করোনা ভাইরাস লাইভ

বাংলাদেশে

নতুন আক্রান্ত মোট আক্রান্ত সুস্থ মৃত্যু
১৪৪ ২০,০৮,৬৪৪ ১৯,৫০,৮৪৩ ২৯,৩১২

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করেছিল জিয়াউর রহমান

পঁচাত্তরের পর যারা ক্ষমতায় এসেছে তাদের কেউই দেশের কল্যাণে কোনো কাজ করেনি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।তিনি আরো বলেন,বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করেছিল জিয়াউর রহমান। তিনি খুনি মোশতাকের ডানহাত ছিল বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।
পঁচাত্তরের পর যারা ক্ষমতায় এসেছে তাদের কেউই দেশের কল্যাণে কোনো কাজ করেনি। প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের অব্যাহত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ এখন সারাবিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল।প্রধানমন্ত্রী বিএনপির উদ্দেশে বলেন, ‘নির্বাচনে বেগম জিয়া যান নেই। এটি তার সিদ্ধান্ত। আমি চেষ্টা করেছিলাম। তাকে ফোন ও করেছিলাম। আমি তাকে বলেছিলাম, আসেন পার্লামেন্টে। আমি বলেছিলাম যে মন্ত্রণালয় চান সেটাই দেবো। কিন্তু তিনি আসলেন না। নির্বাচন করলেন না। বরং নির্বাচন ঠেকানোর নামে জ্বালাও পোড়াও করলেন।’
প্রধানমন্ত্রী আরো বলেনন, ‘পরবর্তী নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি নানা টালবাহানা শুরু করেছে। শেখ হাসিনা বলেন, তাঁর সরকার টানা দ্বিতীয় মেয়াদে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পেয়েছে বলেই আজকে দেশে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রয়েছে। তাই তো সারা বিশ্বে আজকে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।
সাম্প্রতিক বন্যার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজকে বন্যা হয়েছে। আমরা আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়েছি, একটা মানুষও যেন কষ্ট না পায়। ফসল নষ্ট হয়েছে। বিদেশ থেকে পয়সা দিয়ে আমরা খাদ্যশস্য কিনে নিয়ে আসছি। যেন প্রত্যেকটি মানুষের ঘরে ঘরে আমরা খাদ্য পৌঁছে দিতে পারি। যারা গৃহহারা তাদের ঘরবাড়ি করে দেব। রোগের প্রাদুর্ভাব যেন না দেখা দেয় তার জন্য আগাম আমরা প্রস্তুতি নিয়েছি, ওষুধপত্র কোনো কিছুর যেন অভাব না থাকে। এখন বন্যায় যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারা যেন পুনরায় চাষবাস করতে পারে তার জন্য যা যা করার সব ব্যবস্থা আমরা করে রেখেছি।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা এই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। আজকে জাতির পিতা আমাদের মাঝে নেই। তাঁকে আমাদের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাঁর আদর্শ এবং নীতি নিয়েই আমরা এই দেশকে বিশ্ব দরবারে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করতে চাই। বাংলাদেশকে হবে বিশ্বের উন্নত সমৃদ্ধ দেশ। যে স্বপ্ন নিয়ে জাতির পিতা এ দেশকে স্বাধীন করেছিলেন- ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা। ইনশাল্লাহ খাদ্যের অভাব এখন নেই। কিন্তু বাংলাদেশ একদিন ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্তভাবে গড়ে উঠবে। এই শোক দিবসে এটাই আমাদের প্রতিজ্ঞা যে এই দেশকে আমরা জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ করব। তবেই তাঁর আত্মা শান্তি পাবে।’

ঢাকা,বুধবার,৩০ আগষ্ট,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

সর্বশেষ আপডেট



» জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে ফুলবাড়ীতে রচনা ও চিত্রাংকন প্রতিযোগিতা।

» ফুলবাড়ী উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নে মৎস বিল সমন্বিত কৃষি প্রশিক্ষন কেন্দ্রের শুভ উদ্বোধন॥

» টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সাকিবের নেতৃত্বে খেলবে বাংলাদেশ

» নতুন করে আরও ১৪৪ জন করোনা আক্রান্ত রোগী শনাক্ত, দেশে কারো মৃত্যুর খবর পাওয়া যায়নি।

» ডিপ্লোমা কোর্স তিন বছরে শেষ করা সম্ভব তাকে চার বছরে টেনে নিয়ে যাওয়ার কোনো মানে হয় না

» নওগাঁর মহাদেবপুর প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে খাদে পড়ে স্বামী-স্ত্রী নিহত

» সঙ্কট উত্তরণে ‌আপ্রাণ চেষ্টা করছেন প্রধানমন্ত্রী: কাদের

» দেশের মানুষ বেহেশতে আছে, পররাষ্ট্রমন্ত্রীর এমন বক্তব্য তামাশার সামিল

» তুরাগের কামারপাড়ায় রিকশার গ্যারেজ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনায় একে একে ৮ জনের মৃত্যু

» ডোনাল্ড ট্রাম্পের বসতবাড়িতে তল্লাশি চালিয়ে অতি গোপনীয় নথি জব্দ

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

বার্তা সম্পাদক: কামাল হোসেন খান

 

সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ শনিবার, ১৩ আগস্ট ২০২২ খ্রিষ্টাব্দ, ২৯শে শ্রাবণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করেছিল জিয়াউর রহমান




পঁচাত্তরের পর যারা ক্ষমতায় এসেছে তাদের কেউই দেশের কল্যাণে কোনো কাজ করেনি বলে মন্তব্য করেছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।তিনি আরো বলেন,বঙ্গবন্ধুর খুনিদের বিভিন্ন দূতাবাসে চাকরি দিয়ে পুরস্কৃত করেছিল জিয়াউর রহমান। তিনি খুনি মোশতাকের ডানহাত ছিল বলেও মন্তব্য করেন প্রধানমন্ত্রী।জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগের আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।
পঁচাত্তরের পর যারা ক্ষমতায় এসেছে তাদের কেউই দেশের কল্যাণে কোনো কাজ করেনি। প্রধানমন্ত্রী আরো বলেন, আওয়ামী লীগ সরকারের অব্যাহত প্রচেষ্টায় বাংলাদেশ এখন সারাবিশ্বে উন্নয়নের রোল মডেল।প্রধানমন্ত্রী বিএনপির উদ্দেশে বলেন, ‘নির্বাচনে বেগম জিয়া যান নেই। এটি তার সিদ্ধান্ত। আমি চেষ্টা করেছিলাম। তাকে ফোন ও করেছিলাম। আমি তাকে বলেছিলাম, আসেন পার্লামেন্টে। আমি বলেছিলাম যে মন্ত্রণালয় চান সেটাই দেবো। কিন্তু তিনি আসলেন না। নির্বাচন করলেন না। বরং নির্বাচন ঠেকানোর নামে জ্বালাও পোড়াও করলেন।’
প্রধানমন্ত্রী আরো বলেনন, ‘পরবর্তী নির্বাচনকে সামনে রেখে বিএনপি নানা টালবাহানা শুরু করেছে। শেখ হাসিনা বলেন, তাঁর সরকার টানা দ্বিতীয় মেয়াদে দেশ পরিচালনার দায়িত্ব পেয়েছে বলেই আজকে দেশে উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রয়েছে। তাই তো সারা বিশ্বে আজকে বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেল হিসেবে স্বীকৃতি পেয়েছে।
সাম্প্রতিক বন্যার প্রসঙ্গ উল্লেখ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, ‘আজকে বন্যা হয়েছে। আমরা আগে থেকেই প্রস্তুতি নিয়েছি, একটা মানুষও যেন কষ্ট না পায়। ফসল নষ্ট হয়েছে। বিদেশ থেকে পয়সা দিয়ে আমরা খাদ্যশস্য কিনে নিয়ে আসছি। যেন প্রত্যেকটি মানুষের ঘরে ঘরে আমরা খাদ্য পৌঁছে দিতে পারি। যারা গৃহহারা তাদের ঘরবাড়ি করে দেব। রোগের প্রাদুর্ভাব যেন না দেখা দেয় তার জন্য আগাম আমরা প্রস্তুতি নিয়েছি, ওষুধপত্র কোনো কিছুর যেন অভাব না থাকে। এখন বন্যায় যারা ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে তারা যেন পুনরায় চাষবাস করতে পারে তার জন্য যা যা করার সব ব্যবস্থা আমরা করে রেখেছি।’
শেখ হাসিনা বলেন, ‘আমরা এই দেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চাই। আজকে জাতির পিতা আমাদের মাঝে নেই। তাঁকে আমাদের কাছ থেকে কেড়ে নেওয়া হয়েছে। কিন্তু তাঁর আদর্শ এবং নীতি নিয়েই আমরা এই দেশকে বিশ্ব দরবারে মর্যাদার আসনে অধিষ্ঠিত করতে চাই। বাংলাদেশকে হবে বিশ্বের উন্নত সমৃদ্ধ দেশ। যে স্বপ্ন নিয়ে জাতির পিতা এ দেশকে স্বাধীন করেছিলেন- ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ে তোলা। ইনশাল্লাহ খাদ্যের অভাব এখন নেই। কিন্তু বাংলাদেশ একদিন ক্ষুধামুক্ত, দারিদ্র্যমুক্তভাবে গড়ে উঠবে। এই শোক দিবসে এটাই আমাদের প্রতিজ্ঞা যে এই দেশকে আমরা জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ করব। তবেই তাঁর আত্মা শান্তি পাবে।’

ঢাকা,বুধবার,৩০ আগষ্ট,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



 

প্রকাশক ও সম্পাদক: কাজী আবু তাহের মো. নাছির।

 

প্রধান নির্বাহী সম্পাদক: আফতাব খন্দকার (রনি)

 

বার্তা সম্পাদক: কামাল হোসেন খান

 

সহ বার্তা সম্পাদক: কাজী আতিকুর রহমান আতিক (আবির)

প্রধান কার্যালয়: গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২ | ব্রাঞ্চ অফিস: ২৪৭ পশ্চিম মনিপুর, ২য় তলা, মিরপুর-২, ঢাকা -১২১৬।

Phone: +8801714043198, Email: hbnews24@gmail.com

এই ওয়েবসাইটের কোনো লেখা বা ছবি অনুমতি ছাড়া নকল করা বা অন্য কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি । সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত © HBnews24.com