করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
৬৭৯ ২০,২৪,৪৮৯ ১৯,৬৪,৫০১ ২৯,৩৬২

দেশে এখনও যে পরিমাণ খাদ্য মজুত আছে, তাতে হাহাকারের সুযোগ নেই

দেশের প্রকৃতির যেমন স্থিরতা নেই, একইভাবে দেশের ব্যবসায়ীদের মাঝেও নেই কোনো স্থিরতা। অস্থির ব্যবসায়ীরা জিনিসপত্রের দাম হঠাৎ করেই বাড়িয়ে দেন। দেশে এখনও যে পরিমাণ খাদ্য মজুত আছে, তাতে হাহাকারের সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। বলেন, দুর্যোগ ও বন্যার কথা মাথায় রেখে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া আছে।

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে এ কথা জানান তিনি। আরও জানিয়েছেন, প্রকৃতি অস্থির, ব্যবসায়ীরাও অস্থির। বর্তমানে চালের কোনো ঘাটতি নেই।সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, আমাদের দেশের প্রকৃতি যেমন অস্থির, দেশের ব্যবসায়ীরাও তেমনি অস্থির। চালের সরাবরাহ প্রচুর আছে। সেখানে চালের দাম বৃদ্ধি পাওয়াটা অনুচিত বলে আমি মনে করি।

তিনি আরও বলেন, ব্যবসায়ীরা যখন চালের দাম রাতারাতি ৭-৮ টাকা বাড়িয়ে দিলো, আমি সেদিন সারারাত ঘুমাইনি। অফিসে সময়ের আগেই চলে আসি। সেদিনই ঘোষণা দিয়েছিলাম যে ১ তারিখে (সেপ্টেম্বর) ওএমএস চালু হবে। ওইদিন এটা আমরা উদ্বোধনও করেছি এবং এখনো চালু আছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, এ বিষয়ে আমরা অনেকগুলো পদক্ষেপ নিয়েছি। আমাদের আরও অনেক পরিকল্পনা আছে। ভোক্তারা যাতে শান্তি পায়, দেশে যেন হাহাকার না হয়। সেভাবেই আমরা কাজ করছি। অবশ্য দেশে যে মজুত আছে তাতে হাহাকার সৃষ্টি হওয়ার কোনো কারণ নেই।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, মিনিকেট চাল বলে কিছু নেই। মিনিকেটের উতপত্তি কোথায়। অনেক আগে উচ্চ ফলনশীল চিকন ধানের বীজ ভারত থেকে আমদানি করা হত। সেই বীজ মিনি প্যাকেটে আসতো। সেই মিনি প্যাকেট থেকে মিনিকেট নাম দেওয়া হয়েছে। ভোক্তা অধিকার এ নাম উচ্ছেদ করতে চেষ্টা করছে। এ বিষয়ে আইন অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে আইন মন্ত্রণালয়। বস্তার গায়ে নাম যাই লিখুক না কেন, ধানের জাত উল্লেখ থাকতে হবে। চালের ছাটাইয়ের একটা রেশিও থাকবে, তার বেশি ছাটাই করা যাবেনা।

দেশ এবং জনগণের উপকারে হবে এমন যেকোনো তথ্য জনসাধারণকে দেওয়ার জন্য সাংবাদিকদের আহ্বান জানান খাদ্যমন্ত্রী।
ঢাকা,মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

সর্বশেষ আপডেট



» ফুলবাড়ী ২৯ বিজিবির ৪২তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী কেক কেটে পালিত॥

» নতুন করে আরও ৬৭৯ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত,দুজনের মৃত্যু হয়েছে।

» গত ২৪ ঘণ্টায় ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে আরও ৫০৬ জন নতুন রোগী দেশের বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি

» আবারও লাঠি নিয়ে মাঠে নামলে বিএনপির খবর আছে জাতীয় পতাকার অবমাননা করে রাজনীতি মেনে নেয়া হবে না

» তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা আর ফিরে আসার সুযোগ নেই

» রাজধানীতে অজ্ঞানপার্টির খপ্পরে পড়ে এক ব্যবসায়ী মারা গেছেন

» পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় জাতীয় পার্টির নেতাকে কুপিয়ে পা বিচ্ছিন্ন করেছে সন্ত্রাসীরা

» মিয়ানমারের ক্ষমতাচ্যুত নেত্রী অং সান সু চির আরও ৩ বছরের কারাদণ্ড

» ৭৬ পাউন্ড কেক কেটে প্রধান মন্ত্রীর  জন্মদিন পালন করল মাধবদী শহর আওয়ামীলীগ।

» অভিনব কায়দায় রাজধানীর বিভিন্ন এলাকার বাসা-বাড়ি ও দোকানের গ্রিল কেটে চুরি করতেন আজিজুল

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বৃহস্পতিবার, ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ, ১৪ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

দেশে এখনও যে পরিমাণ খাদ্য মজুত আছে, তাতে হাহাকারের সুযোগ নেই




দেশের প্রকৃতির যেমন স্থিরতা নেই, একইভাবে দেশের ব্যবসায়ীদের মাঝেও নেই কোনো স্থিরতা। অস্থির ব্যবসায়ীরা জিনিসপত্রের দাম হঠাৎ করেই বাড়িয়ে দেন। দেশে এখনও যে পরিমাণ খাদ্য মজুত আছে, তাতে হাহাকারের সুযোগ নেই বলে জানিয়েছেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার। বলেন, দুর্যোগ ও বন্যার কথা মাথায় রেখে সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া আছে।

মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে এ কথা জানান তিনি। আরও জানিয়েছেন, প্রকৃতি অস্থির, ব্যবসায়ীরাও অস্থির। বর্তমানে চালের কোনো ঘাটতি নেই।সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেন, আমাদের দেশের প্রকৃতি যেমন অস্থির, দেশের ব্যবসায়ীরাও তেমনি অস্থির। চালের সরাবরাহ প্রচুর আছে। সেখানে চালের দাম বৃদ্ধি পাওয়াটা অনুচিত বলে আমি মনে করি।

তিনি আরও বলেন, ব্যবসায়ীরা যখন চালের দাম রাতারাতি ৭-৮ টাকা বাড়িয়ে দিলো, আমি সেদিন সারারাত ঘুমাইনি। অফিসে সময়ের আগেই চলে আসি। সেদিনই ঘোষণা দিয়েছিলাম যে ১ তারিখে (সেপ্টেম্বর) ওএমএস চালু হবে। ওইদিন এটা আমরা উদ্বোধনও করেছি এবং এখনো চালু আছে।

মন্ত্রী আরও বলেন, এ বিষয়ে আমরা অনেকগুলো পদক্ষেপ নিয়েছি। আমাদের আরও অনেক পরিকল্পনা আছে। ভোক্তারা যাতে শান্তি পায়, দেশে যেন হাহাকার না হয়। সেভাবেই আমরা কাজ করছি। অবশ্য দেশে যে মজুত আছে তাতে হাহাকার সৃষ্টি হওয়ার কোনো কারণ নেই।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রী বলেন, মিনিকেট চাল বলে কিছু নেই। মিনিকেটের উতপত্তি কোথায়। অনেক আগে উচ্চ ফলনশীল চিকন ধানের বীজ ভারত থেকে আমদানি করা হত। সেই বীজ মিনি প্যাকেটে আসতো। সেই মিনি প্যাকেট থেকে মিনিকেট নাম দেওয়া হয়েছে। ভোক্তা অধিকার এ নাম উচ্ছেদ করতে চেষ্টা করছে। এ বিষয়ে আইন অনুমোদনের অপেক্ষায় রয়েছে আইন মন্ত্রণালয়। বস্তার গায়ে নাম যাই লিখুক না কেন, ধানের জাত উল্লেখ থাকতে হবে। চালের ছাটাইয়ের একটা রেশিও থাকবে, তার বেশি ছাটাই করা যাবেনা।

দেশ এবং জনগণের উপকারে হবে এমন যেকোনো তথ্য জনসাধারণকে দেওয়ার জন্য সাংবাদিকদের আহ্বান জানান খাদ্যমন্ত্রী।
ঢাকা,মঙ্গলবার ১৩ সেপ্টেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

প্রধান কার্যালয়: গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২ | ব্রাঞ্চ অফিস: ২৪৭ পশ্চিম মনিপুর, ২য় তলা, মিরপুর-২, ঢাকা -১২১৬।

Phone: +8801714043198, Email: hbnews24@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © HBnews24.com