করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
২১৮৩ ১৯,৭৩,৭৮৫ ১৯,০৭,৫০৯ ২৯,১৪৯

কালজয়ী গানের স্রষ্টা কে জি মুস্তাফা আর নেই

‘আয়নাতে ঐ মুখ দেখবে যখন’ অথবা ‘তোমারে লেগেছে এত যে ভালো চাঁদ বুঝি তা জানে’- এই কালজয়ী গানের স্রষ্টা কে জি মুস্তাফা আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রোববার (৮ মে) রাতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। কে জি মুস্তাফা একাধারে ভাষাসৈনিক, সাংবাদিক, কবি ও গীতিকার ছিলেন।জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন তার মৃত্যুর বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। সোমবার (৯ মে) বাদ জোহর জাতীয় প্রেসক্লাবে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনি ও হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভুগছিলেন। গত ৮ ফেব্রুয়ারি কে জি মুস্তাফাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ছিলেন। রোববার রাতে তার মৃত্যু হয়।

গীতিকার হিসেবেই কে জি মুস্তাফা বেশি পরিচিত। তিনি একজন সফল সাংবাদিক এবং কলামিস্টও। জাতীয় প্রেস ক্লাবের জ্যেষ্ঠ সদস্যও ছিলেন তিনি।১৯৩৭ সালে নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন কে জি মুস্তাফা। ১৯৬০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।ছাত্রাবস্থায় ১৯৫৮ সালে দৈনিক ইত্তেহাদে শিক্ষানবিশ হিসেবে সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি তার। ওই বছরই ‘দৈনিক মজলুম’-এ সহ-সম্পাদক হন এবং পত্রিকাটির বিলুপ্তির আগপর্যন্ত বহাল ছিলেন। ১৯৭৬ সালে তিনি বিসিএস (তথ্য) ক্যাডারভুক্ত হন এবং চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের সহকারী সম্পাদক পদে যোগ দেন। ১৯৯৬ সালে সিনিয়র সম্পাদক (যুগ্ম সচিব পদমর্যাদা) হিসেবে অবসর নেন।

বেশ কিছু সিনেমার সহকারী পরিচালক হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি। রয়েছে বেশকিছু কাব্যগ্রন্থ, ছড়ার বই, গানের বই, গদ্যগ্রন্থ, গানের সিডি, ক্যাসেটও। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পদক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সঙ্গীত বিভাগ কৃর্তক পদক ‘দেশবরেণ্য গীতিকার’ পদকসহ আরো বহু পদকে ভূষিত হয়েছেন তিনি।
ঢাকা,রোববার ০৮ মে,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

সর্বশেষ আপডেট



» হলি আর্টিজান হামলার ষষ্ঠ বার্ষিকী উপলক্ষে দীপ্ত শপথ ভাস্কর্যে শ্রদ্ধা নিবেদন করেন র‍্যাব ডিজি

» রাজধানীর যাত্রাবাড়ী এলাকায় পৃথক দুই জায়গায় লাগা আগুন নিয়ন্ত্রণে

» হলি আর্টিজানে জঙ্গি হামলায় নিহতদের প্রতি শ্রদ্ধা

» আসন্ন পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে ট্রেনের অগ্রিম টিকিট বিক্রি শুরু

» Cougars Looking For Young – Casual Cougar dating

» ২০২২-২৩ অর্থ বছরের জন্য ৬ লাখ ৭৮ হাজার ৬৪ কোটি টাকার বাজেট পাস

» আগামী ১০ জুলাই, রোববার দেশে পবিত্র ঈদুল আজহা উদযাপিত হবে

» সাভারের আশুলিয়ায় শিক্ষককে পিটিয়ে হত্যা: জিতুর ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

» নতুন করে আরও ২১৮৩ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত, চার জনের মৃত্যু হয়েছে।

» রাজধানীর হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ২৩ লাখ সৌদি রিয়াল জব্দ

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

ফোন:+88 01714043198

প্রধান কার্যালয়: গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

ব্রাঞ্চ অফিস: ২৪৭ পশ্চিম মনিপুর, ২য় তলা, মিরপুর-২, ঢাকা -১২১৬।

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শুক্রবার, ১ জুলাই ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ, ১৭ই আষাঢ়, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

কালজয়ী গানের স্রষ্টা কে জি মুস্তাফা আর নেই




‘আয়নাতে ঐ মুখ দেখবে যখন’ অথবা ‘তোমারে লেগেছে এত যে ভালো চাঁদ বুঝি তা জানে’- এই কালজয়ী গানের স্রষ্টা কে জি মুস্তাফা আর নেই (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। রোববার (৮ মে) রাতে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেছেন। মৃত্যুকালে তার বয়স হয়েছিল ৮৬ বছর। কে জি মুস্তাফা একাধারে ভাষাসৈনিক, সাংবাদিক, কবি ও গীতিকার ছিলেন।জাতীয় প্রেস ক্লাবের সভাপতি ফরিদা ইয়াসমিন তার মৃত্যুর বিষয়টি সংবাদমাধ্যমকে নিশ্চিত করেছেন। সোমবার (৯ মে) বাদ জোহর জাতীয় প্রেসক্লাবে তার নামাজে জানাজা অনুষ্ঠিত হবে।

তিনি দীর্ঘদিন ধরে কিডনি ও হৃদযন্ত্রের সমস্যায় ভুগছিলেন। গত ৮ ফেব্রুয়ারি কে জি মুস্তাফাকে হাসপাতালে ভর্তি করা হয় এবং ১৬ ফেব্রুয়ারি থেকে তিনি নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে ছিলেন। রোববার রাতে তার মৃত্যু হয়।

গীতিকার হিসেবেই কে জি মুস্তাফা বেশি পরিচিত। তিনি একজন সফল সাংবাদিক এবং কলামিস্টও। জাতীয় প্রেস ক্লাবের জ্যেষ্ঠ সদস্যও ছিলেন তিনি।১৯৩৭ সালে নোয়াখালী জেলার বেগমগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন কে জি মুস্তাফা। ১৯৬০ সালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি লাভ করেন।ছাত্রাবস্থায় ১৯৫৮ সালে দৈনিক ইত্তেহাদে শিক্ষানবিশ হিসেবে সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি তার। ওই বছরই ‘দৈনিক মজলুম’-এ সহ-সম্পাদক হন এবং পত্রিকাটির বিলুপ্তির আগপর্যন্ত বহাল ছিলেন। ১৯৭৬ সালে তিনি বিসিএস (তথ্য) ক্যাডারভুক্ত হন এবং চলচ্চিত্র ও প্রকাশনা অধিদপ্তরের সহকারী সম্পাদক পদে যোগ দেন। ১৯৯৬ সালে সিনিয়র সম্পাদক (যুগ্ম সচিব পদমর্যাদা) হিসেবে অবসর নেন।

বেশ কিছু সিনেমার সহকারী পরিচালক হিসেবেও কাজ করেছেন তিনি। রয়েছে বেশকিছু কাব্যগ্রন্থ, ছড়ার বই, গানের বই, গদ্যগ্রন্থ, গানের সিডি, ক্যাসেটও। বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি পদক, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সঙ্গীত বিভাগ কৃর্তক পদক ‘দেশবরেণ্য গীতিকার’ পদকসহ আরো বহু পদকে ভূষিত হয়েছেন তিনি।
ঢাকা,রোববার ০৮ মে,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

ফোন:+88 01714043198

প্রধান কার্যালয়: গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

ব্রাঞ্চ অফিস: ২৪৭ পশ্চিম মনিপুর, ২য় তলা, মিরপুর-২, ঢাকা -১২১৬।

© Hbnews24 || Phone: +8801714043198, email: hbnews24@gmail.com