বাড়ির কোন জিনিস কত দিন অন্তর পরিষ্কার করবেন?

আপনি কি অগোছালো নাকি বেশ টিপটপ গুছিয়ে রাখেন বাড়ি? জানেন কি শুধু গুছিয়ে রাখা মানেই পরিচ্ছন্ন রাখা নয়?পরিষ্কার রাখারও প্রয়োজন রয়েছে? ওপর ওপর গুছিয়ে রাখলেও মাইক্রোওয়েভ, কার্পেট বা রেফ্রিজরেটর নিয়মিত পরিষ্কার রাখেন কি? এগুলোও কিন্তু নিয়মিত পরিষ্কার করা প্রয়োজন। জেনে নিন কোন জিনিস কত দিন অন্তর পরিষ্কার করা প্রয়োজন।
মাইক্রোওয়েভ:
সপ্তাহে এক দিন মাইক্রোওয়েভ ভাল করে মুছে নিন। মাসে দু’বার ভাল করে পরিষ্কার করুন। আধ কাপ জল ও আধ কাপ ভিনিগার মিশিয়ে একটা মাইক্রোওয়েভ প্রুফ ডিশে গরম করুন যতক্ষণ না মাইক্রোওয়েভ উইন্ডোতে বাষ্প ভরে যাচ্ছে।তারপর স্পঞ্জ দিয়ে ওয়াইপ করে নিন।
বাথটব:
অনেকেই মনে করেন রোজ স্নানের সময়ই সাবান জলে ধোওয়া হয় বলে বাথটব আলাদা করে পরিষ্কার করার দরকার পড়ে না। কিন্তু ভেজা বাথটবে ব্যাকটেরিয়া জন্মায়। তাই সপ্তাহে এক দিন বাথটব ভাল করে পরিষ্কার করুন।
বিছানার চাদর:
বিছানার চাদরে বিশেষ ধুলো ময়লা লাগে না তাই বেশি ঘন ঘন পরিষ্কার করার দরকার হয় না। তবে গরমে ঘামে বেশি নোংরা হয়। এক-দু’সপ্তাহ অন্তর বিছানা পরিষ্কার করুন।
রেফ্রিজারেটর:
ফ্রিজে খাবার রাখার কারণে অনেক বেশি ব্যাকটেরিয়া সঞ্চার হয়। প্রতি মাসে অন্তত এক বার নিয়ম করে রেফ্রিজারেটর পরিষ্কার করুন। নোংরা না হলেও।
কম্পিউটার:
কম্পিউটার টেবিলে বসে শুধু কাজ করাই নয়, কাজ করতে করতে খাবার খান অনেকে। কম্পিউটার ঠিক মতো ঢেকে না রাখায় ধুলো পড়ে। প্রতি সপ্তাহে অবশ্যই নিয়ম করে এক দিন পরিষ্কার করুন।
বালিশ:
বালিশ বেশি ঘন ঘন পরিষ্কার করা উচিত নয়। তবে একেবারেই পরিষ্কার করলেন না এমনটাও যেন না হয়। বালিশের কভার অনেকে নিয়মিত পরিষ্কার করলেও বালিশ তিন মাস অন্তর পরিষ্কার করুন।
কার্পেট:
শুধু ভ্যাক্যুম ক্লিনিংই কার্পেট পরিষ্কারের জন্য যথেষ্ট নয়। ৬ মাস থেকে এক বছর অন্তর কার্পেট পরিষ্কার করুন।
ম্যাট্রেস:
বিছানার চাদর নিয়মিত পরিষ্কার করলেও ম্যাট্রেস কেউই পরিষ্কার করে না। এর থেকে জীবাণু ছড়ায়। দু’মাস অন্তর পরিষ্কার করুন, রোদে দিন।
কিচেন বেঞ্চটপ:
বাড়ির সব রান্না এখানেই হয়। কাজেই স্বাস্থ্য ভাল রাখতে রান্নাঘর পরিষ্কার রাখা সবচেয়ে আগে প্রয়োজন। নাহলে জীবাণু সংক্রমণ হবেই। প্রতি দিন রান্নাঘরের স্ল্যাব পরিষ্কার করুন।
স্নানের তোয়ালে:
ভেজা, অপরিষ্কার তোয়ালে থেকে সবচেয়ে বেশি জীবাণু সংক্রমণ হয়। তিন বার ব্যবহার করার পরই তোয়ালে কেচে নিন।

মঞ্জুর আহমেদ শামিম,প্রতিনিধিঃ
লাইফস্টাইল,শনিবার, ১৪ মে, এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» পুরান ঢাকার শহীদনগরের কারখানার আগুন ফায়ার সার্ভিসের চেষ্টায় নিয়ন্ত্রণে

» বাস থেকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে সিকৃবি এক শিক্ষার্থীকে হত্যার অভিযোগ

» পুরান ঢাকার শহীদনগরের একটি কারখানায় আগুন, নিয়ন্ত্রণে কাজ করছে ফায়ার সার্ভিসের ৭টি ইউনিট

» তৃতীয় ধাপে ১১৭ টি উপজেলায় ভোটগ্রহণ কাল রোববার

» রাজধানীর গুলিস্তানে ছিনতাইকারীর গুলিতে দুইজন আহত

» রাজধানীর গুলিস্তানে ছিনতাইকারীর গুলিতে দুইজন আহত হয়েছেন।

» ডাকসু’র দায়িত্ব নিল নবনির্বাচিত কমিটি

» নোয়াখালীর সুবর্ণচরে গণধর্ষণ মামলার প্রধান আসামি রুহুল আমিনের জামিন আদেশ প্রত্যাহার

» ব‌রিশা‌লে সড়ক দুর্ঘটনায় বিএম ক‌লেজছাত্রীসহ সাতজন মৃত্যুর প্র‌তিবা‌দে বি‌ক্ষোভ

» ডাকসুর কার্যকরী পরিষদের প্রথম বৈঠক শুরু, দায়িত্ব নিচ্ছেন ভিপি নুরুল হক নুর ও জিএস গোলাম রাব্বানীসহ অন্য প্রতিনিধিরা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

বাড়ির কোন জিনিস কত দিন অন্তর পরিষ্কার করবেন?

আপনি কি অগোছালো নাকি বেশ টিপটপ গুছিয়ে রাখেন বাড়ি? জানেন কি শুধু গুছিয়ে রাখা মানেই পরিচ্ছন্ন রাখা নয়?পরিষ্কার রাখারও প্রয়োজন রয়েছে? ওপর ওপর গুছিয়ে রাখলেও মাইক্রোওয়েভ, কার্পেট বা রেফ্রিজরেটর নিয়মিত পরিষ্কার রাখেন কি? এগুলোও কিন্তু নিয়মিত পরিষ্কার করা প্রয়োজন। জেনে নিন কোন জিনিস কত দিন অন্তর পরিষ্কার করা প্রয়োজন।
মাইক্রোওয়েভ:
সপ্তাহে এক দিন মাইক্রোওয়েভ ভাল করে মুছে নিন। মাসে দু’বার ভাল করে পরিষ্কার করুন। আধ কাপ জল ও আধ কাপ ভিনিগার মিশিয়ে একটা মাইক্রোওয়েভ প্রুফ ডিশে গরম করুন যতক্ষণ না মাইক্রোওয়েভ উইন্ডোতে বাষ্প ভরে যাচ্ছে।তারপর স্পঞ্জ দিয়ে ওয়াইপ করে নিন।
বাথটব:
অনেকেই মনে করেন রোজ স্নানের সময়ই সাবান জলে ধোওয়া হয় বলে বাথটব আলাদা করে পরিষ্কার করার দরকার পড়ে না। কিন্তু ভেজা বাথটবে ব্যাকটেরিয়া জন্মায়। তাই সপ্তাহে এক দিন বাথটব ভাল করে পরিষ্কার করুন।
বিছানার চাদর:
বিছানার চাদরে বিশেষ ধুলো ময়লা লাগে না তাই বেশি ঘন ঘন পরিষ্কার করার দরকার হয় না। তবে গরমে ঘামে বেশি নোংরা হয়। এক-দু’সপ্তাহ অন্তর বিছানা পরিষ্কার করুন।
রেফ্রিজারেটর:
ফ্রিজে খাবার রাখার কারণে অনেক বেশি ব্যাকটেরিয়া সঞ্চার হয়। প্রতি মাসে অন্তত এক বার নিয়ম করে রেফ্রিজারেটর পরিষ্কার করুন। নোংরা না হলেও।
কম্পিউটার:
কম্পিউটার টেবিলে বসে শুধু কাজ করাই নয়, কাজ করতে করতে খাবার খান অনেকে। কম্পিউটার ঠিক মতো ঢেকে না রাখায় ধুলো পড়ে। প্রতি সপ্তাহে অবশ্যই নিয়ম করে এক দিন পরিষ্কার করুন।
বালিশ:
বালিশ বেশি ঘন ঘন পরিষ্কার করা উচিত নয়। তবে একেবারেই পরিষ্কার করলেন না এমনটাও যেন না হয়। বালিশের কভার অনেকে নিয়মিত পরিষ্কার করলেও বালিশ তিন মাস অন্তর পরিষ্কার করুন।
কার্পেট:
শুধু ভ্যাক্যুম ক্লিনিংই কার্পেট পরিষ্কারের জন্য যথেষ্ট নয়। ৬ মাস থেকে এক বছর অন্তর কার্পেট পরিষ্কার করুন।
ম্যাট্রেস:
বিছানার চাদর নিয়মিত পরিষ্কার করলেও ম্যাট্রেস কেউই পরিষ্কার করে না। এর থেকে জীবাণু ছড়ায়। দু’মাস অন্তর পরিষ্কার করুন, রোদে দিন।
কিচেন বেঞ্চটপ:
বাড়ির সব রান্না এখানেই হয়। কাজেই স্বাস্থ্য ভাল রাখতে রান্নাঘর পরিষ্কার রাখা সবচেয়ে আগে প্রয়োজন। নাহলে জীবাণু সংক্রমণ হবেই। প্রতি দিন রান্নাঘরের স্ল্যাব পরিষ্কার করুন।
স্নানের তোয়ালে:
ভেজা, অপরিষ্কার তোয়ালে থেকে সবচেয়ে বেশি জীবাণু সংক্রমণ হয়। তিন বার ব্যবহার করার পরই তোয়ালে কেচে নিন।

মঞ্জুর আহমেদ শামিম,প্রতিনিধিঃ
লাইফস্টাইল,শনিবার, ১৪ মে, এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY PopularITLimited