মামলা থেকে শুরু করে বিভিন্ন মামলায় সাজাপ্রাপ্ত এবং পলাতক আসামি। একটি রাজনৈতিক দল পলাতক আসামিকে নিয়ে রাজনীতি করতে গেলে কী রেজাল্ট হয় সেটা তারা পেয়েছে। সেটাও হত না যদি তারা মনোনয়ন বাণিজ্যটা না করত। তাহলে হয়তো আরো ভালো রেজাল্ট হয়তো করতে পারত। তারপরও যে কয়টা সিটে তারা জিতেছে গণতন্ত্রের স্বার্থে তারা যদি চায় তাদের পার্লামেন্টে আসা প্রয়োজন।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গত ১০ বছর সরকারের ধারাবাহিকতায় উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলাদেশ। আবারো নির্বাচিত হওয়ায় দায়িত্ব আরো বেড়েছে। তাই গ্রামে শহরের সব সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার পাশাপাশি মানুষের জীবন মান বাড়াতে নতুন নতুন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে।’শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের এখন একটাই চিন্তা করতে হবে আমরা যে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছি এগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। বাংলাদেশের মানুষের জীবন মান উন্নত করার জন্য আরো কী কী করতে পারি সেটা চিন্তা করতে হবে। ইতোমধ্যে আমরা অনেক কর্মসূচি নিয়ে রেখেছি। প্রত্যেক গ্রামে মানুষ যেন শহরের মত নাগরিক সুবিধা পায় সেভাবে পরিকল্পনা নিয়েছি।’নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নতি হয়, ভাগ্যপরিবর্তন হয়ে তৃণমূলের। এমন বিশ্বাস থেকেই মানুষ নৌকায় সমর্থন দিয়েছে জানিয়ে, শেখ হাসিনা আগামীতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে দেশের উন্নয়ন তরান্বিত করতে সবাইকে আহ্বান জানান।ভোটের মাঠে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করতে নৌকা মার্কায় সমর্থন দেয়ায় শেখ হাসিনা কৃতজ্ঞতা জানান দেশবাসীর প্রতি।
ঢাকা,শনিবার,১২ জানুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের সামনে ১৫৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে রাজশাহী কিংস

» নির্বাচনের পর আওয়ামী লীগ জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে-মির্জা ফখরুল

» বিপিএলে চিটাগং ভাইকিংসের সামনে ১৫৮ রানের লক্ষ্য দিয়েছে রাজশাহী কিংস

» বিএফডিসিতে আহমেদ ইমতিয়াজ বুলবুলের দ্বিতীয় নামাযে জানাজা সম্পন্ন

» বিআরটিএ’র অনিয়ম, দুর্নীতি ও হয়রানি বরদাশত করা হবে না-ওবায়দুল কাদের

» জাতীয় নির্বাচনের নামে একটি প্রহসন হয়েছে, এ নির্বাচনে সবচেয়ে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত আওয়ামী লীগ, তারা জনগণ থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে : বগুড়ায় মির্জা ফখরুল

» তাবলিগের দুপক্ষকে নিয়ে ফেব্রুয়ারিতে বিশ্ব ইজতেমা : স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী; একসঙ্গে বিশ্ব ইজতেমা করা হবে : ধর্ম প্রতিমন্ত্রী; সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সঙ্গে তাবলিগের দুই পক্ষের বৈঠক

» কুমিল্লার মামলায় খালেদা জিয়ার আবেদন ৪ ফেব্রুয়ারি নিষ্পত্তির নির্দেশ

» দৃশ্যমান হলো পদ্মা সেতুর ৯০০ মিটার বা প্রায় এক কিলোমিটার

» লক্ষ্মীপুরে সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ট্রাকের মধ্যে সংঘর্ষে একই পরিবারের ছয়জনসহ সাতজন নিহত

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

গণতন্ত্রের স্বার্থে বিএনপির নির্বাচিত প্রতিনিধিদের উচিত সংসদে যোগ দেয়া-প্রধানমন্ত্রী

নির্বাচনে বিএনপির হেরে যাওয়ার দায় তাদের নিজেদের। দলের মূল নেতারা সাজাপ্রাপ্ত হলে নির্বাচনে যা ফল হওয়ার তাই হয়েছে।’ এরপরও যে কয়েকজন বিএনপি থেকে নির্বাচিত হয়েছেন গণতন্ত্রের স্বার্থে তাদের সংসদে আসা প্রয়োজন বলে মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।আজ শনিবার বঙ্গবন্ধু অ্যাভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে দলের কার্যনির্বাহী সংসদ এবং উপদেষ্টা পরিষদের যৌথ সভার সূচনা বক্তব্যে প্রধানমন্ত্রী এসব কথা বলেন।একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে জয়ী হয়ে সরকার গঠনের পর আওয়ামী লীগের কার্যনির্বাহী সংসদ এবং উপদেষ্টা পরিষদের প্রথম যৌথ সভার সূচনা বক্তব্যে প্রধনমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ সরকারে থাকলে উন্নয়ন হয়, দেশবাসী ও ভোটারদের সেই আস্থারই প্রতিফলন ঘটেছে এবারের নির্বাচনে।’ আর বিএনপি নিজেদের দোষেই ভোটে হেরেছে বলে মন্তব্য করেন তিনি।প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘বিএনপি নির্বাচনে হেরেছে এ দোষটা তারা কাকে দেবে? এ দোষ তাদের নিজেদেরকেই দিতে হয়। কারণ একটি রাজনৈতিক দলের যদি নেতৃত্ব না থাকে, মাথাই না থাকে তাহলে সে রাজনৈতিক দল কীভাবে নির্বাচনে জেতার কথা চিন্তা করতে পারে? যিনি মূল নেতা ছিলেন, তিনি সাজা পেয়েছেন এতিমের অর্থ আত্মসাতের মামলায়। যাকে ভারপ্রাপ্ত নেতা করা হলেও তিনিও হত্যা মামলা থেকে শুরু করে বিভিন্ন মামলায় সাজাপ্রাপ্ত এবং পলাতক আসামি। একটি রাজনৈতিক দল পলাতক আসামিকে নিয়ে রাজনীতি করতে গেলে কী রেজাল্ট হয় সেটা তারা পেয়েছে। সেটাও হত না যদি তারা মনোনয়ন বাণিজ্যটা না করত। তাহলে হয়তো আরো ভালো রেজাল্ট হয়তো করতে পারত। তারপরও যে কয়টা সিটে তারা জিতেছে গণতন্ত্রের স্বার্থে তারা যদি চায় তাদের পার্লামেন্টে আসা প্রয়োজন।’
প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘গত ১০ বছর সরকারের ধারাবাহিকতায় উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে বাংলাদেশ। আবারো নির্বাচিত হওয়ায় দায়িত্ব আরো বেড়েছে। তাই গ্রামে শহরের সব সুবিধা পৌঁছে দেওয়ার পাশাপাশি মানুষের জীবন মান বাড়াতে নতুন নতুন পরিকল্পনা বাস্তবায়ন করা হবে।’শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমাদের এখন একটাই চিন্তা করতে হবে আমরা যে বিভিন্ন কর্মসূচি হাতে নিয়েছি এগুলো বাস্তবায়ন করতে হবে। বাংলাদেশের মানুষের জীবন মান উন্নত করার জন্য আরো কী কী করতে পারি সেটা চিন্তা করতে হবে। ইতোমধ্যে আমরা অনেক কর্মসূচি নিয়ে রেখেছি। প্রত্যেক গ্রামে মানুষ যেন শহরের মত নাগরিক সুবিধা পায় সেভাবে পরিকল্পনা নিয়েছি।’নৌকায় ভোট দিলে দেশের উন্নতি হয়, ভাগ্যপরিবর্তন হয়ে তৃণমূলের। এমন বিশ্বাস থেকেই মানুষ নৌকায় সমর্থন দিয়েছে জানিয়ে, শেখ হাসিনা আগামীতে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে দেশের উন্নয়ন তরান্বিত করতে সবাইকে আহ্বান জানান।ভোটের মাঠে আওয়ামী লীগকে বিজয়ী করতে নৌকা মার্কায় সমর্থন দেয়ায় শেখ হাসিনা কৃতজ্ঞতা জানান দেশবাসীর প্রতি।
ঢাকা,শনিবার,১২ জানুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY PopularITLimited