করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
১১ ২০,৩৬,৫৬৭ ১৯,৮৫,৭৬২ ২৯,৪৩৩

ঘুমানোর সময় নাকডাকা মুক্তি পেতে পান করতে পারেন এই পানীয়

একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির কমপক্ষে দৈনিক ৮ ঘণ্টা ঘুমানো উচিত। কিন্তু এ ঘুমের সময়ই অনেকেই একটি সমস্যার সম্মুখীন হন আর তা হলো নাকডাকা। খবর আনন্দবাজার।ঘুমানোর সময় আপনার নাকডাকার বদ অভ্যাসে অনেকেরই ঘুম ভেঙে যায়। এর জন্য কখনো কখনো আপনাকে শুনতে হয় তিরস্কার বা ভর্ৎসনা। কী করবেন, এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে?

মূলত নাকডাকার ক্ষেত্রে মুখগহ্বর, গলা এবং আলজিভের গঠন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে থাকে। ওজন বৃদ্ধির জন্য মুখগহ্বরের ভেতরের তালু মোটা, নরম ও নিচু হলে শ্বাসবায়ুর পথ সংকুচিত হয়। তা ছাড়া আলজিভ মোটা হওয়ার কারণেও শ্বাসবায়ু বাধাপ্রাপ্ত হয়। ফলে কম্পন এবং সেই সঙ্গে নাকডাকার শব্দ সৃষ্টি হয়।
যাদের নাক ডাকার অভ্যাস আছে তারা চিত হয়ে বিছানায় পিঠ ঠেকিয়ে শোয়ার অভ্যাসটা বাদ দিয়ে দিতে পারেন। এর পরিবর্তে বাম বা ডান পাশে কাত হয়ে শোয়ার অভ্যাস করতে পারেন।

এতেও যদি আপনার এ সমস্যার সমাধান না পাওয়া যায় তবে ঘুমের আগে পান করতে পারেন একধরনের পানীয়। এ জন্য আপনার প্রয়োজন হবে সামান্য কিছু উপকরণ।

প্রয়োজনীয় উপকরণ: আপেলের টুকরো ১/২ কাপ, গাজরের টুকরো ১/২ কাপ, লেবুর রস ২ টেবিল চামচ, আদার টুকরো ১ চা চামচ।

যেভাবে তৈরি করবেন: ব্লেন্ডারে এসব উপকরণ একসঙ্গে দিয়ে মিশিয়ে নিন। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার ঘণ্টাখানেক আগে এ পানীয়টি পান করুন। সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন এটি পান করার অভ্যাস করতে পারেন।

উপকারিতা: এ পানীয়টি শ্বাসনালি চওড়া করতে এবং ঘুমের মধ্যে শ্বাসনালি থেকে মিউকাসের দ্রুত নিঃসরণ ঘটাতে সক্ষম। তাই এ পানীয় নাকডাকা বন্ধে ম্যাজিকের মতো কাজ করবে।

আরও পড়ুন: করোনামুক্ত হলেও থাকতে পারে যেসব সমস্যা

নাকডাকার সমস্যাকে প্রাথমিকভাবে গুরুতর কিছু মনে না হলেও নাক ডাকা স্বাভাবিকভাবেই ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়। দীর্ঘদিন ঘুমের ঘাটতির কারণেও আপনি এ সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এ সমস্যা আরও বাড়তে পারে। তাই নাকডাকার সমস্যা থাকলে শুরু থেকেই গুরুত্ব দিয়ে দেখা উচিত। সেই সঙ্গে প্রতিকারের জন্য গ্রহণ করা উচিত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ।
লাইফস্টাইল,মঙ্গলবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি, এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

সর্বশেষ আপডেট



» জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে লক্ষ্মীপুরে মেঝো ভাইকে কুপিয়ে হত্যা করল ছোট ভাই

» ডেনমার্ককে ১-০ গোলে হারিয়েছে অস্ট্রেলিয়া

» কলাপাড়ায় বিট পুলিশিং উঠান বৈঠক

» কুয়াকাটায় শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন এমপি মহিব

» মাধবদীর আমদিয়ায় দেবরকে ফাঁসিয়ে বিয়ে করলেন আপন ভাবি

» ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আরও ৪২৬ জন রোগী হাসপাতালে ভর্তি ৪ জনের মৃত্যু

» জাপার চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন নিয়ে হাইকোর্টের আদেশ স্থগিত করেছে

» বিএনপি কেন তাদের সমাবেশকে ঘিরে ১০ ডিসেম্বর বেছে নিয়েছে,প্রশ্ন ওবায়দুল কাদেরের

» উন্নয়নকাজ নির্বিঘ্ন করতে বিমানবন্দর সড়কে ৩ দিন যান চলাচলে বিশেষ নির্দেশনা

» ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত আয়কর রিটার্ন জমা দিতে পারবেন করদাতারা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ১ ডিসেম্বর ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ, ১৬ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

ঘুমানোর সময় নাকডাকা মুক্তি পেতে পান করতে পারেন এই পানীয়




একজন প্রাপ্তবয়স্ক ব্যক্তির কমপক্ষে দৈনিক ৮ ঘণ্টা ঘুমানো উচিত। কিন্তু এ ঘুমের সময়ই অনেকেই একটি সমস্যার সম্মুখীন হন আর তা হলো নাকডাকা। খবর আনন্দবাজার।ঘুমানোর সময় আপনার নাকডাকার বদ অভ্যাসে অনেকেরই ঘুম ভেঙে যায়। এর জন্য কখনো কখনো আপনাকে শুনতে হয় তিরস্কার বা ভর্ৎসনা। কী করবেন, এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে?

মূলত নাকডাকার ক্ষেত্রে মুখগহ্বর, গলা এবং আলজিভের গঠন উল্লেখযোগ্য ভূমিকা পালন করে থাকে। ওজন বৃদ্ধির জন্য মুখগহ্বরের ভেতরের তালু মোটা, নরম ও নিচু হলে শ্বাসবায়ুর পথ সংকুচিত হয়। তা ছাড়া আলজিভ মোটা হওয়ার কারণেও শ্বাসবায়ু বাধাপ্রাপ্ত হয়। ফলে কম্পন এবং সেই সঙ্গে নাকডাকার শব্দ সৃষ্টি হয়।
যাদের নাক ডাকার অভ্যাস আছে তারা চিত হয়ে বিছানায় পিঠ ঠেকিয়ে শোয়ার অভ্যাসটা বাদ দিয়ে দিতে পারেন। এর পরিবর্তে বাম বা ডান পাশে কাত হয়ে শোয়ার অভ্যাস করতে পারেন।

এতেও যদি আপনার এ সমস্যার সমাধান না পাওয়া যায় তবে ঘুমের আগে পান করতে পারেন একধরনের পানীয়। এ জন্য আপনার প্রয়োজন হবে সামান্য কিছু উপকরণ।

প্রয়োজনীয় উপকরণ: আপেলের টুকরো ১/২ কাপ, গাজরের টুকরো ১/২ কাপ, লেবুর রস ২ টেবিল চামচ, আদার টুকরো ১ চা চামচ।

যেভাবে তৈরি করবেন: ব্লেন্ডারে এসব উপকরণ একসঙ্গে দিয়ে মিশিয়ে নিন। রাতে ঘুমাতে যাওয়ার ঘণ্টাখানেক আগে এ পানীয়টি পান করুন। সপ্তাহে তিন থেকে চার দিন এটি পান করার অভ্যাস করতে পারেন।

উপকারিতা: এ পানীয়টি শ্বাসনালি চওড়া করতে এবং ঘুমের মধ্যে শ্বাসনালি থেকে মিউকাসের দ্রুত নিঃসরণ ঘটাতে সক্ষম। তাই এ পানীয় নাকডাকা বন্ধে ম্যাজিকের মতো কাজ করবে।

আরও পড়ুন: করোনামুক্ত হলেও থাকতে পারে যেসব সমস্যা

নাকডাকার সমস্যাকে প্রাথমিকভাবে গুরুতর কিছু মনে না হলেও নাক ডাকা স্বাভাবিকভাবেই ঘুমের ব্যাঘাত ঘটায়। দীর্ঘদিন ঘুমের ঘাটতির কারণেও আপনি এ সমস্যার সম্মুখীন হতে পারেন। বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে এ সমস্যা আরও বাড়তে পারে। তাই নাকডাকার সমস্যা থাকলে শুরু থেকেই গুরুত্ব দিয়ে দেখা উচিত। সেই সঙ্গে প্রতিকারের জন্য গ্রহণ করা উচিত প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ।
লাইফস্টাইল,মঙ্গলবার, ১৫ ফেব্রুয়ারি, এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

প্রধান কার্যালয়: গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২ | ব্রাঞ্চ অফিস: ২৪৭ পশ্চিম মনিপুর, ২য় তলা, মিরপুর-২, ঢাকা -১২১৬।

Phone: +8801714043198, Email: hbnews24@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © HBnews24.com