গ্রামে গ্রামে বর্ণিল দেবদেবীর সাজে নীল নাচ

আবহমান বাংলার ঐতিহ্যবাহী উৎসব হিসাবে নীল পূজা ও মেলা ব্যাপক জনপ্রিয়। প্রতি বছরই শহর থেকে শুরু করে গ্রামগঞ্জের গৃহস্থের উঠোনে পুরো চৈত্র মাসজুড়ে নীল নাচের আসর বসে। বর্ণিল দেবদেবীর সাজে নীল নাচের দল নানা বাদ্যযন্ত্রের অনুসঙ্গের সঙ্গে নেচে গেয়ে তারা মানুষের মনোরঞ্জন করেন। সেই সাথে তারা চৈত্রসংক্রান্তির নীল পূজা ও মেলার আমন্ত্রণ জানায়। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় পৌর শহরের বাদুরতলী এলাকায় গতকাল শনিবার পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে নীলপূজা ও মেলা উদ্ধসঢ়;যাপন করেছেন। এর সাথে সাথে গ্রামে গ্রামে চলে চৈত্রসংক্রান্তির গঙ্গাপূজা। পুরনো বছরকে বিদায় জানিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের হাজারো নারী-পুরুষ আদিকাল থেকে চৈত্রসংক্রান্তির এ উৎসব পালন করে আসছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১০-১২ জনের নীল নাচের দলে রাধা, কৃষ্ণ, শিব,
পার্বতী, নারদসহ সাধু পাগল সেজে সকাল থেকে মধ্য রাত অবধি নীল নাচ ও গান পরিবেশন করেন। সকল মানুষের কাছে দারুণ উপভোগ্য এ নীল নাচ। চৈত্রসংক্রান্তি মেলার দিনে নীলপূজা শেষে শেষ হয় এ নীল নাচ। নীলপূজার জন্য নীল নাচের দল বাড়ি বাড়ি গিয়ে চাল, ডাল আর নগদ অর্থ সংগ্রহ করেন। নীলপূজা মূলত হিন্দু ধর্মীয় উৎসব হলেও চৈত্র সংক্রান্তির উৎসবে মিলে তা সার্বজননীন এক উৎসবে পরিণত হয়।
মিলন সরকার বলেন, নতুন বছরের আগমনে গ্রাম গ্রামে শুরু হয়েছে নানা উৎসব। নিয়ম অনুযায়ী গতকাল শুক্রবার চৈত্রের শেষ দিনে অনুষ্ঠিত হয়েছে চৈত্রসংক্রান্তি উৎসব। প্রতি বছর হিন্দু সম্প্রদায় লোকজন পহেলা বৈশাখ গঙ্গাপূজা আর নীলপূজা উৎসব উদ্ধযাপন করে আসছে। হিন্দু সম্প্রদায়ে বয়বৃদ্ধ আনন্দ সুকুল জানান, নীল পূজামন্ডপকে ঘিরে বসে মেলা। সব ধর্মের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে সমবেত হয়ে মেলাকে মুখর করে
তোলে। তবে কালের আবর্তে ঐতিহ্যের এ উৎসব হারিয়ে যাচ্ছে।
উত্তম কুমার হাওলাদার কলাপাড়া (পটুয়াখালী)প্রতিনিধি
পটুয়াখালী,শনিবার,১৪ এপ্রিল , এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» দলীয় নেতা-কর্মীদের গ্রেপ্তার,নির্যাতন,ধানের শীষের পোষ্টার ছিড়ে ফেলার অভিযোগ করেছেন ঐক্যফ্রন্ট প্রার্থী আব্দুল মান্নান

» ভোটের মাঠে জনগণের চেয়ে বড় অস্ত্র, বড় হাতিয়ার আর কিছু নেই-ওবায়দুল কাদের

» আব্দুল লতিফ সিদ্দিকীর অবস্থার অবনতি হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য বিএসএমএমইউ’তে আনা হচ্ছে

» সিইসি যে বক্তব্য দিয়েছেন,একজন নির্বাচন কমিশনারের অস্তিত্বে আঘাত করেছেন

» নির্বাচন সুষ্ঠু না হলে পরিস্থিতি হবে ভয়াবহ-ড. কামাল হোসেন

» জনগণ বিএনপির এ ইশতেহার ঘৃণাভরে প্রত্যাখ্যান করেছে-জাহাঙ্গীর কবির নানক

» নানা কৌশলে বিএনপিকে নির্বাচন থেকে দূরে রাখার ষড়যন্ত্র করছে। বিএনপি নির্বাচন থেকে সরে যাবে না

» নারায়ণগঞ্জের ফতুল্লায় একটি বাসায় আগুনে একই পরিবারের নয়জন দগ্ধ

» বঙ্গবন্ধু ছাড়া বাংলাদেশের অস্তিত্ব কল্পনা করা যায় না-আইজিপি

» জাতীয় প্রেসক্লাব নির্বাচন:মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের প্যানেলের সভাপতি সাইফুল আলম, সম্পাদক ফরিদা

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

গ্রামে গ্রামে বর্ণিল দেবদেবীর সাজে নীল নাচ

আবহমান বাংলার ঐতিহ্যবাহী উৎসব হিসাবে নীল পূজা ও মেলা ব্যাপক জনপ্রিয়। প্রতি বছরই শহর থেকে শুরু করে গ্রামগঞ্জের গৃহস্থের উঠোনে পুরো চৈত্র মাসজুড়ে নীল নাচের আসর বসে। বর্ণিল দেবদেবীর সাজে নীল নাচের দল নানা বাদ্যযন্ত্রের অনুসঙ্গের সঙ্গে নেচে গেয়ে তারা মানুষের মনোরঞ্জন করেন। সেই সাথে তারা চৈত্রসংক্রান্তির নীল পূজা ও মেলার আমন্ত্রণ জানায়। পটুয়াখালীর কলাপাড়ায় পৌর শহরের বাদুরতলী এলাকায় গতকাল শনিবার পহেলা বৈশাখ উপলক্ষে নীলপূজা ও মেলা উদ্ধসঢ়;যাপন করেছেন। এর সাথে সাথে গ্রামে গ্রামে চলে চৈত্রসংক্রান্তির গঙ্গাপূজা। পুরনো বছরকে বিদায় জানিয়ে হিন্দু সম্প্রদায়ের হাজারো নারী-পুরুষ আদিকাল থেকে চৈত্রসংক্রান্তির এ উৎসব পালন করে আসছে। স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, ১০-১২ জনের নীল নাচের দলে রাধা, কৃষ্ণ, শিব,
পার্বতী, নারদসহ সাধু পাগল সেজে সকাল থেকে মধ্য রাত অবধি নীল নাচ ও গান পরিবেশন করেন। সকল মানুষের কাছে দারুণ উপভোগ্য এ নীল নাচ। চৈত্রসংক্রান্তি মেলার দিনে নীলপূজা শেষে শেষ হয় এ নীল নাচ। নীলপূজার জন্য নীল নাচের দল বাড়ি বাড়ি গিয়ে চাল, ডাল আর নগদ অর্থ সংগ্রহ করেন। নীলপূজা মূলত হিন্দু ধর্মীয় উৎসব হলেও চৈত্র সংক্রান্তির উৎসবে মিলে তা সার্বজননীন এক উৎসবে পরিণত হয়।
মিলন সরকার বলেন, নতুন বছরের আগমনে গ্রাম গ্রামে শুরু হয়েছে নানা উৎসব। নিয়ম অনুযায়ী গতকাল শুক্রবার চৈত্রের শেষ দিনে অনুষ্ঠিত হয়েছে চৈত্রসংক্রান্তি উৎসব। প্রতি বছর হিন্দু সম্প্রদায় লোকজন পহেলা বৈশাখ গঙ্গাপূজা আর নীলপূজা উৎসব উদ্ধযাপন করে আসছে। হিন্দু সম্প্রদায়ে বয়বৃদ্ধ আনন্দ সুকুল জানান, নীল পূজামন্ডপকে ঘিরে বসে মেলা। সব ধর্মের মানুষ স্বতঃস্ফূর্তভাবে সমবেত হয়ে মেলাকে মুখর করে
তোলে। তবে কালের আবর্তে ঐতিহ্যের এ উৎসব হারিয়ে যাচ্ছে।
উত্তম কুমার হাওলাদার কলাপাড়া (পটুয়াখালী)প্রতিনিধি
পটুয়াখালী,শনিবার,১৪ এপ্রিল , এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY PopularITLimited