রাখাইনে কোনো গণহত্যা হয়নি, গাম্বিয়া রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতির অসম্পূর্ণ এবং বিভ্রান্তিকর বাস্তবচিত্র তুলে ধরেছে

Spread the love

রাখাইনে কোনো গণহত্যা হয়নি, গাম্বিয়া রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতির অসম্পূর্ণ এবং বিভ্রান্তিকর বাস্তবচিত্র তুলে ধরেছে বলে জাতিসংঘের শীর্ষ আদালতে মন্তব্য করেছেন মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি।নেদারল্যান্ডসের হেগে আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে (আইসিজে) রোহিঙ্গা গণহত্যা ইস্যুতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়ার দায়ের করা মামলা দ্বিতীয় দিনের শুনানিতে অংশ নিয়ে এমন মন্তব্য করেন তিনি।সুচি বলেন, ‘রাখাইনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর হামলার পরই, বিচ্ছিন্নতাবাদ দমাতে অভিযান চালানো হয়, এর জেরে কিছু রোহিঙ্গা সীমান্ত পাড়ি দিয়েছে।’

গাম্বিয়ার করা এই মামলাকে ভুল এবং অসঙ্গতিপূর্ণ উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘গাম্বিয়া রাখাইনের একটি অবাস্তব চিত্র তুলে ধরেছে।’ অনেক রোহিঙ্গা ৪০-এর দশকে চট্টগ্রাম থেকে রাখাইনে যায় বলেও উল্টো অভিযোগও করেন তিনি। এদিকে, রোহিঙ্গা গণহত্যাকে অস্বীকার করে দেয়া সাক্ষ্যকে মিথ্যাচার বলে অবিহত করেন মিয়ানমারের নির্বাসিত মানবাধিকার কর্মী মং জারনি। তিনি বলেন, ‘বার্মিজ হিসেবে আমি একই সাথে লজ্জা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছি, আমি যা শুনলাম তা মিথ্যা এবং প্রতারণা ছাড়া কিছুই না।
মিয়ানমারের ক্ষেত্রে ‘গণহত্যার উদ্দেশ্য’ একমাত্র অনুমান হতে পারে না উল্লেখ করে সু চি বলেন, যদি দেশের অভ্যন্তরে গণহত্যার উদ্দেশ্যে এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটে তবে যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে জড়িত সেনা সদস্য, কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

‘এর বাইরে আমি এ বিষয়েও নিশ্চিত করছি যে, আমাদের সবার নজর সেনা সদস্যদের দিকে। একইসঙ্গে অপরাধের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধেও উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে’।

রোহিঙ্গাদের ‘ভোগান্তি’র বিষয়টি স্বীকার করে সু চি তার বক্তব্যে আরো বলেন, ওই সময় রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতি ছিল ‘জটিল’। যে কারণে অনেকেই প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে যায়।২০১৭ সালে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নজিরবিহীন অভিযানকে তিনি বারবার ‘অভ্যন্তরীণ কোন্দল’ উল্লেখ করে বলেন, স্থানীয় সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো বিশেষ করে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) হামলার পরিপ্রেক্ষিতে সেনাবাহিনী সে সময় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। এর বেশি কিছু নয়। তিনি বলেন, ওই অভিযানের উদ্দেশ্য ছিল শুধুমাত্র সন্ত্রাস ও বিচ্ছিন্নতাবাদ মোকাবিলা করা।
আন্তর্জাতিক ডেস্ক,বুধবার,১১ ডিসেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» সড়ক দুর্ঘটনায় গুরুতর আহত হয়েছেন বলিউড খ্যাতনামা অভিনয়শিল্পী শাবানা আজমি

» ১ ফেব্রুয়ারির পরিবর্তে ৩ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে এসএসসি পরীক্ষা: শিক্ষা মন্ত্রণালয়

» ঢাকার দুই সিটির ভোটের তারিখ পরিবর্তন ৩০ জানুয়ারির পরিবর্তে ১ ফেব্রুয়ারি

» রাজু ভাস্কর্যের সামনে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের অনশন ভাঙলেন শিক্ষার্থীরা

» নির্বাচনে পরাজয় নিশ্চিত জেনেই ইভিএমের বিরুদ্ধে বিএনপি নেতারা বিষদগার করছেন

» যশোরে প্রাইভেটকার নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বৈদ্যুতিক খুঁটির সঙ্গে ধাক্কা লেগে একই পরিবারের তিনজন নিহত

» রাজু ভাস্কর্যের সামনে তৃতীয় দিনের মতো আমরণ অনশন করছেন শিক্ষার্থীরা

» গোপালগঞ্জে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সঙ্গে ধাক্কা লেগে বাসের দুই নারী যাত্রী নিহত

» বগুড়া-১ আসনের সংসদ সদস্য (এমপি) আব্দুল মান্নান ইন্তেকাল করেছেন

» খুলনা টাইগার্সকে ২১ রানে হারিয়ে বঙ্গবন্ধু বিপিএলের শিরোপা জিতল রাজশাহী রয়্যালস

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ রবিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, ৬ই মাঘ, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রাখাইনে কোনো গণহত্যা হয়নি, গাম্বিয়া রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতির অসম্পূর্ণ এবং বিভ্রান্তিকর বাস্তবচিত্র তুলে ধরেছে

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

রাখাইনে কোনো গণহত্যা হয়নি, গাম্বিয়া রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতির অসম্পূর্ণ এবং বিভ্রান্তিকর বাস্তবচিত্র তুলে ধরেছে বলে জাতিসংঘের শীর্ষ আদালতে মন্তব্য করেছেন মিয়ানমারের স্টেট কাউন্সেলর অং সান সু চি।নেদারল্যান্ডসের হেগে আন্তর্জাতিক ন্যায়বিচার আদালতে (আইসিজে) রোহিঙ্গা গণহত্যা ইস্যুতে মিয়ানমারের বিরুদ্ধে গাম্বিয়ার দায়ের করা মামলা দ্বিতীয় দিনের শুনানিতে অংশ নিয়ে এমন মন্তব্য করেন তিনি।সুচি বলেন, ‘রাখাইনে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ওপর হামলার পরই, বিচ্ছিন্নতাবাদ দমাতে অভিযান চালানো হয়, এর জেরে কিছু রোহিঙ্গা সীমান্ত পাড়ি দিয়েছে।’

গাম্বিয়ার করা এই মামলাকে ভুল এবং অসঙ্গতিপূর্ণ উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, ‘গাম্বিয়া রাখাইনের একটি অবাস্তব চিত্র তুলে ধরেছে।’ অনেক রোহিঙ্গা ৪০-এর দশকে চট্টগ্রাম থেকে রাখাইনে যায় বলেও উল্টো অভিযোগও করেন তিনি। এদিকে, রোহিঙ্গা গণহত্যাকে অস্বীকার করে দেয়া সাক্ষ্যকে মিথ্যাচার বলে অবিহত করেন মিয়ানমারের নির্বাসিত মানবাধিকার কর্মী মং জারনি। তিনি বলেন, ‘বার্মিজ হিসেবে আমি একই সাথে লজ্জা ও ক্ষোভ প্রকাশ করছি, আমি যা শুনলাম তা মিথ্যা এবং প্রতারণা ছাড়া কিছুই না।
মিয়ানমারের ক্ষেত্রে ‘গণহত্যার উদ্দেশ্য’ একমাত্র অনুমান হতে পারে না উল্লেখ করে সু চি বলেন, যদি দেশের অভ্যন্তরে গণহত্যার উদ্দেশ্যে এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটে তবে যথাযথ তদন্ত সাপেক্ষে জড়িত সেনা সদস্য, কর্মকর্তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

‘এর বাইরে আমি এ বিষয়েও নিশ্চিত করছি যে, আমাদের সবার নজর সেনা সদস্যদের দিকে। একইসঙ্গে অপরাধের সঙ্গে সংশ্লিষ্ট বেসামরিক নাগরিকদের বিরুদ্ধেও উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে’।

রোহিঙ্গাদের ‘ভোগান্তি’র বিষয়টি স্বীকার করে সু চি তার বক্তব্যে আরো বলেন, ওই সময় রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতি ছিল ‘জটিল’। যে কারণে অনেকেই প্রাণ বাঁচাতে বাংলাদেশে পালিয়ে যায়।২০১৭ সালে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর নজিরবিহীন অভিযানকে তিনি বারবার ‘অভ্যন্তরীণ কোন্দল’ উল্লেখ করে বলেন, স্থানীয় সশস্ত্র গোষ্ঠীগুলো বিশেষ করে আরাকান রোহিঙ্গা স্যালভেশন আর্মির (আরসা) হামলার পরিপ্রেক্ষিতে সেনাবাহিনী সে সময় প্রতিক্রিয়া জানিয়েছে। এর বেশি কিছু নয়। তিনি বলেন, ওই অভিযানের উদ্দেশ্য ছিল শুধুমাত্র সন্ত্রাস ও বিচ্ছিন্নতাবাদ মোকাবিলা করা।
আন্তর্জাতিক ডেস্ক,বুধবার,১১ ডিসেম্বর,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com