ঈদকে কেন্দ্র করে ৫ কোটি টাকার জাল নোট বাজারে ছাড়ার টার্গেট ছিল জালিয়াতদের-দেবদাস ভট্টাচার্য্য

সিনিয়ার নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: ঈদকে কেন্দ্র করে ৫ কোটি টাকার জাল নোট বাজারে ছাড়ার টার্গেট ছিল জালিয়াতদের। তাদের মধ্যে ১০ জনকে আটক করার পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ তথ্য জানা গেছে।
আজ শুক্রবার (০৮ জুন ২০১৮ )দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) দেবদাস ভট্টাচার্য্য একথা জানান।
এসময় তাদের কাছ থেকে ১ কোটি টাকার জাল নোট, জাল নোট তৈরির সরঞ্জাম, নিরাপত্তা সুতা, প্রিন্টার, ল্যাপটপ, কাগজ ও কালি উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের কদমতলী থানায় করা এক মামলায় গ্রেফতার দেখিয়েছে
পুলিশ।
সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) দেবদাস ভট্টাচার্য্য জানান, বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে রাজধানীর কদমতলীর বউবাজার এলাকার একটি বাড়ি থেকে জাল নোট ছাপার সঙ্গে জড়িত চক্রের ১০ জনকে আটক করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উত্তর বিভাগ। আটকরা হলো রফিক, জাকির, হানিফ, রাজন শিকদার, খোকন, রিপন, মনির, সোহরাব, জসিম ও লাবণী।
সংবাদ সম্মেলনে দেবদাস ভট্টাচার্য্য বলেন, ‘ঈদ লক্ষ্য করে বাজারে ৫ কোটি টাকার জাল নোট ছাড়ার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু তারা এতে সফল হতে পারেনি। আমার বাজারে এই টাকাগুলো ছড়িয়ে দেওয়ার আগেই তাদের গ্রেফতার করেছি।’
এ ধরনের আরও ৮-৯টি জাল নোট তৈরির চক্র রয়েছে বলে জানিয়ে দেবদাস ভট্টাচার্য্য বলেন, ‘কয়েকটি গ্রুপ ইতোমধ্যে গ্রেফতার হয়েছে। বাকিদের বিরুদ্ধেও আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’ তিনি আরও জানান, যে পরিমাণ জাল নোট তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে, তা দিয়ে আরও ৩-৪ কোটি টাকার জাল নোট তৈরি করা সম্ভব। এসব টাকা পাইকারি বিক্রেতাদের মাধ্যমে খুচরা বিক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দিত চক্রটি। সংবাদ সম্মেলনে জাল নোটের বাজারদর সম্পর্কে গ্রেফতারদের জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার ডিবি জানান, এক লাখ টাকার জাল নোট তৈরিতে খরচ ১০ হাজার টাকা। পাইকারি বিক্রেতার কাছে এই এক লাখ টাকা বিক্রি করা হয় ১৪-১৫ হাজার টাকা। পাইকারি বিক্রেতা এসব নোট খুচরা বিক্রেতার কাছে বিক্রি করেন ২০-২৫ হাজার টাকায়। প্রথম খুচরা বিক্রেতা এক লাখ টাকা দ্বিতীয় খুচরা বিক্রেতার কাছে বিক্রি করে ৪০-৫০ হাজার টাকায়। দ্বিতীয় খুচরা বিক্রেতা এক লাখ টাকার জাল নোট প্রায় সমপরিমাণ দামে মাঠপর্যায়ে বিক্রি করে থাকে।
এই জাল নোট তৈরির প্রতারক চক্রটিকে আটকের অভিযানে অংশ নেওয়া ডিবি উত্তরের সিনিয়র সহকারী কমিশনার মহরম আলী জানান, এই চক্রের মূলহোতা রফিক। টাকার মধ্যে নিরাপত্তা সুতা বসানোসহ অন্যান্য সূক্ষ কাজ করতো জাকির। বাকিরাও জাল নোট তৈরির বিভিন্ন পর্যায়ে যুক্ত থাকে। তারা দীর্ঘদিন ধরে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে জাল নোট তৈরির কাজ করে আসছিল।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) (উত্তর) বিভাগ এর উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব মশিউর রহমান বিপিএম পিপিএম-সেবা,জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার
উপকমিশনার মাসুদুর রহমান,জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার রহমান,অতিরিক্ত উপ কমিশনার (এডিসি)ওবায়দুর রহমান ও ডিবি উত্তরের সিনিয়র সহকারী কমিশনার মহরম আলী।

মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা, শুক্রবার,০৮ জুন,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» আফগানিস্তানের ওয়ারদাক প্রদেশে সামরিক শিবিরে তালেবানের হামলা, নিহত ১২৬

» বিপিএলে ঢাকা ডায়নামাইটসকে তিন উইকেটে হারিয়ে দারুণ জয় তুলে নিয়েছে চিটাগং ভাইকিংস

» জাবি প্রেস ক্লাবের ৭ম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী পালিত

» আফগানিস্তানের ওয়ারদাক প্রদেশের একটি সামরিক ঘাঁটিতে তালেবানদের হামলা, নিরাপত্তা বাহিনীর ১২৬ সদস্য নিহত

» বিপিএলে কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসকে ৩৮ রানে হারিয়েছে রাজশাহী কিংস; আসরে এটি তাদের চতুর্থ জয়

» কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ানসের ১৮ ওভারে ১৩৮ রান

» এই সরকার ও সিইসির অধীনে আর কোনো নির্বাচনে যাবে না ঐক্যফ্রন্ট-মির্জা ফখরুল

» নির্বাচনকে প্রশ্নবিদ্ধ করতেই অংশ নিয়েছিল বিএনপি : তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ

» যুক্তরাষ্ট্র মহিলা আওয়ামী লীগের সভাপতি সাহানাজ সংরক্ষিত মহিলা আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশী

» বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপস্থিতিতে বিশেষ আদালতে নাইকো মামলার অভিযোগ গঠনের শুনানি শেষ হয়েছে, পরবর্তী সময়ের শুনানি ৪ ফেব্রুয়ারি

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
,

ঈদকে কেন্দ্র করে ৫ কোটি টাকার জাল নোট বাজারে ছাড়ার টার্গেট ছিল জালিয়াতদের-দেবদাস ভট্টাচার্য্য

সিনিয়ার নিজস্ব প্রতিবেদক, ঢাকা: ঈদকে কেন্দ্র করে ৫ কোটি টাকার জাল নোট বাজারে ছাড়ার টার্গেট ছিল জালিয়াতদের। তাদের মধ্যে ১০ জনকে আটক করার পর প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এ তথ্য জানা গেছে।
আজ শুক্রবার (০৮ জুন ২০১৮ )দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) মিডিয়া সেন্টারে এক সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) দেবদাস ভট্টাচার্য্য একথা জানান।
এসময় তাদের কাছ থেকে ১ কোটি টাকার জাল নোট, জাল নোট তৈরির সরঞ্জাম, নিরাপত্তা সুতা, প্রিন্টার, ল্যাপটপ, কাগজ ও কালি উদ্ধার করা হয়েছে। তাদের কদমতলী থানায় করা এক মামলায় গ্রেফতার দেখিয়েছে
পুলিশ।
সংবাদ সম্মেলনে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ডিবি) দেবদাস ভট্টাচার্য্য জানান, বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টার দিকে রাজধানীর কদমতলীর বউবাজার এলাকার একটি বাড়ি থেকে জাল নোট ছাপার সঙ্গে জড়িত চক্রের ১০ জনকে আটক করে মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের উত্তর বিভাগ। আটকরা হলো রফিক, জাকির, হানিফ, রাজন শিকদার, খোকন, রিপন, মনির, সোহরাব, জসিম ও লাবণী।
সংবাদ সম্মেলনে দেবদাস ভট্টাচার্য্য বলেন, ‘ঈদ লক্ষ্য করে বাজারে ৫ কোটি টাকার জাল নোট ছাড়ার পরিকল্পনা ছিল। কিন্তু তারা এতে সফল হতে পারেনি। আমার বাজারে এই টাকাগুলো ছড়িয়ে দেওয়ার আগেই তাদের গ্রেফতার করেছি।’
এ ধরনের আরও ৮-৯টি জাল নোট তৈরির চক্র রয়েছে বলে জানিয়ে দেবদাস ভট্টাচার্য্য বলেন, ‘কয়েকটি গ্রুপ ইতোমধ্যে গ্রেফতার হয়েছে। বাকিদের বিরুদ্ধেও আমাদের অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’ তিনি আরও জানান, যে পরিমাণ জাল নোট তৈরির সরঞ্জাম উদ্ধার করা হয়েছে, তা দিয়ে আরও ৩-৪ কোটি টাকার জাল নোট তৈরি করা সম্ভব। এসব টাকা পাইকারি বিক্রেতাদের মাধ্যমে খুচরা বিক্রেতাদের কাছে পৌঁছে দিত চক্রটি। সংবাদ সম্মেলনে জাল নোটের বাজারদর সম্পর্কে গ্রেফতারদের জিজ্ঞাসাবাদের বরাত দিয়ে ডিএমপির অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার ডিবি জানান, এক লাখ টাকার জাল নোট তৈরিতে খরচ ১০ হাজার টাকা। পাইকারি বিক্রেতার কাছে এই এক লাখ টাকা বিক্রি করা হয় ১৪-১৫ হাজার টাকা। পাইকারি বিক্রেতা এসব নোট খুচরা বিক্রেতার কাছে বিক্রি করেন ২০-২৫ হাজার টাকায়। প্রথম খুচরা বিক্রেতা এক লাখ টাকা দ্বিতীয় খুচরা বিক্রেতার কাছে বিক্রি করে ৪০-৫০ হাজার টাকায়। দ্বিতীয় খুচরা বিক্রেতা এক লাখ টাকার জাল নোট প্রায় সমপরিমাণ দামে মাঠপর্যায়ে বিক্রি করে থাকে।
এই জাল নোট তৈরির প্রতারক চক্রটিকে আটকের অভিযানে অংশ নেওয়া ডিবি উত্তরের সিনিয়র সহকারী কমিশনার মহরম আলী জানান, এই চক্রের মূলহোতা রফিক। টাকার মধ্যে নিরাপত্তা সুতা বসানোসহ অন্যান্য সূক্ষ কাজ করতো জাকির। বাকিরাও জাল নোট তৈরির বিভিন্ন পর্যায়ে যুক্ত থাকে। তারা দীর্ঘদিন ধরে রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় বাসা ভাড়া নিয়ে জাল নোট তৈরির কাজ করে আসছিল।
এসময় সংবাদ সম্মেলনে আরও উপস্থিত ছিলেন ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) (উত্তর) বিভাগ এর উপ-পুলিশ কমিশনার জনাব মশিউর রহমান বিপিএম পিপিএম-সেবা,জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার
উপকমিশনার মাসুদুর রহমান,জনসংযোগ ও গণমাধ্যম শাখার রহমান,অতিরিক্ত উপ কমিশনার (এডিসি)ওবায়দুর রহমান ও ডিবি উত্তরের সিনিয়র সহকারী কমিশনার মহরম আলী।

মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা, শুক্রবার,০৮ জুন,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Design & Developed BY PopularITLimited