করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
১০ ২০,৩৭,৫১৬ ১৯,৯২,২২৪ ২৯,৪৪২

সরকারি হাসপাতালে যেখানে যে চিকিৎসক কর্মরত আছেন, সেখানেই রোগী দেখতে পারবেন চিকিৎসকরা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

সরকারি হাসপাতালে যেখানে যে চিকিৎসক কর্মরত আছেন, সেখানেই প্র্যাকটিস করতে হবে। যাতে বাইরে কোনো ক্লিনিক-হাসপাতালে যেতে না হয়, জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।আগামী মার্চ মাস থেকে নিজ প্রতিষ্ঠানে রোগী দেখতে পারবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। রোববার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে, স্বাস্থ্যখাতের কিছু জরুরি বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ডাক্তাররা এখন থেকে নিজেদের প্রতিষ্ঠানে প্রাইভেট প্র্যাক্টিস করতে পারবেন। ফলে বাইরে যেতে হবে না। আগামী মার্চ মাস থেকে এই প্রাতিষ্ঠানিক প্র্যাক্টিস শুরু হবে। আমরা কোনো ব্লক করব না। তবে কাজ করার জন্য তাগিদ দেব। একটা টাইম গাইড লাইন থাকবে। কোনো চিকিৎসকের প্রাইভেট প্র্যাক্টিস বন্ধ হবে না। নিজের প্রতিষ্ঠানে কাজ করার পর যদি সময় থাকে তাহলে তারা করতে পারবেন।

তিনি বলেন, যে প্রতিষ্ঠানে ডাক্তাররা কর্মরত আছেন, সেখানেই তারা প্রাইভেট রোগী দেখতে পারবেন। এতে বাইরের ব্যক্তিগত মালিকানাধীন হাসপাতালে যেয়ে তাদের রোগী দেখতে হবে না। আমরা এই সুবিধাটা করে দিচ্ছি। কর্মস্থলে রোগী দেখার ক্ষেত্রে ডাক্তারদের কী কী সুবিধা-অসুবিধা আছে, তা নিয়ে আমরা বিশদ আলোচনা করেছি। ডাক্তাররা কোথায় বসবেন, তাদের ফি কত হবে এবং কারা কারা রোগী দেখবেন, কতক্ষণ দেখবেন- সব বিষয়ে আমাদের কথা হয়েছে। এ বিষয়ে টিম গঠন করে দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আশা করছি, স্বাধীনতার মাস মার্চ থেকে আমরা প্রাতিষ্ঠানিক প্র্যাকটিস শুরু করতে পারব। পর্যায়ক্রমে আমাদের এ সংক্রান্ত পাইলট প্রজেক্ট বাস্তবায়ন শুরু হবে। এটি একেবারে ছোট না। পঞ্চাশটি উপজেলা, ২০টি জেলা ও পাঁচটি মেডিকেল কলেজ থাকবে। এনিয়ে আমরা যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছি। এর মাধ্যমে জনগণ আরেকটু ভালো স্বাস্থ্যসেবা পাবেন। কারণ হাসপাতালে এসে তারা চিকিৎসক পাবেন। যারা ভর্তি আছেন, তারাও চিকিৎসা পাবেন। একসঙ্গে অনেক ডাক্তার পাওয়া যাবে। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষারও ব্যবস্থা থাকবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বাইরে ডাক্তার দেখাতে যে খরচ হয়, তার চেয়ে কমে এই সেবা পাওয়া যাবে- এটি আমাদের উদ্যোগ। এ ক্ষেত্রে আমরা সাংবাদিকদের সহযোগিতা চাই।এ সময়ে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে সফলতার সঙ্গে কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, চোখের কর্নিয়া ও দুটি কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। যা সারা ইসলাম নামে একজন কিশোরী তার মায়ের সম্মতিক্রমে এই কিডনি দিয়ে গেছেন। যাদের শরীরে এই কিডনি ও কর্নিয়া স্থাপন করা হয়েছে, তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারবেন।

মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে এ কাজটি হয়েছে, আমরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ, তাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। কিছুদিন আগে তারা লিভার প্রতিস্থাপন করেছেন। স্বাস্থ্যসেবায় যা মাইলফলক। আমরা আশা করছি বাংলাদেশ কিডনি, কর্নিয়া ও লিভার প্রতিস্থাপন করা হবে। আমরা সেই ব্যবস্থা করে দিচ্ছি। যা দ্রুত গতিতে হচ্ছে। মানুষ বিদেশে যায় এসব চিকিৎসার জন্যই। যা আমরা বাংলাদেশে করতে সক্ষম হয়েছি।তিনি বলেন, কিডনি ইনস্টিটিউটেও ট্রান্সপ্ল্যান্ট হচ্ছে। যা আরও জোরদার করা হবে। শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউটেও কিডনি প্রতিস্থাপনের ব্যবস্থা করছি। আমরা কিছুদিন আগে আমেরিকায় গিয়েছিলাম। সেখানকার নেবরাসিকা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে আমাদের চুক্তি হয়েছে। তারা আমাদের কিডনি ও লিভার প্রতিস্থাপনে সহযোগিতা, প্রশিক্ষণ দেবেন। এছাড়া টিকা উৎপাদনে তারা আমাদের সহযোগিতা করবেন বলে একটি সমঝোতা সই করেছি। আমাদের প্রতিনিয়ত চেষ্টা আছে স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নের। মানুষকে যাতে বিদেশে যেতে না হয়, সেই চেষ্টা আমরা করছি।
ঢাকা,রোববার ২২ জানুয়ারি এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

সর্বশেষ আপডেট



» ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে: আইনমন্ত্রী

» চরদিঘলদীতে ঘুমন্ত গ্রামবাসীর উপর দেলোয়ার ও ইউনুছ বাহিনী টেটা হামলা করতে গিয়ে গনপিটুনীর শিকার

» এক সময়ের অবহেলিত দক্ষিণাঞ্চল এখন উন্নয়নের রোল মডেল… এমপি মহিব

» নতুন করে আরও ১০ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত,একজনের মৃত্যু হয়েছে।

» সব দল পূ্র্ণশক্তি নিয়েই নির্বাচনী মাঠে নামুক; আওয়ামী লীগ তাদের সঙ্গে খেলেই জিততে চায়

» হুজিবি’র প্রধান সমন্বয়কসহ ৬ জনকে গ্রেফতার করেছে সিটিটিসি

» আওয়ামী লীগ নির্বাচনে জিতলেও মানুষের পাশে আছে, হারলেও পাশে থাকবে

» কালবিলম্ব না করে বর্তমান সরকারকে পদত্যাগ করার আহ্বান জানিয়েছেন বিএনপির মহাসচিব

» ভারতের ঝাড়খণ্ড রাজ্যের একটি হাসপাতালে অগ্নিকাণ্ডে অন্তত ৫ জন নিহত

» ৩ দিনের ছুটিতে কুয়াকাটায় পর্যটকের ঢল

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ রবিবার, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩ খ্রিষ্টাব্দ, ১৫ই মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

সরকারি হাসপাতালে যেখানে যে চিকিৎসক কর্মরত আছেন, সেখানেই রোগী দেখতে পারবেন চিকিৎসকরা: স্বাস্থ্যমন্ত্রী




সরকারি হাসপাতালে যেখানে যে চিকিৎসক কর্মরত আছেন, সেখানেই প্র্যাকটিস করতে হবে। যাতে বাইরে কোনো ক্লিনিক-হাসপাতালে যেতে না হয়, জানিয়েছেন স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক।আগামী মার্চ মাস থেকে নিজ প্রতিষ্ঠানে রোগী দেখতে পারবেন বলে জানিয়েছেন তিনি। রোববার (২২ জানুয়ারি) দুপুরে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে, স্বাস্থ্যখাতের কিছু জরুরি বিষয় নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, ডাক্তাররা এখন থেকে নিজেদের প্রতিষ্ঠানে প্রাইভেট প্র্যাক্টিস করতে পারবেন। ফলে বাইরে যেতে হবে না। আগামী মার্চ মাস থেকে এই প্রাতিষ্ঠানিক প্র্যাক্টিস শুরু হবে। আমরা কোনো ব্লক করব না। তবে কাজ করার জন্য তাগিদ দেব। একটা টাইম গাইড লাইন থাকবে। কোনো চিকিৎসকের প্রাইভেট প্র্যাক্টিস বন্ধ হবে না। নিজের প্রতিষ্ঠানে কাজ করার পর যদি সময় থাকে তাহলে তারা করতে পারবেন।

তিনি বলেন, যে প্রতিষ্ঠানে ডাক্তাররা কর্মরত আছেন, সেখানেই তারা প্রাইভেট রোগী দেখতে পারবেন। এতে বাইরের ব্যক্তিগত মালিকানাধীন হাসপাতালে যেয়ে তাদের রোগী দেখতে হবে না। আমরা এই সুবিধাটা করে দিচ্ছি। কর্মস্থলে রোগী দেখার ক্ষেত্রে ডাক্তারদের কী কী সুবিধা-অসুবিধা আছে, তা নিয়ে আমরা বিশদ আলোচনা করেছি। ডাক্তাররা কোথায় বসবেন, তাদের ফি কত হবে এবং কারা কারা রোগী দেখবেন, কতক্ষণ দেখবেন- সব বিষয়ে আমাদের কথা হয়েছে। এ বিষয়ে টিম গঠন করে দেওয়া হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, আশা করছি, স্বাধীনতার মাস মার্চ থেকে আমরা প্রাতিষ্ঠানিক প্র্যাকটিস শুরু করতে পারব। পর্যায়ক্রমে আমাদের এ সংক্রান্ত পাইলট প্রজেক্ট বাস্তবায়ন শুরু হবে। এটি একেবারে ছোট না। পঞ্চাশটি উপজেলা, ২০টি জেলা ও পাঁচটি মেডিকেল কলেজ থাকবে। এনিয়ে আমরা যাত্রা শুরু করতে যাচ্ছি। এর মাধ্যমে জনগণ আরেকটু ভালো স্বাস্থ্যসেবা পাবেন। কারণ হাসপাতালে এসে তারা চিকিৎসক পাবেন। যারা ভর্তি আছেন, তারাও চিকিৎসা পাবেন। একসঙ্গে অনেক ডাক্তার পাওয়া যাবে। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষারও ব্যবস্থা থাকবে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বাইরে ডাক্তার দেখাতে যে খরচ হয়, তার চেয়ে কমে এই সেবা পাওয়া যাবে- এটি আমাদের উদ্যোগ। এ ক্ষেত্রে আমরা সাংবাদিকদের সহযোগিতা চাই।এ সময়ে বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে সফলতার সঙ্গে কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছে জানিয়ে স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, চোখের কর্নিয়া ও দুটি কিডনি প্রতিস্থাপন করা হয়েছে। যা সারা ইসলাম নামে একজন কিশোরী তার মায়ের সম্মতিক্রমে এই কিডনি দিয়ে গেছেন। যাদের শরীরে এই কিডনি ও কর্নিয়া স্থাপন করা হয়েছে, তারা স্বাভাবিক জীবনে ফিরে যেতে পারবেন।

মন্ত্রী বলেন, বঙ্গবন্ধু মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে এ কাজটি হয়েছে, আমরা তাদের প্রতি কৃতজ্ঞ, তাদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। কিছুদিন আগে তারা লিভার প্রতিস্থাপন করেছেন। স্বাস্থ্যসেবায় যা মাইলফলক। আমরা আশা করছি বাংলাদেশ কিডনি, কর্নিয়া ও লিভার প্রতিস্থাপন করা হবে। আমরা সেই ব্যবস্থা করে দিচ্ছি। যা দ্রুত গতিতে হচ্ছে। মানুষ বিদেশে যায় এসব চিকিৎসার জন্যই। যা আমরা বাংলাদেশে করতে সক্ষম হয়েছি।তিনি বলেন, কিডনি ইনস্টিটিউটেও ট্রান্সপ্ল্যান্ট হচ্ছে। যা আরও জোরদার করা হবে। শেখ রাসেল গ্যাস্ট্রোলিভার ইনস্টিটিউটেও কিডনি প্রতিস্থাপনের ব্যবস্থা করছি। আমরা কিছুদিন আগে আমেরিকায় গিয়েছিলাম। সেখানকার নেবরাসিকা মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের সঙ্গে আমাদের চুক্তি হয়েছে। তারা আমাদের কিডনি ও লিভার প্রতিস্থাপনে সহযোগিতা, প্রশিক্ষণ দেবেন। এছাড়া টিকা উৎপাদনে তারা আমাদের সহযোগিতা করবেন বলে একটি সমঝোতা সই করেছি। আমাদের প্রতিনিয়ত চেষ্টা আছে স্বাস্থ্য সেবার উন্নয়নের। মানুষকে যাতে বিদেশে যেতে না হয়, সেই চেষ্টা আমরা করছি।
ঢাকা,রোববার ২২ জানুয়ারি এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

প্রধান কার্যালয়: গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২ | ব্রাঞ্চ অফিস: ২৪৭ পশ্চিম মনিপুর, ২য় তলা, মিরপুর-২, ঢাকা -১২১৬।

Phone: +8801714043198, Email: hbnews24@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © HBnews24.com