করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
১৮৬২ ১৫,৩৮,২০৩ ১৪,৯৪,০৯০ ২৭,১০৯

গ্রাম আদালতকে সক্রিয়করণের মাধ্যমে জনগণের ন্যায়বিচার প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করতে সরকার বদ্ধপরিকর

সিনিয়র রিপোর্টার,ঢাকা:স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, গ্রাম আদালতকে সক্রিয়করণের মাধ্যমে জনগণের ন্যায়বিচার প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করা এবং আদালতে মামলার জট কমানোর জন্য বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও বিভিন্ন সময়ে গ্রাম আদালত Kvh©করণের প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্ব প্রদান করে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা প্রদান করেছেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্প অল্প খরচে জনগণের কাছে দ্রুততম সময়ে বিচারিক সেবা পৌঁছে দিতে সরকারকে সহায়তা করছে। ইউনিয়ন পরিষদে প্রতিষ্ঠিত গ্রাম আদালত উভয় পক্ষের মনোনীত সদস্যদের মাধ্যমে সমঝোতার ভিত্তিতে বিরোধ নিষ্পত্তি করে থাকে। ফলে সামাজিক শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় থাকে। এজন্য সরকার সারাদেশে গ্রাম আদালতগুলোকে Kvh©কর করতে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

মন্ত্রী জানান, জুলাই ২০১৭ হতে আগস্ট ২০১৯ পh©ন্ত দুই বছরে প্রকল্প এলাকার বিভিন্ন ইউনিয়নে ১,৩৩,৬৬৪টি মামলা নথিভুক্ত হয়েছে যার মধ্যে ১,০৬,৭০২টি মামলার রায় প্রদান করা হয়েছে এবং ১,০০,৩৩৩টি মামলার সিদ্ধান্ত (রায়) বাস্তবায়ন হয়েছে।

আজ রবিবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলের বলরুমে গণমাধ্যমের নেতৃস্থানীয় সাংবাদিকদের নিয়ে ‘গ্রাম আদালত বিষয়ে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়ন-এর রাষ্ট্রদূত রেনসে তিরিন্ক, ইউএনডিপি বাংলাদেশে-এর আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জী এবং বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের জাতীয় প্রকল্প পরিচালক ও স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রোকসানা কাদের। মুক্ত আলোচনা পর্ব সঞ্চালনা করেন বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা।

প্রসঙ্গত,পল্লী এলাকার নারী, দরিদ্র ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠী যাতে তাদের প্রতি সংঘঠিত অন্যায়ের প্রতিকার স্থানীয় পর্যায়ে গ্রাম আদালতের মাধ্যমে দ্রুত ও স্বল্প ব্যয়ে পেতে পারে সে লক্ষ্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার স্থানীয় সরকার বিভাগের মাধ্যমে ইউএনডিপি ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন-এর আর্থিক সহযোগিতায় বাংলাদেশের ১৪টি জেলার ৫৭টি উপজেলায় ৩৫১টি ইউনিয়নে (২০০৯-২০১৫) “Activation Village courts in Bangladesh” শীর্ষক প্রকল্পের (২০০৯-২০১৫) প্রথম পর্যায়ের Kvh©ক্রম সমাপ্ত হয়েছে।
প্রথম পর্যায় সমাপ্তির পর উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ও বাংলাদেশ সরকারের যৌথ উদ্যোগে দেশের ২৭টি জেলার ১২৮টি উপজেলার ১০৮০টি ইউনিয়নে বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পটির (২০১৬-২০১৯) Kvh©ক্রম চলমান রয়েছে। সম্প্রতি ৩ পার্বত্য জেলার ২৬টি উপজেলার ১২১টি ইউনিয়ন পরিষদকে এ প্রকল্পের অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। প্রকল্পের মোট বরাদ্দ: ২৮০ কোটি ৯৪ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা। যার মধ্যে প্রকল্প সাহায্য ২৪০ কোটি ৩১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা এবং জিওবি ৪০ কোটি ৬২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,রোববার, ২৯ সেপ্টম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

সর্বশেষ আপডেট



» এ বছর জেএসসি জেডিসি পরীক্ষা হচ্ছে না

» নতুন করে আরও ১৩১০ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত,মৃত্যু ৩১ জন

» পরীমণির বহৃত গাড়ি, মোবাইল ও ল্যাপটপসহ ১৬টি আলামত ফেরত দেওয়ার নির্দেশ

» রবীন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের ১৬ শিক্ষার্থীর চুল কেটে দেয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ করছে শিক্ষার্থীরা

» আলোচিত মুফতি কাজী ইব্রাহিম আটক করেছে ডিবি

» এসএসসি ও সমমান এবং এইচএসসি পরীক্ষা যথাসময়ে গ্রহণে সকল প্রস্তুতি আছে

» সংবিধান অনুযায়ী আগামী জাতীয় নির্বাচন যথাসময়ে অনুষ্ঠিত হবে

» প্রধানমন্ত্রীর জন্মদিন উপলক্ষে দেশব্যাপী ৭৫ লাখ ডোজ গণটিকা কর্মসূচি শুরু

» চট্টগ্রামের আগ্রাবাদে নালায় পড়ে নিখোঁজ কলেজছাত্রীর মরদেহ উদ্ধার

» পৃথক পাঁচটি মামলায় খালেদা জিয়ার জামিনের মেয়াদ এক বছর বাড়িয়েছে হাইকোর্ট

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ মঙ্গলবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রিষ্টাব্দ, ১৩ই আশ্বিন, ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

গ্রাম আদালতকে সক্রিয়করণের মাধ্যমে জনগণের ন্যায়বিচার প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করতে সরকার বদ্ধপরিকর




সিনিয়র রিপোর্টার,ঢাকা:স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম বলেছেন, গ্রাম আদালতকে সক্রিয়করণের মাধ্যমে জনগণের ন্যায়বিচার প্রাপ্তির অধিকার নিশ্চিত করা এবং আদালতে মামলার জট কমানোর জন্য বর্তমান সরকার বদ্ধপরিকর। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীও বিভিন্ন সময়ে গ্রাম আদালত Kvh©করণের প্রয়োজনীয়তার উপর গুরুত্ব প্রদান করে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা প্রদান করেছেন।

তিনি বলেন, বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্প অল্প খরচে জনগণের কাছে দ্রুততম সময়ে বিচারিক সেবা পৌঁছে দিতে সরকারকে সহায়তা করছে। ইউনিয়ন পরিষদে প্রতিষ্ঠিত গ্রাম আদালত উভয় পক্ষের মনোনীত সদস্যদের মাধ্যমে সমঝোতার ভিত্তিতে বিরোধ নিষ্পত্তি করে থাকে। ফলে সামাজিক শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় থাকে। এজন্য সরকার সারাদেশে গ্রাম আদালতগুলোকে Kvh©কর করতে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে।

মন্ত্রী জানান, জুলাই ২০১৭ হতে আগস্ট ২০১৯ পh©ন্ত দুই বছরে প্রকল্প এলাকার বিভিন্ন ইউনিয়নে ১,৩৩,৬৬৪টি মামলা নথিভুক্ত হয়েছে যার মধ্যে ১,০৬,৭০২টি মামলার রায় প্রদান করা হয়েছে এবং ১,০০,৩৩৩টি মামলার সিদ্ধান্ত (রায়) বাস্তবায়ন হয়েছে।

আজ রবিবার রাজধানীর প্যান প্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলের বলরুমে গণমাধ্যমের নেতৃস্থানীয় সাংবাদিকদের নিয়ে ‘গ্রাম আদালত বিষয়ে ব্যাপক জনসচেতনতা বৃদ্ধিতে গণমাধ্যমের ভূমিকা’ শীর্ষক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির ভাষণে তিনি এসব কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, বাংলাদেশে ইউরোপীয় ইউনিয়ন-এর রাষ্ট্রদূত রেনসে তিরিন্ক, ইউএনডিপি বাংলাদেশে-এর আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখার্জী এবং বাংলাদেশ গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পের জাতীয় প্রকল্প পরিচালক ও স্থানীয় সরকার বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রোকসানা কাদের। মুক্ত আলোচনা পর্ব সঞ্চালনা করেন বিশিষ্ট মিডিয়া ব্যক্তিত্ব সৈয়দ ইশতিয়াক রেজা।

প্রসঙ্গত,পল্লী এলাকার নারী, দরিদ্র ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠী যাতে তাদের প্রতি সংঘঠিত অন্যায়ের প্রতিকার স্থানীয় পর্যায়ে গ্রাম আদালতের মাধ্যমে দ্রুত ও স্বল্প ব্যয়ে পেতে পারে সে লক্ষ্যে গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার স্থানীয় সরকার বিভাগের মাধ্যমে ইউএনডিপি ও ইউরোপীয় ইউনিয়ন-এর আর্থিক সহযোগিতায় বাংলাদেশের ১৪টি জেলার ৫৭টি উপজেলায় ৩৫১টি ইউনিয়নে (২০০৯-২০১৫) “Activation Village courts in Bangladesh” শীর্ষক প্রকল্পের (২০০৯-২০১৫) প্রথম পর্যায়ের Kvh©ক্রম সমাপ্ত হয়েছে।
প্রথম পর্যায় সমাপ্তির পর উন্নয়ন সহযোগী সংস্থা ও বাংলাদেশ সরকারের যৌথ উদ্যোগে দেশের ২৭টি জেলার ১২৮টি উপজেলার ১০৮০টি ইউনিয়নে বাংলাদেশে গ্রাম আদালত সক্রিয়করণ (২য় পর্যায়) প্রকল্পটির (২০১৬-২০১৯) Kvh©ক্রম চলমান রয়েছে। সম্প্রতি ৩ পার্বত্য জেলার ২৬টি উপজেলার ১২১টি ইউনিয়ন পরিষদকে এ প্রকল্পের অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। প্রকল্পের মোট বরাদ্দ: ২৮০ কোটি ৯৪ লক্ষ ৩০ হাজার টাকা। যার মধ্যে প্রকল্প সাহায্য ২৪০ কোটি ৩১ লক্ষ ৮০ হাজার টাকা এবং জিওবি ৪০ কোটি ৬২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,রোববার, ২৯ সেপ্টম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
প্রধান নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Hbnews24 || Phone: +8801714043198, email: hbnews24@gmail.com