মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের মাদকবিরোধী উপর নির্মাতা একটি টিভিসি উদ্বোধন করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

Spread the love

ঢাকা : মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর নর্কোটিকস ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (এনআইএমএস) ওয়েবসাইট এবং মাদকবিরোধী উপর নির্মাতা একটি পিভিসি বিজ্ঞাপন উদ্বোধন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই মাদকবিরোধী টিভিসি বিজ্ঞাপন উদ্বোধন করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি।

রবিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই এনআইএমএস ওয়েবসাইট ও মাদকবিরোধী টিভিসি বিজ্ঞাপন উদ্বোধন করেন।

এনআইএমএস ওয়েবসাইট ও মাদকবিরোধী বিজ্ঞাপন
উদ্বোধন উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি বলেন,রাজনীতিবিদ বা জনপ্রতিনিধি যেই হোন, অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শুধু মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেননি, পাশাপাশি তিনি সমাজে সুশাসন প্রতিষ্ঠার কথা বলেছেন। যারা মাদক বিক্রি করে অন্যায়ভাবে টাকা উপার্জন করে তারা সেটি অন্যায়ভাবেই ব্যয় করে। অনেকে নির্বাচন করে জনপ্রতিনিধি সেজে নিজেকে জাহির করতে চান। তবে আমরা কাউকেই ছাড় দিচ্ছি না। সমাজের অধিপতি হোক, রাজনীতিবিদ হোক কিংবা নির্বাচনের জনপ্রতিনিধি হোক, অন্যায় করলে কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।’

মাদকবিরোধী অভিযানের গতি কমে গেছে কিনা জানতে চাইলে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘অভিযান মোটেও স্তিমিত হয়নি। যারা মাদকব্যবসা করে, মাদকব্যবসায়ে বিনিয়োগ করে, বড় বড় মাদক সম্রাটদের সবাইকেই ধরা হয়েছে। যারা পলাতক রয়েছে তাদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’

দেশে মাদকের চাহিদা কমানোর চেষ্টা করা হচ্ছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘চাহিদা হ্রাস পেলে মাদকের সাপ্লাই হ্রাস পাবে। এরই অংশ হিসেবে আজকের এ অনুষ্ঠান। ধূমপানের বিরুদ্ধে আমরা রাস্তায় নেমে প্রচারণা চালিয়েছিলাম। আমাদের প্রচেষ্টার কারণে আজ ধূমপান অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। আজ কেউ প্রকাশ্যে ধূমপান করে না, করলে আড়ালে গিয়ে করে।’

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মাদক তৈরি হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘একটা ছোট জায়গায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা বসবাস করে। তাদের ম্যানেজ করা অনেক কঠিন। তারপরও আমরা বন্ধু দেশের সহায়তায় কাজটি করে যাচ্ছি। আমার জানা মতে, সেখানে মাদক তৈরি হয় না। তবে তাদের কেউ কেউ এ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। আমরা সবাইকে নজরদারিতে রেখেছি। যারা মাদকব্যবসার সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দেশে মাদক তৈরি হয় না। পার্শ্ববর্তী দেশের মাধ্যমে আমরা ভিকটিম। সীমান্তে অনেক দুর্গম জায়গা আছে। সেসব স্থানে নজরদারির জন্য আমরা বর্ডার গার্ড বাংলাদেশকে (বিজিবি) হেলিকপ্টার দিয়েছি, বর্ডারে সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে সেসব জায়গায় টহল বাড়ানোর জন্য। পাশাপাশি কোস্টগার্ডকেও শক্তিশালী করা হয়েছে। আমরা কাজ করে যাচ্ছি, মাদকের বিরুদ্ধে আমরা সজাগ রয়েছি।’

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর ও কোরিয়ার সহযোগিতায় তৈরি নার্কোটিকস ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ওয়েবসাইটটির তৈরি করা হয়।এ ওয়েবসাইটটির মাধ্যমে অধিদফতরের কর্মকর্তারা যে কোনো জায়গা থেকে ল্যাপটপে বসে মামলার ফলোআপ, লাইসেন্স ম্যানেজমেন্ট, স্যাম্পল এনালাইসিস ম্যানেজমেন্ট, অপারেশন ও হসপিটাল ম্যানেজমেন্টের কাজ করতে পারবেন। অধিদফতরের সেবা পেতে আগ্রহীরা দেশের যে কোনো প্রান্তে বসে আবেদন করে যে কোনো সেবা পেতে পারবেন।

এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের মহাপরিচালক জামাল আহমেদ ।এই অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কোরিয়ার নর্কটিকস বিভাগের কান্ট্রি ডাইরেক্টর ,এসপিও, এর Ms Won JIAE।

উল্লেখ্য, মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর মাদক সংক্রান্ত বিষয়ে দেশের নোডাল (প্রধান) হিসেবে কাজ করছে।এই অধিদপ্তর দেশে মাদক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম ,মাদক সংক্রান্ত অপরাধ দমন, এই সংক্রান্ত আইন ও বিধি প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ, আইনের প্রয়োগ ,আইনের তফসিলভুক্ত ঔষধ শিল্পসহ অন্যান্য শিল্পের ব্যবহৃত কাঁচামাল কেমিক্যাল আমদানির লাইসেন্স প্রদান ,আমদানিকৃত কাঁচামালের ব্যবহারসহ আনুষঙ্গিক কার্যক্রম তদারকী ও মনিটরিং, উৎপাদিত ফিনিশড প্রডাক্ট পরিবহন ও ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ, মাদকদ্রব্যের সঠিক পরীক্ষণকরণ, মাদকাসক্তদের চিকিৎসা ও পুনর্বাসন নিশ্চিতকরণসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক তৈরি করে যাচ্ছে।

বর্তমান সরকার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরকে যুগোপযোগী গড়ে তুলতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সর্বোচ্চ সাজার বিধান রেখে আইন প্রণয়নসহ প্রশাসনিক সক্ষমতা বাড়াতে নানা উদ্যোগ বাস্তবায়িত হচ্ছে। বৃহত্তর একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এখন আরো বেশি দক্ষ ও কার্যকর।

মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।এই অধিদপ্তরকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে বিশ্বমানের ইন্টারোগেশন ইউনিট স্থাপন, ক্রিমিনাল ডাটা ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম চালুকরন, উন্নত গোয়েন্দা যন্ত্রপাতি ক্রয়, mobile-tracker স্থাপন, মাদক সনাক্তকরণ যন্ত্রপাতি ক্রয় ,নৌ ইউনিট স্থাপন, ডগ স্কোয়াড স্থাপন, ডিজিটাল ফরেন্সিক ইনভেস্টিগেশন ল্যাব স্থাপনের মতো গুরুত্বপূর্ণ পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে মহাপরিচালক হতে সবার জন্য ইউনিফর্মের প্রশাসনের কাজ চলমান রয়েছে।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,রোববার,১২ জানুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

সর্বশেষ আপডেট



» ‘আইনসভায় বঙ্গবন্ধু’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচন করলেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

» কুয়াকাটায় আটটি খাবার হোটেল মালিককে অর্থদন্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত

» এক মাসের মধ্যে ৭ মার্চকে ঐতিহাসিক জাতীয় দিবস ঘোষণা করতে হাইকোর্টের নির্দেশ

» মিশরের ক্ষমতাচ্যুত প্রেসিডেন্ট হোসনি মোবারক মারা গেছেন

» জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে একমাত্র টেস্টে ১০৬ রানে বাংলাদেশের জয়

» বিএনপি ক্ষমতায় গেলে পিলখানা হত্যাকাণ্ডের নিরপেক্ষ তদন্ত করে পুনঃবিচারের উদ্যোগ নেবে

» সকাল থেকেই ঢাকার আকাশ মেঘলা,কিছু এলাকায় গুঁড়ি গুঁড়ি বৃষ্টি

» রাজধানীর পুরান ঢাকায় এনামুল-রূপনের বাড়ি যেন টাকা-সোনার ভাণ্ডার!

» পিলখানা ট্র্যাজেডির ১১ বছর আজ

» পাপিয়া ও তার স্বামী মো. মফিজুর রহমান ওরফে সুমন চৌধুরীর ১৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর

লাইক দিয়ে সংযুক্ত থাকুন

 

 

সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com
আজ বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ খ্রিষ্টাব্দ, ১৩ই ফাল্গুন, ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের মাদকবিরোধী উপর নির্মাতা একটি টিভিসি উদ্বোধন করলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

ইউটিউবে সাবস্ক্রাইব করুন আমাদের চ্যানেলটি:
Spread the love

ঢাকা : মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর নর্কোটিকস ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম (এনআইএমএস) ওয়েবসাইট এবং মাদকবিরোধী উপর নির্মাতা একটি পিভিসি বিজ্ঞাপন উদ্বোধন অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই মাদকবিরোধী টিভিসি বিজ্ঞাপন উদ্বোধন করেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি।

রবিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের প্রধান কার্যালয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এই এনআইএমএস ওয়েবসাইট ও মাদকবিরোধী টিভিসি বিজ্ঞাপন উদ্বোধন করেন।

এনআইএমএস ওয়েবসাইট ও মাদকবিরোধী বিজ্ঞাপন
উদ্বোধন উপলক্ষে এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।

এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল এমপি বলেন,রাজনীতিবিদ বা জনপ্রতিনিধি যেই হোন, অন্যায় করলে কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

মন্ত্রী বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শুধু মাদকের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স ঘোষণা করেননি, পাশাপাশি তিনি সমাজে সুশাসন প্রতিষ্ঠার কথা বলেছেন। যারা মাদক বিক্রি করে অন্যায়ভাবে টাকা উপার্জন করে তারা সেটি অন্যায়ভাবেই ব্যয় করে। অনেকে নির্বাচন করে জনপ্রতিনিধি সেজে নিজেকে জাহির করতে চান। তবে আমরা কাউকেই ছাড় দিচ্ছি না। সমাজের অধিপতি হোক, রাজনীতিবিদ হোক কিংবা নির্বাচনের জনপ্রতিনিধি হোক, অন্যায় করলে কাউকেই ছাড় দেওয়া হবে না।’

মাদকবিরোধী অভিযানের গতি কমে গেছে কিনা জানতে চাইলে আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেন, ‘অভিযান মোটেও স্তিমিত হয়নি। যারা মাদকব্যবসা করে, মাদকব্যবসায়ে বিনিয়োগ করে, বড় বড় মাদক সম্রাটদের সবাইকেই ধরা হয়েছে। যারা পলাতক রয়েছে তাদের ধরতে অভিযান অব্যাহত রয়েছে।’

দেশে মাদকের চাহিদা কমানোর চেষ্টা করা হচ্ছে জানিয়ে মন্ত্রী বলেন, ‘চাহিদা হ্রাস পেলে মাদকের সাপ্লাই হ্রাস পাবে। এরই অংশ হিসেবে আজকের এ অনুষ্ঠান। ধূমপানের বিরুদ্ধে আমরা রাস্তায় নেমে প্রচারণা চালিয়েছিলাম। আমাদের প্রচেষ্টার কারণে আজ ধূমপান অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে। আজ কেউ প্রকাশ্যে ধূমপান করে না, করলে আড়ালে গিয়ে করে।’

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে মাদক তৈরি হচ্ছে কিনা জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘একটা ছোট জায়গায় ১১ লাখ রোহিঙ্গা বসবাস করে। তাদের ম্যানেজ করা অনেক কঠিন। তারপরও আমরা বন্ধু দেশের সহায়তায় কাজটি করে যাচ্ছি। আমার জানা মতে, সেখানে মাদক তৈরি হয় না। তবে তাদের কেউ কেউ এ ব্যবসার সঙ্গে জড়িত থাকতে পারে। আমরা সবাইকে নজরদারিতে রেখেছি। যারা মাদকব্যবসার সঙ্গে জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘আমাদের দেশে মাদক তৈরি হয় না। পার্শ্ববর্তী দেশের মাধ্যমে আমরা ভিকটিম। সীমান্তে অনেক দুর্গম জায়গা আছে। সেসব স্থানে নজরদারির জন্য আমরা বর্ডার গার্ড বাংলাদেশকে (বিজিবি) হেলিকপ্টার দিয়েছি, বর্ডারে সড়ক নির্মাণ করা হচ্ছে সেসব জায়গায় টহল বাড়ানোর জন্য। পাশাপাশি কোস্টগার্ডকেও শক্তিশালী করা হয়েছে। আমরা কাজ করে যাচ্ছি, মাদকের বিরুদ্ধে আমরা সজাগ রয়েছি।’

মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতর ও কোরিয়ার সহযোগিতায় তৈরি নার্কোটিকস ইনফরমেশন ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম ওয়েবসাইটটির তৈরি করা হয়।এ ওয়েবসাইটটির মাধ্যমে অধিদফতরের কর্মকর্তারা যে কোনো জায়গা থেকে ল্যাপটপে বসে মামলার ফলোআপ, লাইসেন্স ম্যানেজমেন্ট, স্যাম্পল এনালাইসিস ম্যানেজমেন্ট, অপারেশন ও হসপিটাল ম্যানেজমেন্টের কাজ করতে পারবেন। অধিদফতরের সেবা পেতে আগ্রহীরা দেশের যে কোনো প্রান্তে বসে আবেদন করে যে কোনো সেবা পেতে পারবেন।

এই উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদফতরের মহাপরিচালক জামাল আহমেদ ।এই অনুষ্ঠানে সম্মানিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন কোরিয়ার নর্কটিকস বিভাগের কান্ট্রি ডাইরেক্টর ,এসপিও, এর Ms Won JIAE।

উল্লেখ্য, মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর মাদক সংক্রান্ত বিষয়ে দেশের নোডাল (প্রধান) হিসেবে কাজ করছে।এই অধিদপ্তর দেশে মাদক নিয়ন্ত্রণ কার্যক্রম ,মাদক সংক্রান্ত অপরাধ দমন, এই সংক্রান্ত আইন ও বিধি প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ, আইনের প্রয়োগ ,আইনের তফসিলভুক্ত ঔষধ শিল্পসহ অন্যান্য শিল্পের ব্যবহৃত কাঁচামাল কেমিক্যাল আমদানির লাইসেন্স প্রদান ,আমদানিকৃত কাঁচামালের ব্যবহারসহ আনুষঙ্গিক কার্যক্রম তদারকী ও মনিটরিং, উৎপাদিত ফিনিশড প্রডাক্ট পরিবহন ও ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ, মাদকদ্রব্যের সঠিক পরীক্ষণকরণ, মাদকাসক্তদের চিকিৎসা ও পুনর্বাসন নিশ্চিতকরণসহ অন্যান্য আন্তর্জাতিক সংস্থার সঙ্গে নিবিড় সম্পর্ক তৈরি করে যাচ্ছে।

বর্তমান সরকার মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরকে যুগোপযোগী গড়ে তুলতে বিভিন্ন পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। সর্বোচ্চ সাজার বিধান রেখে আইন প্রণয়নসহ প্রশাসনিক সক্ষমতা বাড়াতে নানা উদ্যোগ বাস্তবায়িত হচ্ছে। বৃহত্তর একটি প্রতিষ্ঠান হিসেবে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তর এখন আরো বেশি দক্ষ ও কার্যকর।

মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরকে ঢেলে সাজানোর উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে।এই অধিদপ্তরকে শক্তিশালী করার লক্ষ্যে বিশ্বমানের ইন্টারোগেশন ইউনিট স্থাপন, ক্রিমিনাল ডাটা ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম চালুকরন, উন্নত গোয়েন্দা যন্ত্রপাতি ক্রয়, mobile-tracker স্থাপন, মাদক সনাক্তকরণ যন্ত্রপাতি ক্রয় ,নৌ ইউনিট স্থাপন, ডগ স্কোয়াড স্থাপন, ডিজিটাল ফরেন্সিক ইনভেস্টিগেশন ল্যাব স্থাপনের মতো গুরুত্বপূর্ণ পরিকল্পনা হাতে নেয়া হয়েছে মহাপরিচালক হতে সবার জন্য ইউনিফর্মের প্রশাসনের কাজ চলমান রয়েছে।
মোঃ মাসুদ হাসান মোল্লা রিদম,
ঢাকা,রোববার,১২ জানুয়ারি,এইচ বি নিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম।

Facebook Comments

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বশেষ আপডেট



সর্বাধিক পঠিত



সম্পাদক-কাজী আবু তাহের মো. নাছির।
নির্বাহী সম্পাদক,আফতাব খন্দকার (রনি)

ফোন:+88 01714043198

গ-১০৩/২ মধ্যবাড্ডা লিংকরোড ঢাকা-১২১২
Email: hbnews24@gmail.com

© Copyright BY HBnews24.Com

Desing & Developed BY PopularITLtd.Com